thereport24.com
ঢাকা, শনিবার, ২৭ নভেম্বর ২০২১, ১৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৮,  ২১ রবিউস সানি 1443

এ নির্বাচনে আমরা হতাশ : মজীনা

২০১৪ জানুয়ারি ১৩ ১৭:৫০:৩১
এ নির্বাচনে আমরা হতাশ : মজীনা

দ্য রিপোর্ট প্রতিবেদক : মার্কিন রাষ্ট্রদূত ড্যান ডব্লিউ মজীনা বলেছেন, ‘এ নির্বাচনে আমরা হতাশ হয়েছি। ৫ জানুয়ারি নির্বাচনে বাংলাদেশের জনগণ তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে পারেনি। আলোচনার মাধ্যমে আওয়ামী লীগ ও বিএনপিকে সমাধানের পথ বের করতে হবে। সরকারকেই এর পরিবেশ তৈরি করতে হবে।’

তিনি বলেন, ‘আমরা মনে করি, দুই দলের মধ্যে দ্রুত সময়ে সংলাপ অনুষ্ঠান করে সব দলের অংশগ্রহণের একটি নির্বাচনের পথ উন্মুক্ত হতে পারে।’

ঢাকায় নিযুক্ত বিভিন্ন দেশের কূটনীতিকদের সঙ্গে বিএনপির প্রতিনিধি দলের বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের এ কথা বলেন তিনি। গুলশানে হোটেল হেরিটেজে সোমবার বিকেল ৪টায় এ বৈঠক শুরু হয়ে শেষ হয় ৫টায়।

এ সময় ঢাকায় অবস্থানরত ৩৪টি দেশের কুটনীতিকদের কাছে নির্বাচনের বিষয়ে পর্যালোচনামূলক প্রতিবেদন তুলে ধরেন বিএনপির নেতারা।

মজীনা বলেন,‘বিরোধী দলকে সহিংসতা বন্ধ করতে হবে, সহিংসতা কোনোভাবে গ্রহণযোগ্য নয়। বিএনপির দায়িত্ব হরতাল-অবরোধ পরিহার করা। সরকারের উচিত গণতান্ত্রিক কর্মসূচি পালনে সুযোগ তৈরি করে দেওয়া। মিছিল, মিটিং, সমাবেশ করতে দেওয়া এবং নেতাকর্মীদের মুক্তি দিয়ে সংলাপের পরিবেশ তৈরি করা।’

‘সহায়ক পরিবেশ হচ্ছে- বিরোধী দলের কার্যালয় খুলে দেওয়া, তাদের নেতৃবৃন্দকে মুক্তি দেওয়া, তাদেরকে অবাধে রাজনৈতিক কর্মসূচি পালন করতে দেওয়াসহ গণতান্ত্রিক অধিকার ফিরিয়ে দেওয়া। তবে বিএনপিকে সরকারের দেওয়া সুযোগের সদ্ব্যবহার করতে হবে’ বলেন তিনি।

এ সময়কানাডার রাষ্ট্রদূত হিজার ক্রুডেন হতাশা প্রকাশ করে জানান, হরতাল-অবরোধ স্থগিত করায় আলোচনার সুযোগ সৃষ্টি হয়েছে। সহিংসতা বন্ধ করে সরকার এবং বিএনপি আলোচনায় বসতে পারে।

তিনি আরও জানান, বাংলাদেশের জনগণ যদি চায়, সব দলের অংশগ্রহণে আরেকটি নির্বাচন হতে পারে।

ইউরোপীয় ইউনিয়নের আবাসিক প্রতিনিধি উইলিয়াম হানা জানান, যেকোনো মূল্যে সহিংসতা বন্ধ করতে হবে। সংলাপ হচ্ছে সংকট সমাধানের একমাত্র পথ।’

বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান শমসের মবিন চৌধুরী বলেন, ‘আলাপ-আলোচনার মাধ্যমে সমঝোতা চায় বিএনপি। আলোচনার জন্য সব সময় প্রস্তুত বিএনপি।’

তিনি বলেন, আমরা রাষ্ট্রদূতদের এখানে দাওয়াত দিয়েছি, এখানে সব বিষয়ে আলোচনা হয়েছে। নির্বাচনের বিষয়ে বিএনপির বক্তব্য তুলে ধরা হয়েছে।’

প্রায় ঘণ্টাব্যাপী বৈঠকে নির্বাচনের বিষয়ে রাষ্ট্রদূত-কুটনীতিকদের কাছে একটি প্রতিবেদন দেওয়া হয়। ৫ জানুয়ারি ভোটগ্রহণের দিনসহ ওই সময়ে নির্বাচনের ভোটকেন্দ্রের ভোটার অনুপস্থিতি, ভোট জালিয়ারি, ব্যালট পেপার ছিনতাইসহ বিভিন্ন ভিডিও তথ্যচিত্র কুটনীতিদের সামনে উপস্থাপন করা হয়। বিএনপির পক্ষ থেকে কূটনীতিদের প্রতিবেদনটি সরবারহও করা হয়।

বিএনপির প্রতিনিধি দলে উপস্থিত ছিলেন- স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. আবদুল মঈন খান, ভাইস চেয়ারম্যান শমসের মবিন চৌধুরী, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা রিয়াজ রহমান, সাবিহ উদ্দিন আহমদ।

এছাড়া বৈঠকে ব্রাজিলের রাষ্ট্রদূত ওয়াঞ্জা ক্যাম্পস দা নব্রেগা, সুইডেনের রাষ্ট্রদূত এনেলি লিন্ডা কেনি, জার্মান রাষ্ট্রদূত ড. আলব্রেখত কনজের, দক্ষিণ কোরিয়ার রাষ্ট্রদূত লী ইয়ান ইয়ং, নেদারল্যান্ডের রাষ্ট্রদূত গারবেন ডি জং, ইতালির রাষ্ট্রদূত জর্জিও গুগলিয়েলমিনো, ইন্দোনেশিয়ার রাষ্ট্রদূত ইওয়ান উইরানাটা এমাজা, শ্রীলঙ্কার রাষ্ট্রদূত ডব্লিউ এ শরত কুমার ওরাজেদাসহ অন্তত ২৪টি দেশের রাষ্ট্রদূত, হাইকমিশনার ও ভারত, পাকিস্তানসহ ১০টি দেশের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

এ ছাড়া বিশিষ্ট সাংবাদিক শফিক রেহমান, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক বোরহান উদ্দিন খান এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

(দ্য রিপোর্ট/এমএইচ/এনডিএস/জানুয়ারি ১৩, ২০১৪)

...

পাঠকের মতামত:

SMS Alert

জাতীয় এর সর্বশেষ খবর

জাতীয় - এর সব খবর