thereport24.com
ঢাকা, সোমবার, ১৯ নভেম্বর ২০১৮, ৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৫,  ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৪০

 

পেসারদের দায়িত্বশীল হওয়ার পরামর্শ মুশফিকের

২০১৫ মে ০৯ ১৮:০৯:২৮
পেসারদের দায়িত্বশীল হওয়ার পরামর্শ মুশফিকের

দ্য রিপোর্ট প্রতিবেদক : জিম্বাবুয়ের ছাড়া আর কোন দলের বিপক্ষেই ২০ উইকেট নিতে পারেনি বাংলাদেশের বোলাররা। কিন্তু টেস্ট জিততে গেলে ২০ উইকেট নেওয়াটা অনেক গুরুত্বপূর্ণ; তা জানেন মুশফিকও। কিন্তু দলের বোলাররা নিজেদের উজাড় করে খেলতে পারছেন না কোনো ম্যাচেই।

কেন এই সমস্যা? বাংলাদেশের বোলাররা কি টেস্ট খেলার মতো হয়ে উঠছে না, এমন প্রশ্নে মুশফিক বলেছেন, ‘এটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। এটি নিয়ে আমরা গত কয়েক মাস, এমনকি গত কয়েক বছর ধরেই ভাবছি। জিম্বাবুয়ের কথা বাদ দিলে আমরা কোনো দলের বিপক্ষেই ২০ উইকেট নিতে পারিনি। সত্যি বলতে, অন্য টেস্ট খেলুড়ে দলগুলোর দিকে তাকালে দেখা যায়, অন্য দলের পেসাররা নতুন বা পুরোনো বলে যেমন পরিকল্পনা নিয়ে বোলিং করে আমাদের পেসাররা সেভাবে পারে না। কিভাবে কার্যকর বোলিং করা যায়, রান কম দেওয়া যায় এবং আক্রমণাত্মক বোলিং করতে হয়- এগুলো শিখতে হবে। আমার মনে হয়, এখানে আমাদের বোলাররা অনেক পিছিয়ে আছে। সে তুলনায় ব্যাটসম্যানরা অনেক উন্নতি করেছে। ব্যাটসম্যানরা আলাদাভাবে কাজ করে। কিন্তু বোলারদের খুব কমই দেখা যায় আলাদাভাবে কাজ করতে। সেটা করলে টেস্টে ভাল করা যায়। তাদেরকেও শিখতে হবে পাঁচটা দিন কিভাবে ভাল বোলিং করা যায়, প্রতিপক্ষের উপর চাপ প্রয়োগ করা যায়। সামনের দুটি সিরিজের আগে এদিকে আমাদের মনযোগ দেওয়া খুব গুরুত্বপূর্ণ।’

পেসারদের এমন পরিস্থিতির জন্য ঘরোয়া ক্রিকেটে আমাদের উইকেটগুলোর উন্নতি কি জরুরি কিনা- এ প্রশ্নে মুশফিক বলেছেন, ‘আমরা যে ধরনের উইকেটে খেলি। টেস্ট বা প্রথম শ্রেণীতে আমাদের দেশে ১০-১৫ ওভারে পেসাররা বোলিং করতে পরে। এরপর সারা দিন স্পিনাররাই ৭০-৭৫ ওভার বোলিং করে। ফলে পেসারদের ম্যাচ অনুশীলন করা হয় না। উইকেট তৈরির কথা সব সময় বলা হয়। এটা শুরু হলে পেসাররা বুঝবে একদিনে ২০-২৫ ওভার বোলিং করতে হয়, ম্যাচ পরিস্থিতি বুঝবে। ব্যাটসম্যানরাও পেসারদের খেলা শিখবে। অবশ্য এতোকিছু ভেবে লাভ নেই। আমাদের যে সুযোগগুলো আছে, আমরা চেষ্টা করব সামনের সিরিজগুলোতে তা কাজে লাগাতে।’

এক মাস পরই ভারতের বিপক্ষে সিরিজ, কিভাবে নিজেদের প্রস্তুত করবেন- এ প্রশ্নে তিনি বলেছেন, ‘ওই সিরিজের আগে আমরা বিসিএলে খেলার সুযোগ পাব। এটা আমাদের প্রস্তুতিতে কাজে দেবে। এই সিরিজে যারা ভাল খেলেছে, তারা জানে তাদের কী করতে হবে। আর যারা খারাপ খেলেছে, তারা চেষ্টা করবে দ্রুত কামব্যাক করার।’

নিজের পারফরম্যান্স নিয়ে হতাশা ব্যক্ত করেছেন মুশফিকুর রহিম। এই বিষয়ে তিনি বলেছেন, ‘টোয়েন্টি২০ ও ওয়ানডেতে ব্যাটিং খারাপ-ভাল যাই হোক না কেন, টেস্ট ক্রিকেটে অন্য রকম একটা মনযোগ বা নিজের সঙ্গে একটা চ্যালেঞ্জ থাকে। সেদিক থেকে চিন্তা করলে এই সিরিজ হতাশাজনক আমার জন্য। শেষ কবে এমন একটা সিরিজ খেলেছি নিজেই ভুলে গেছি। ইনজুরির কারণে ব্যাটিংয়ে একটু প্রভাব পড়েছে, খুব বেশি যে পড়েছে তাও নয়। আমি জানতাম আমি এখানটায় শতভাগ ফিট কখনো হতে পারব না। দলের জন্য যেন ওভারকাম করতে পারি, দুর্ভাগ্য আমি করতে পারিনি।’

(দ্য রিপোর্ট/আরআই/কেআই/এইচ/মে ০৯, ২০১৫)

পাঠকের মতামত:

SMS Alert

ক্রিকেট এর সর্বশেষ খবর

ক্রিকেট - এর সব খবর