thereport24.com
ঢাকা, রবিবার, ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৭, ১৩ ফাল্গুন ১৪২৩,  ২৮ জমাদিউল আউয়াল ১৪৩৮

ভুটানের সঙ্গে ড্র করে স্বপ্ন মলিন বাংলাদেশের

২০১৫ অক্টোবর ০৪ ১৯:৫০:১৮
ভুটানের সঙ্গে ড্র করে স্বপ্ন মলিন বাংলাদেশের

দ্য রিপোর্ট প্রতিবেদক : একদিন আগেই উজবেকিস্তানের সঙ্গে দুমড়ে-মুচড়ে গিয়েছিল ভুটান দল; ৭-০ গোলে বিধ্বস্ত হয়েছিল তারা। এক দিনের ব্যবধানে দুর্দান্তভাবেই ঘুরে দাঁড়িয়েছে দলটি। রবিবার বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে স্বাগতিক বাংলাদেশের বিপক্ষে সেই ভুটানই ছিল ম্যাচের নিয়ন্ত্রকের ভূমিকায়। যদিও শেষ অব্দি ভাগ্যে জোরে ম্যাচটি ১-১ গোলে ড্র করেছে বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ দল। এই ড্রয়ে স্বপ্ন মলিনই হয়ে গিয়েছে বাংলাদেশের। গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হওয়া দূরের কথা; সেরা রানার্সআপ হিসেবে এএফসি অনূর্ধ্ব-১৯ চ্যাম্পিয়নশিপের চূড়ান্তপর্বের টিকিট পাওয়াটাও অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে সাইফুল বারী টিটুর শিষ্যদের জন্য। কারণ, শেষ ম্যাচে মঙ্গলবার বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ গ্রুপের সবচেয়ে শক্তিশালী দল উজবেকিস্তান; যে দলটি রবিবার শ্রীলঙ্কাকে হারানোর সুবাদে ২ ম্যাচে পূর্ণ ৬ পয়েন্ট অর্জন করেছে ইতোমধ্যেই।

অতি আত্মবিশ্বাসই কাল হয়ে দাঁড়িয়েছে বাংলাদেশের জন্য। বিশেষ করে গত আগস্টে নেপালে সাফ চ্যাম্পিয়নশিপে ভুটানকে ২-০ গোলে হারানোর স্মৃতি ছিল বাংলাদেশের সামনে। এর ওপর প্রথম ম্যাচে শ্রীলঙ্কাকে হারিয়ে পূর্ণ ৩ পয়েন্ট ছিল অর্জনের খাতায়। সব হিসাবই মাঠের খেলায় অকেজো প্রমাণিত হয়েছে। কারণ, শুরু থেকে যে ধরনের শরীরী ভাষা ছিল ভুটানের, তাতে এক পয়েন্ট পাওয়াটাও বাংলাদেশের জন্য ছিল সৌভাগ্যের বিষয়।

ভুটান ছিল চাপমুক্ত। দলটির কোচ আগেই বাংলাদেশকে ফেভারিট বলে রেখেছিলেন। কিন্তু মনের অন্তরালে হয়তো সাফের প্রতিশোধের আগুন জ্বলছিল। সেই আগুনে পুড়ল বাংলাদেশের তরুণরা। ম্যাচের বেশিরভাগ সময়ই এগিয়ে ছিল ভুটান। ৬ মিনিটেই গোল পেয়েছে দলটি। কর্নার কিক থেকে পাওয়া বলে বক্সের মধ্যে সোনাম তোবগে দুইবার প্রচেষ্টা চালিয়ে গোলটি করেছেন।

সমতা ফেরাতে প্রাণপণ চেষ্টা করেছে বাংলাদেশের তরুণরা। তাতে লাভ হয়নি। মান্নাফ রাব্বি, সারোয়ার জামান নিপু বা রোহিত সরকার কেউই খোঁজে পাননি ভু্টানের জাল। ১৯ মিনিটে ডান দিক থেকে বিশ্বনাথ হালদারের থ্রোতে প্রথম প্রচেষ্টায় রাব্বির বল ফিরিয়ে দেন ভুটানের গোলরক্ষক। দ্বিতীয় প্রচেষ্টায় আবারও শট নেন রাব্বি। আর গোললাইন থেকে ভুটানের অধিনায়ক চোকি ওয়াংচুক বল ফিরিয়ে দিয়ে বাংলাদেশকে হতাশ করেছেন।

সাদ উদ্দিনের বদলি হিসেবে ২৯ মিনিটে মাঠে নেমেছে নিপু। মাঠে নামার পর প্রথমার্ধেই তিনি গোলের সুযোগ পেয়েছেন। ৩৯ মিনিটে বক্সের বাম পাশ থেকে ইব্রাহিমের দেওয়া বলে শট নিতে গিয়ে বক্সের সামনে পড়ে যান নিপু। সেই বলে দুর্দান্ত শট নিয়েছিলেন মান্নাফ রাব্বি। কিন্তু তা গোলরক্ষক ফিরিয়ে দিয়েছেন। পরে আবারও দুর্বল শট নিয়েছিলেন শাহরিয়ার বাপ্পি। কিন্তু তাতেও লাভ হয়নি।

সমতা ফেরাতে বাংলাদেশ দল আরও সুযোগ পেয়েছে প্রথমার্ধেই। ৪২ মিনিটে বক্সের বাইরে এসে ভুটানের গোলরক্ষক বল ধরলে বক্সের ভিতরে ইনডাইরেক্ট ফ্রি কিক দিয়েছেন রেফারি। ইব্রাহিম সেই বলে কিক নিলে বলটি পান মাশুক মিয়া জনি। তবে জনির শট গোলবারের উপর দিয়ে চলে গেছে।

দ্বিতীয়ার্ধে তুলনামূলক ভাল খেলেছে বাংলাদেশ। বেশ কিছু গুছানো আক্রমণও করেছে তারা। ৫৯ মিনিটে ইব্রাহিমের ক্রস থেকে পাওয়া বলে দুর্দান্ত শট নিয়েছিলেন রোহিত সরকার। কিন্তু গোললাইন থেকে ভুটানের গোলরক্ষক তা ফিরিয়ে দিতে সক্ষম হন।

শেষ পর্যন্ত অধিনায়ক মাশুক মিয়া জনির গোলে সমতায় ফিরেছে বাংলাদেশ। ম্যাচের ৭৮ মিনিটে বামপ্রান্ত থেকে ইব্রাহিমের নেওয়া ফ্রি কিকে পোস্টের একেবারে সামনে মাথা ছুঁয়ে ভুটানের জাল ভেদ করেছেন তিনি।

সমতা ফেরানোর পর আক্রমণের ক্ষুরধার আরও বেড়ে যায় বাংলাদেশের। তবে সেসব সুযোগ কাজে লাগাতে পারেনি তারা। তাই বাংলাদেশের কাঙ্ক্ষিত ৩ পয়েন্ট আসেনি ভুটানের বিপক্ষে। বরং এখন শক্তিশালী প্রতিপক্ষ উজবেকিস্তানের বিপক্ষে ‘মিরাকল’ কিছু করার অপেক্ষায় থাকতে হবে সাইফুল বারী টিটুর শিষ্যদের।

(দ্য রিপোর্ট/কেআই/জেডটি/সা/অক্টোবর ০৪, ২০১৫)


পাঠকের মতামত:

SMS Alert

ফুটবল এর সর্বশেষ খবর

ফুটবল - এর সব খবর



রে