thereport24.com
ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৩ নভেম্বর ২০১৭, ৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৪,  ৪ রবিউল আউয়াল ১৪৩৯

থানছিতে পর্যটকদের ভ্রমণ সাময়িক বন্ধ

২০১৫ সেপ্টেম্বর ৩০ ১৬:১২:০৫
থানছিতে পর্যটকদের ভ্রমণ সাময়িক বন্ধ

বান্দরবান প্রতিনিধি : জেলার থানছি উপজেলায় পর্যটকদের ভ্রমণ সাময়িক বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। দর্শনীয় স্থানগুলো ভ্রমণ ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে উঠায় পর্যটকদের সার্বিক নিরাপত্তার স্বার্থে বুধবার সকাল থেকে স্থানীয় নিরাপত্তা বাহিনী এবং প্রশাসন যৌথভাবে এ সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে।

বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) বান্দরবান সেক্টর কমান্ডার অলিউর রহমান দ্য রিপোর্টকে জানান, নদীপথে প্রবল স্রোত ও বৃষ্টিতে থানছি উপজেলার দর্শনীয় স্থানগুলো পিচ্ছিল হয়ে বিপজ্জনক হয়ে পড়েছে। সাম্প্রতি নৌকাডুবির ঘটনায় বজিবি সদস্য মারা গেছেন। বিজিবি ক্যাম্পে সন্ত্রাসী হামলার ঘটনা ঘটেছে। বিষয়গুলো চিন্তা করে সার্বিক পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণের জন্য পর্যটকদের ভ্রমণ সাময়িক বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

তবে স্থানীয় প্রশাসন এবং আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ছাড়পত্র দেওয়ার পর স্থানীয় বিজিবি ক্যাম্পে ভ্রমণকারীদের নাম-ঠিকানা লিখিত আকারে দেওয়ার পর ভ্রমণ করতে পারবেন বলে জানিয়েছেন তিনি।

জেলা প্রশাসক মিজানুল হক চৌধুরী জানান, পর্যটকদের থানছি উপজেলা ভ্রমণে কোনো ধরনের নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়নি। নিরাপত্তার স্বার্থে পর্যটকদের অবাদ যাতায়াত সীমিত করা হয়েছে। তবে এটি সাময়িক পদক্ষেপ। সাঙ্গু নদীর পানি কমে গেলে এবং সার্বিক পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়ে উঠলেই পর্যটকরা ভ্রমণ করতে পারবেন।

পর্যটকরা দ্য রিপোর্টকে জানান, প্রশাসন ও নিরাপত্তা বাহিনীর এ সিদ্ধান্তে রেমাক্রী জলপ্রপাত, তীন্দ্র বড়পাথর, নাফাকুম ঝর্ণা, বাদুরগুহা, বড়মদক, ছোট মদকসহ থানছির উপজেলার দর্শনীয় স্থানগুলো ভ্রমণ করতে পারছেন না। উপজেলা সদর থেকে পর্যটকদের নদীপথে দর্শনীয় স্থানগুলোতে যেতে দেওয়া হচ্ছে না। দূর্গমাঞ্চলে ভ্রমণে যাওয়া পর্যটকদেরও দর্শনীয় স্থানগুলো থেকে ফেরত পাঠানো হচ্ছে।

স্থানীয় বাসিন্দা মংব্রাচিং মারমা জানান, থানছিতে অসংখ্য পর্যটকের ভিড় দেখা যাচ্ছে। ভ্রমণে আসা পর্যটকরা দর্শনীয় স্পটগুলো দেখতে যেতে না পেরে পুনরায় জেলা সদরের দিকে ফিরে যাচ্ছেন।

থানছি বলিপাড়া বিজিবি ব্যাটালিয়ান কমান্ডার লে. কর্নেল কামরুল ইসলাম জানান, পর্যটকদের নিরাপত্তার স্বার্থে সতর্কতামূলক ভ্রমণ সাময়িক বন্ধ রাখা হয়েছে। এটি স্থায়ী কোনো নিষেধাজ্ঞা নয়।

(দ্য রিপোর্ট/এফএস/সা/সেপ্টেম্বর ৩০, ২০১৫)

পাঠকের মতামত:

SMS Alert

জেলার খবর এর সর্বশেষ খবর

জেলার খবর - এর সব খবর



রে