thereport24.com
ঢাকা, সোমবার, ১৯ নভেম্বর ২০১৮, ৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৫,  ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৪০

‘চাপ নিতে চাই না আমি’

২০১৫ মে ১০ ১৮:২৭:১৭
‘চাপ নিতে চাই না আমি’

রবিউল ইসলাম, দ্য রিপোর্ট : পাকিস্তানের বিপক্ষে একদিন হাতেই রেখেই শনিবার শেষ হয়েছে ঢাকা টেস্ট। এরপর রাতটুকু হোটেলে থেকে রবিবার সকালে কক্সবাজারে নিজ বাড়ির উদ্দেশে ঢাকা ত্যাগ করেছেন বাংলাদেশের লিটল মাস্টার মুমিনুল হক। টেস্ট ক্রিকেটে একটু একটু করে নিজেকে অনন্য উচ্চতায় নিয়ে যাচ্ছেন বিকেএসপির সাবেক এই ছাত্র। রবিবার কক্সবাজারে পৌঁছেই নানান গল্পে মেতে উঠেছেন ভাই-বোন-কাজিনদের সঙ্গে। এরই এক ফাঁকে দ্য রিপোর্টেরে সঙ্গে মুঠোফোনে কথা বলেছেন তিনি।

পাকিস্তানের বিপক্ষে ব্যাটিংয়ে খুব বেশি সৌরভ ছড়াতে না পারলেও টানা ১১ টেস্টে পঞ্চাশ কিংবা ততোধিক রান করে ওয়স্টে ইন্ডিজের কিংবদন্তি ক্রিকেটার ভিভ রিচার্ডসের পাশে নাম লিখিয়েছেন বাংলাদেশের এই ক্রিকেটার। তার সামনে এখন কেবল দক্ষিণ আফ্রিকার ব্যাটসম্যান এবি ডি ভিলিয়ার্স। টানা ১২টি টেস্টে পঞ্চাশ কিংবা এর বেশি রানের ইনিংস খেলেছেন ভিলিয়ার্স। তবে মমিুনল হক এ সব নিয়ে একদমই ভাবছেন না।

পাকিস্তানের বিপক্ষে সিরিজের মধ্য দিয়ে টানা ১১ টেস্টে রেকর্ড গড়েছেন। এই রেকর্ড গড়তে গিয়ে পেছনে ফেলেছেন ভারতের ব্যাটিং কিংবদন্তি শচিন টেন্ডুলকারকে। কেমন লাগে এত এত রেকর্ড ভাঙ্গতে? এ প্রশ্নে মুমিনুলের কণ্ঠস্বর যেন পাল্টে গেল! মুঠোফোনে দ্য রিপোর্টকে অপর প্রান্ত থেকে জানালেন, ‘এগুলো নিয়ে আমি কখনই ভাবি না। সত্যি কথা, আসলে ভাবতেও চাই না। আমি চাই না নিজেকে চাপের মধ্যে ফেলতে; এ সব আমার জন্য বাড়তি চাপ। আমি যতটা চাপমুক্ত হয়ে ক্রিকেট খেলতে পারব; ততটাই ভাল হবে আমার জন্য। মাঠে নামার আগে কখনই জানার চেষ্টা করিনি, সামনে কি রেকর্ড আছে এবং এগুলো আমার ভাঙ্গতে হবে। প্রত্যেকটা ম্যাচই নতুন করে শুরু করি এবং ভবিষ্যতেও করব। আমার চেষ্টাই থাকে নিজের স্বাভাবিক খেলাটা খেলার।’

আগামী মাসের ৯ তারিখ থেকে ভারতের বিপক্ষে ১ ম্যাচের টেস্ট ও ৩টি ওয়ানডে ম্যাচের সিরিজে মুখোমুখি হবে স্বাগতিক বাংলাদেশ। ভারতের বিপক্ষে মুমিনুলের সামনে তাই নতুন একটি রেকর্ডের হাতছানি; ভিলিয়ার্সের পাশে নাম লেখানোর সুযোগ। বিষয়টা নিশ্চয় আপনাকে অনুপ্রাণিত করবে? উত্তরে মুমিনুল আগের মতোই নিষ্পৃহ কণ্ঠে বলেছেন, ‘সামনের রেকর্ড নিয়ে ভাবছি না। আগেই বলেছি, এগুলো চাপ সৃষ্টি করে। আমি আমার স্বাভাবিক খেলার দিকেই মনোযোগী হতে চাই। আমি অবশ্যই চেষ্টা করব ভারতের বিপক্ষে আমার সেরাটাই দেওয়ার।’

পাকিস্তানের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজে দলে থাকলেও মাঠে নামা হয়নি মুমিনুলের। টেস্ট সিরিজে সুযোগ পেয়ে ২টি হাফসেঞ্চুরি পেয়েছেন তিনি। তারপরও নিজের পারফরম্যান্সে সন্তুষ্ট নন কক্সবাজারের ছেলেটি। নিজের পারফরম্যান্স সম্পর্কে দ্য রিপোর্টকে মুমিনুল বলেছেন, ‘নিজের পারফরম্যান্স নিয়ে খুশি হতে পারছি না। কেননা, যে দুটি বড় ইনিংস হয়েছে এর একটি যদি সেঞ্চুরি হতো তাহলে হয়তো খুশি হতাম। কিন্তু এই অবস্থায় খুশি হতে পারছি না।’

খুলনায় প্রথম উইকেট জুটিতে ৩১২ রান করে পাকিস্তানের বিপক্ষে ঐতিহাসিকভাবে ম্যাচ ড্র করেছিল বাংলাদেশ। কিন্তু ঢাকা টেস্টে পাকিস্তানের কাছে অসহায় আত্মসমর্থন করেছে টাইগাররা। কেন ব্যাটসম্যানদের এমন আত্মাহুতি? এমন প্রশ্নে তিনি দ্য রিপোর্টকে বলেছেন, ‘পাকিস্তানের বিপক্ষে দ্বিতীয় টেস্টের দ্বিতীয় ইনিংসে উইকেটে টিকে থাকা অনেক কঠিন ছিল। আসলে উইকেট অনেক টাফ ছিল; সেখানে বল খুব মুভমেন্ট করছিল। খেলতে ভীষণ সমস্যা হচ্ছিল। এই কারণে ব্যাটসম্যানদের বল বুঝতে সমস্যা হয়েছে। হয়তো নিজেদেরও একটু-আধটু ভুল ছিল।’

মুমিনুলের দৃষ্টিতে এই সিরিজটা বাংলাদেশের জন্য অসাধারণ কেটেছে। তার দেখা অন্যতম সেরা সিরিজ এটি। পাকিস্তানের মতো দলের সঙ্গে এমন পারফরম্যান্স সত্যিই অবাক করেছে মুমিনুলকে। এই বিষয়ে তিনি বলেছেন, ‘এই সিরিজে সব দিক দিয়েই আমরা সফল হয়েছি। পাকিস্তানের মতো একটি দলকে আমার যাচ্ছেতাইভাবে হারিয়েছি। একটি ম্যাচ খারাপ হতেই পারে। এটা নিয়ে আমরা শঙ্কিত নই। ভবিষ্যতে আমরা সাফল্যের ধারাবাহিকতা রাখতে চাই।’

আগামী মাসের ৯ তারিখ থেকে শুরু হবে ভারতের বিপক্ষে লড়াই। টেস্ট ম্যাচ দিয়েই শুরু হবে বাংলাদেশ-ভারত সিরিজ। কতটা ভাল করার প্রত্যাশা করছেন? এ প্রশ্নে মুমিনুল বলেছেন, ‘আশা করি, ভারতের সঙ্গে আমাদের খুব ভাল ফাইট হবে। ওয়ানডেতে এখন আমরা যে কোনো দলকেই হারাতে পারি। এ ছাড়া বিশ্বকাপে ভারতের বিপক্ষে লড়াইয়ের যে মানসিকতা ফুটে উঠেছিল, এমনটাই থাকবে আসন্ন সিরিজে। অন্যদিকে, টেস্টে পারফরম্যান্স খুব যে খারাপ তা কিন্তু নয়। পাকিস্তানের বিপক্ষে প্রথম টেস্টে আমরা যেভাবে ঘুরে দাঁড়িয়েছি, তা খুবই আশাব্যঞ্জক। ভারতের বিপক্ষে ভাল কিছুই হবে।’

মুশফিকের ফিল্ডিং নেওয়ার সিদ্ধান্ত ভুল ছিল না বলে মনে করেন মুমিনুল। এ সম্পর্কিত এক প্রশ্নে মুমিনুল বলেছেন, ‘টস জিতে ফিল্ডিং নেওয়াটা কোনো সমস্যা ছিল না। এটা বুঝে শুনেই নেওয়া হয়েছে। কেন যে এটা নিয়ে এত কথা হচ্ছে আমিও বুঝতে পারছি না। আমাদের শুরু থেকেই একজন বোলার কম ছিল; তা কিছুটা প্রভাব ফেলেছে। এই টেস্টে টপঅর্ডার ব্যর্থ হওয়ায় সমস্যা হয়েছে। পুরো সিরিজে একটি ম্যাচ এমন হতেই পারে। আমি মনে করি, পাকিস্তানের বিপক্ষে এই সিরিজে বাংলাদেশ অসাধারণ পারফরম্যান্স করেছে।’

(দ্য রিপোর্ট/আরআই/জেডটি/সা/মে ১০, ২০১৫)

পাঠকের মতামত:

SMS Alert

ক্রিকেট এর সর্বশেষ খবর

ক্রিকেট - এর সব খবর