thereport24.com
ঢাকা, সোমবার, ১৯ নভেম্বর ২০১৮, ৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৫,  ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৪০

কেন্দ্র ফাঁকা, তবু বিপুল ভোট!

যশোরে ৩টিতে আ.লীগ জয়ী, স্থগিত আসনে এগিয়ে

২০১৪ জানুয়ারি ০৬ ২০:৪৭:১০
যশোরে ৩টিতে আ.লীগ জয়ী, স্থগিত আসনে এগিয়ে

যশোর সংবাদদাতা : দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে যশোরের চারটি আসনের তিনটিতে বিপুল ব্যবধানে বিজয়ী হয়েছেন ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের প্রার্থীরা। যশোর-৫ আসনে ভোটের দিন গোলযোগ হওয়ায় ৬০টি কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ স্থগিত করা হয়েছে। তবে বাকি ৬২ কেন্দ্রের ফলাফলে এগিয়ে রয়েছেন নৌকা প্রতীকের প্রার্থী। এ আসনে তার বিজয়ের সম্ভাবনা রয়েছে।

তবে, বিজয়ী প্রার্থীরা যত ভোট পেয়েছেন বলে জানানো হচ্ছে তা নিয়ে সর্বমহলে সন্দেহ-সংশয় রয়েছে। ভোটগ্রহণের দিন দেখা গেছে, বেশিরভাগ কেন্দ্র ফাঁকা। দু’একটি কেন্দ্রে হাতেগোনা ভোটার দেখতে পেয়েছেন সংবাদকর্মীরা।

নির্বাচন অফিস প্রদত্ত বেসরকারি ফলাফলে দেখা যায়, যশোর-২ (ঝিকরগাছা-চৌগাছা) আসনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী অ্যাডভোকেট মনিরুল ইসলাম নৌকা প্রতীক নিয়ে ৯১ হাজার ৯১২ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী স্বতন্ত্র প্রার্থী আওয়ামী লীগ নেতা ও সাবেক বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজসম্পদ প্রতিমন্ত্রী অধ্যাপক রফিকুল ইসলাম পেয়েছেন ৪৯ হাজার ৩৩৯ ভোট। এ আসনে জাতীয় পার্টির (মঞ্জু) প্রার্থী বিএম সেলিম রেজা পেয়েছেন এক হাজার ৮৩২ ভোট। বাতিল ভোটের সংখ্যা দুই হাজার ৫৬৮টি। এ আসনে মোট ভোটার ছিল তিন লাখ ৫৯ হাজার ৮৪৮ জন।

যশোর-৪ (বাঘারপাড়া-অভয়নগর) আসনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী রণজিত কুমার রায় বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। নৌকা প্রতীকের এই প্রার্থী পেয়েছেন ৭৭ হাজার ৩৬২ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী স্বতন্ত্র প্রার্থী জাতীয় সংসদের হুইপ আওয়ামী লীগ নেতা অধ্যক্ষ শেখ আবদুল ওহাব পেয়েছেন ৩৫ হাজার ৮৬০ ভোট। এ আসনে মোট ভোটার ছিল তিন লাখ ৩৯ হাজার ৯০ জন।

যশোর-৬ (কেশবপুর) আসনে নৌকা প্রতীকের ইসমত আরা সাদেক ৫৫ হাজার ২৭০ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তিনি আওয়ামী লীগ সরকারের সাবেক শিক্ষামন্ত্রী প্রয়াত এএসএইচকে সাদেকের স্ত্রী। তার একমাত্র প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনফের প্রার্থী প্রশান্ত বিশ্বাস পেয়েছেন এক হাজার ৩২৮ ভোট। বাতিল হয়েছে ৯০৩টি ভোট। এ আসনে মোট ভোটার ছিল এক লাখ ৭৪ হাজার ৩৩৫ জন।

যশোর-৫ (মণিরামপুর) আসনে) ১২২টি কেন্দ্রের মধ্যে গোলযোগের কারণে ৬০টি কেন্দ্রের নির্বাচন স্থগিত করা হয়েছে। বাকি ৬২ আসনে এগিয়ে রয়েছেন আওয়ামী লীগের প্রার্থী অ্যাডভোকেট খান টিপু সুলতান। তিনি পেয়েছেন ৩০ হাজার ৫৩১ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী জেলা আওয়ামী লীগের কোষাধ্যক্ষ স্বপন ভট্টাচার্য। উপজেলা চেয়ারম্যানের পদ থেকে পদত্যাগ করে নির্বাচনে অংশ নেওয়া স্বপন ভট্টাচার্য পেয়েছেন ১৮ হাজার ৩৩১ ভোট। বাতিল হয়েছে ৭৩১টি ভোট। এ আসনে মোট ভোটার দুই লাখ ৮৬ হাজার ৪৯৬ জন।

এর আগে যশোর-১(শার্শা) আসনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী শেখ আফিলউদ্দিন, যশোর-৩ (সদর) আসনে একই দলের কাজী নাবিল আহমেদ বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন।

(দ্য রিপোর্ট/জেএম/এপি/ এনআই/জানুয়ারি ০৬, ২০১৪)

পাঠকের মতামত:

SMS Alert

ভোটের খবর এর সর্বশেষ খবর

ভোটের খবর - এর সব খবর