thereport24.com
ঢাকা, রবিবার, ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৭, ১৩ ফাল্গুন ১৪২৩,  ২৮ জমাদিউল আউয়াল ১৪৩৮

‘প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্য শুনলে লজ্জা লাগে’

২০১৫ অক্টোবর ০৫ ১৮:০৭:০৯
‘প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্য শুনলে লজ্জা লাগে’

দ্য রিপোর্ট প্রতিবেদক : ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভিসি অধ্যাপক এমাজউদ্দীন আহমদ বলেছেন, ‘প্রধানমন্ত্রী জাতির কারিগর শিক্ষকদের নিয়ে যে বক্তব্যে দিয়েছেন তা শুনলে লজ্জা লাগে। আমরা জাতি হিসেবে লজ্জিত।’

প্রধানমন্ত্রী রবিবার সংবাদ সম্মেলনে বলেন, ‘শিক্ষকদের এত দেওয়ার পরও এত কথা, তাহলে আরও কম দিলে ভাল হতো।’

এমাজউদ্দীন বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী এ সব কথা কোথা থেকে শিখেছেন। এতে আমরা লজ্জাবোধ করি। এ কথাগুলো ভুল। তার পিতা শেখ মুজিবুর রহমানও কোনো দিন শিক্ষকদের নিয়ে এমন কথা বলেননি।’

ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে সোমবার দুপুরে ‘সমাজ বদলে শিক্ষক শীর্ষক’ আলোচনা সভায় তিনি এ সব কথা বলেন। ৫ অক্টোবর বিশ্ব শিক্ষক দিবস উপলক্ষে এ আলোচনা সভার আয়োজন করে শিক্ষক কর্মচারী ঐক্যজোট।

বিশিষ্ট রাষ্ট্রবিজ্ঞানী অধ্যাপক এমাজউদ্দীন আহমদ বলেন, ‘জাতীয় অগ্রগতির বৃত্তি হচ্ছে শিক্ষা। শিক্ষা মানুষকে সাধারণ শিক্ষার পাশাপাশি সততা, কর্তব্যপরায়ন ও দায়িত্ববোধ শেখায়। জাতিকে সম্মানের উচ্চতায় নিয়ে যেতে শিক্ষা ছাড়া পথ নেই। অন্য পেশার কর্মকর্তাদের চেয়ে শিক্ষকের সম্মানী বাড়িয়ে দিতে হবে, যেন তারা অর্থকষ্টে না ভোগেন। পৃথিবীর অন্যান্য দেশে শিক্ষকদের বেতন সবচেয়ে বেশি।’

প্রধানমন্ত্রীকে উদ্দেশ করে এ শিক্ষাবিদ বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শিক্ষকদের প্রতিদ্বন্দ্বী করবেন না। আপনার ছেলে-মেয়েদের ভাল মানুষ হিসেবে গড়ে তুলতে শিক্ষকরা দায়িত্ব নিয়েছেন। আপনি পুলিশ, সরকারি কর্মকর্তাদের দলীয়করণ করেন। কিন্তু শিক্ষাক্ষেত্রে আল্লাহর ওয়াস্তে দলীয়করণ করবেন না।’

শিক্ষাক্ষেত্রে বাজেটের ১৮ থেকে ২০ ভাগ এবং জিডিপির ৪ থেকে ৫ ভাগ বরাদ্দ দেওয়ার পরমর্শ দেন এমাজউদ্দীন আহমদ।

ঢাবির সাবেক এই ভিসি বলেন, ‘বিদেশী দুই নাগরিক হত্যায় জাতি হিসেবে আমরা লজ্জিত। এতে দেশের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন হয়েছে। সরকার তাদের নিরাপত্তা দিতে ব্যর্থ হয়েছে। এ হত্যার দায় সরকার ও জাতি হিসেবে সব মানুষের। তাই কারো ওপর ব্লেম না দিয়ে জুডিশিয়াল বিচারপতিদের দিয়ে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা উচিৎ। সঠিক তদন্তের মাধ্যমে চিহ্নিত হোক কারা এ হত্যায় জড়িত। কারো ওপর ব্লেম দিয়ে পার পাওয়া যাবে না।’

আলোচনা সভায় শিক্ষক কর্মচারী ঐক্যজোটের চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ সেলিম ভূইয়ার মুক্তি দাবি করেন বক্তারা। আয়োজক সংগঠনের ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মো. জাকির হোসেনের সভাপতিত্বে আরও বক্তব্য দেন— বাংলাদেশ লেবার পার্টির চেয়ারম্যান ডা. মোস্তাফিজুর রহমান ইরান, শিক্ষক কর্মচারী ঐক্যজোটের প্রেসিডিয়াম সদস্য আলমগীর হোসেন, অধ্যাপক তোফাজ্জল হোসেন বাবু, জিয়া নাগরিক ফোরামের সভাপতি মিয়া মো. আনোয়ার, কারিগরি শিক্ষক সমিতির মহাসচিব আসাদুজ্জামান আকাশ প্রমুখ।

(দ্য রিপোর্ট/টিএস/এমএআর/সা/অক্টোবর ০৫, ২০১৫)


পাঠকের মতামত:

SMS Alert

রাজনীতি এর সর্বশেষ খবর

রাজনীতি - এর সব খবর



রে