thereport24.com
ঢাকা, বুধবার, ২১ নভেম্বর ২০১৮, ৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৫,  ১২ রবিউল আউয়াল ১৪৪০
কাজী জামশেদ নাজিম

দ্য রিপোর্ট

বিদেশে পলাতক বঙ্গবন্ধু ঘাতকদের সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত

২০১৫ আগস্ট ১৪ ২১:২৭:৪৮
বিদেশে পলাতক বঙ্গবন্ধু ঘাতকদের সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে সপরিবারে হত্যাকারী বিদেশে পলাতক ঘাতকদের সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে। মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত ওই আসামিদের সকল স্থাবর ও ব্যাংক হিসাব জব্দ করা হয়েছে বলে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগের (সিআইডি) নথি থেকে এ তথ্য জানা গেছে। ঘাতকদের বিচার ও দণ্ডের জন্য ওই পদক্ষেপ নেওয়া হয় বলে নথিতে জানানো হয়েছে।

সিআইডির ওই নথিতে জানা গেছে, বিদেশে অবস্থানরত আসামিদের (বাংলাদেশের নাগরিক) বিচারার্থে ও দণ্ডার্থে বাংলাদেশে আনার বিষয়ে পর্যালোচনা ও এ সম্পর্কে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণের নিমিত্তে সরকার টাস্কফোর্স গঠন করে।

এ বছরের ২২ ফেব্রুয়ারি স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বরাবর এ টাস্কফোর্সের সভার কার্যবিবরণী পাঠায় পুলিশ সদর দফতর। এই বিবরণীতে উল্লেখ করা হয়েছে আসামিদের সম্পত্তি বাজেয়াপ্তের বিষয়টি। এ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছিল ২০১৪ সালের ৯ ডিসেম্বর।

যাদের সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে তারা হলেন— ক্যাপ্টেন (অব.) আব্দুল মাজেদ, মেজর (অব.) শরিফুল হক ডালিম, রিসালদার মোসলেহ উদ্দিন, লে. কর্নেল খন্দকার আব্দুর রশিদ (অব.), লে. কর্নেল এস এইচ এম বি নূর চৌধুরী (অব.) ও লে. কর্নেল এম এ রাশেদ চৌধুরী।

ওই নথিতে জানা গেছে, ক্যাপ্টেন (অব.) আব্দুল মাজেদের নামে ভোলা জেলার অগ্রণী ব্যাংক লিমিটেডে বোরহান উদ্দিন থানা শাখার সঞ্চয়ী হিসাব নং-৯৬৭ খোলা রয়েছে। যাতে হালনাগাদ পর্যন্ত ৭৬ টাকা স্থিতি ও জব্দ আছে। গ্রামের বাড়িতে তার নিজের নামের ৩.৮৪ একর সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে।

এদিকে ক্যাপ্টেন (অব.) মাজেদের দুই জামাই সামরিক বাহিনীতে কর্মরত আছে বলে ওই তথ্যে বলা হয়েছে। এরা হলেন স্কোয়ার্ডন লিডার সৈয়দ মাহবুবুল আলম। যিনি গত বছরের ২৪ নভেম্বরে যশোর থেকে স্বেচ্ছায় অবসরে গেছেন বলে তথ্য দেওয়া হয়েছে। মাজেদের অপর জামাই মেজর ইসমাইল আলম মুকুল, ৬ সিগন্যাল ব্যাটালিয়নে কর্মরত থাকাবস্থায় গত বছরের ৫ মে থেকে জাতিসংঘের শান্তিরক্ষা মিশন কঙ্গোতে নিয়োজিত আছেন।

মেজর (অব.) শরিফুল হক ডালিমের নামে ঢাকা সোনালী ব্যাংকের ক্যান্টনমেন্ট কর্পোরেট শাখায় গৃহঋণ ছিল। পরে আদালতের নির্দেশে বাড়িটি নিলামের মাধ্যমে তুসুকা প্রপার্টিজ লিমিটেড কিনে নেয়। রিসালদার মোসলেহ উদ্দিনের নামে তার গ্রামের বাড়িতে (নরসিংদীর কলেজ রোডের, টাওয়াদী গ্রাম) ২৮ শতাংশ স্থাবর সম্পত্তি ক্রোক করা হয়েছে। লে. কর্নেল খন্দকার আব্দুর রশিদের (অব.) নামে গ্রামের বাড়িতে ১০.৮২২৫ একর সম্পত্তি রাষ্ট্রের অনুকূলে বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে।

লে. কর্নেল এস এইচ এম বি নূর চৌধুরীর (অব.) নামে তার গ্রামে কোনো সম্পত্তি নেই। তবে রাজধানীর গুলশান আবাসিক এলাকায় (রোড নং ২৩/বি, প্লট নং-৪) যে প্লট বরাদ্দ ছিল তা বাতিল করা হয়। লে. কর্নেল এম এ রাশেদ চৌধুরীর নামে ১.১৫ একর সম্পত্তি গত বছরের ১১ মে বাজেয়াপ্ত করে দখল নেয় সরকার।

নরসিংদী জেলার পুলিশ সুপার (এসপি) আমেনা বেগম দ্য রিপোর্টকে বলেন, ‘রিসালদার মোসলেহ উদ্দিনের নামে থাকা (গ্রামের বাড়ির) ২৮ শতাংশ স্থাবর সম্পতি ক্রোক করা হয়েছে। আদালতের নির্দেশ অনুসারে তার সম্পত্তি ক্রোক করে সরকারের জিম্মায় আনা হয়।’

(দ্য রিপোর্ট/কেজেএন/আইজেকে/এইচএসএম/শাহ/আগস্ট ১৪, ২০১৫)

পাঠকের মতামত:

SMS Alert

বিশেষ আয়োজন এর সর্বশেষ খবর

বিশেষ আয়োজন - এর সব খবর