thereport24.com
ঢাকা, শুক্রবার, ২৮ জুলাই ২০১৭, ১৩ শ্রাবণ ১৪২৪,  ৪ ধূ-আল-কাইদাহ ১৪৩৮

সাম্প্রদায়িক ভারত?

২০১৫ অক্টোবর ০১ ০১:৩২:৪৩

বিবিসি খবর দিয়েছে, বাড়িতে গরুর গোস্ত রেখে খেয়েছে— এমন গুজবে ভারতে ৫০ বছর বয়সী এক ব্যক্তিকে পিটিয়ে মারা হয়েছে। রাজধানী দিল্লী থেকে মাত্র ৫০ কিলোমিটার দূরে উত্তরপ্রদেশের দাদরি গ্রামে মোহাম্মদ ইখলাক নামের ওই ব্যক্তিকে সোমবার রাতে পিটিয়ে আর পাথর ছুঁড়ে হত্যা করা হয়।

এনডিটিভির খবরে বলা হয়েছে, প্রায় ১০০ গ্রামবাসী ইখলাক নামে ওই ব্যক্তির বাড়িতে চড়াও হয়ে তাকে ও তার ২২ বছরের ছেলেকে টেনেহিঁচড়ে ঘর থেকে বের করে আনে এবং ইট দিয়ে তাদের মাথায় আঘাত করতে থাকে। এতে ইখলাকের মৃত্যু হয় এবং তার ছেলে মারাত্মক জখম হয়। এমন কি পুলিশের উপস্থিতিতেও আক্রমণকারীরা ক্ষ্যান্ত হয়নি। তাদের হাত থেকে ইখলাকের ৭০ বছর বয়সী মা ও স্ত্রীও রেহাই পাননি। তাদেরও মারধর করা হয়। মারাত্মক জখম ইখলাকের ছেলেকে হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে।

এনডিটিভির খবরে আরও বলা হয়েছে, ওই ঘটনার আধা ঘণ্টা আগে পার্শ্ববর্তী একটি মন্দির থেকে ঘোষণা করা হয়, এলাকায় একটি বাছুর জবাই করা হয়েছে। বাছুরের দেহের অবশিষ্টাংশ স্থানীয় একটি ট্রান্সফরমারের কাছে পাওয়া গেছে বলে দাবি করা হয় ওই ঘোষণায়। কিন্তু ওই ঘোষণায় কারো নাম উল্লেখ করা হয়নি। কিন্তু ওই এলাকায় মাত্র দুই ঘর মুসলমান বসবাস করে। খুন হওয়া ইখলাকের পরিবার তার একটি।

এ ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে ছয়জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ, যারা মদ্যপ অবস্থায় ছিল। গুজব ছড়ানোর জন্য দায়ীদের খুঁজছে পুলিশ।

ইখলাকের মেয়ে বলেছে, তাদের ফ্রিজে ভেড়ার গোস্ত ছিল, যা ঈদ উপলক্ষে আত্মীয়দের বাড়ি থেকে দেওয়া হয়েছিল। ওই গোস্ত গরুর নয়। পুলিশ ওই মাংস পরীক্ষা করে দেখার জন্য জব্দ করেছে।

ধর্ম নিরপেক্ষ ভারতে গরু জবাই একটি স্পর্শকাতর বিষয়। উত্তর প্রদেশের মতো কয়েকটি রাজ্যে গরু জবাই এবং বিক্রি নিষিদ্ধের আইন কঠোরভাবে প্রয়োগ করা হয়। কাশ্মীরের মতো একমাত্র মুসলমান প্রধান রাজ্যেও হাইকোর্টকে দিয়ে গরু জবাইয়ের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করানো হয়েছে।

গোমাংস খাওয়া নিষিদ্ধ করার বিষয়টি ভারতের মুসলমান ও উদার চিন্তার মানুষের মধ্যে ক্ষোভ তৈরি করলেও ক্ষমতাসীন বিজেপি গরু জবাই ও খাওয়া কঠোরভাবে বন্ধ করতে চায়। কেন্দ্র এ ব্যাপারে আইন না করলেও বিজেপি শাসিত রাজ্যগুলোতে তা আইন করে বন্ধ করা হয়েছে।

তবে ইখলাকের নির্মম হত্যাকাণ্ড প্রমাণ করছে বিজেপি বা ভারতের হিন্দুত্ববাদীরা হিন্দু ধর্মের আদর্শ প্রতিষ্ঠার চেয়ে মুসলিম বিদ্বেষকেই ছড়িয়ে দিতে বদ্ধপরিকর। তাই অজুহাত তৈরি করেই তারা মুসলমানদের ওপর কাপুরুষোচিত হামলা চালাচ্ছে। ইখলাক হত্যা তারই একটি।

পাঠকের মতামত:

SMS Alert


রে