thereport24.com
ঢাকা, বুধবার, ৩ জুন ২০২০, ২০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭,  ১১ শাওয়াল ১৪৪১

মুসলমানদের জানতে জার্মানিতে ‘ওপেন ডে’

২০১৩ অক্টোবর ০৭ ১৩:২১:১৩ ০০০০ 00 ০০ ০০:০০:০০
মুসলমানদের জানতে জার্মানিতে ‘ওপেন ডে’

দিরিপোর্ট২৪ প্রতিবেদক : জার্মানিতে মুসলমানদের সংখ্যা যথেষ্ট হলেও তাদের কার্যক্রম নিয়ে সাধারণ জার্মানদের মনে প্রশ্ন আছে। মসজিদের দেয়ালের আড়ালে কি ঘটে, তা নিয়ে কৌতুহলের যেন শেষ নেই। আর এই কৌতুহল অবসানে ‘ওপেন ডে’-র মাধ্যমে পরস্পরকে জানা ও বোঝার পথ খুলে দিয়েছে কেন্দ্রীয় ইসলামি পরিষদ৷

৩ অক্টোবর, জার্মানির জাতীয় দিবস ও ছুটির দিন৷ ১৯৯০ সালের এইদিনে দুই জার্মানির পুনরেকত্রীকরণ ঘটেছিল। জার্মানির কেন্দ্রীয় ইসলামি পরিষদ এই দিনে গোটা দেশের মসজিদে ‘ওপেন ডে' পালন করে। সমাজের মূল স্রোতের সঙ্গে সংলাপ বাড়ানোর উদ্যোগ এটি। ১৯৯৭ সাল থেকে এই কর্মসূচি শুরু হয়৷ চলতি বছর প্রায় এক হাজার মসজিদ এতে অংশ নেয়।

সাধারণ জার্মান অনেকেই মুসলমানদের সম্পর্কে বিরূপ ধারণা পোষণ করে থাকেন। তাদের এ ধারণা দূর করতে যেকেউই এ সংলাপে অংশ নিতে পারেন। মসজিদ ঘুরে দেখা থেকে শুরু করে আলোচনা সভায় বক্তাদের কথা শোনা যায়। চা-কফিসহ বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তের খাবার-দাবারও চোখে দেখার সুযোগ রয়েছে৷ ইসলাম ধর্ম সম্পর্কে যে কোনো প্রশ্নও করা যেতে পারে এখানে।

জুতা খুলে মসজিদে প্রবেশ করার অভিজ্ঞতা অনেকের কাছেই নতুন৷ যদিও মোলায়েম কার্পেটে পা রেখে আরাম পেয়েছেন অনেকেই৷ তাদের স্বাগত জানানো হয়েছে আপেলের চা দিয়ে৷

২০১৩ সালে মসজিদের ‘ওপেন ডে'-র মূলমন্ত্র ছিল পরিবেশ সংরক্ষণ৷ মসজিদে ওজু করার সময় পানির অপচয় বন্ধ থেকে শুরু করে মসজিদের জ্বালানির চাহিদা মেটাতে সৌরশক্তির ব্যবহারের মতো বিষয়ও স্থান পেয়েছিল এবার৷

নর্থরাইন ভেস্টফালিয়া রাজ্যের ইন্টিগ্রেশন মন্ত্রী গুন্টরাম স্নাইডার পরিবেশ সংরক্ষণের ক্ষেত্রে সব ধর্মীয় সম্প্রদায়ের দায়িত্বের কথা উল্লেখ করেন এবারের সংলাপে।

কেন্দ্রীয় ইসলামি পরিষদের সভাপতি আইমান মাসিয়েক বলেন, পবিত্র কোরানে স্পষ্ট বলা আছে, পৃথিবীর সম্পদ মানুষ ব্যবহার করতে পারে ঠিকই, কিন্তু তার শোষণের অধিকার তাদের নেই৷

‘ওপেন ডে'-র দিনে যারা মসজিদে আসেন, তাদের মধ্যে প্রায় ৮০ শতাংশই অমুসলিম বলে জানান মাসিয়েক৷

(দিরিপোর্ট২৪ডেস্ক/ওএস/এমএআর/জেএম/অক্টোবর ০৭, ২০১৩)

পাঠকের মতামত:

SMS Alert

ধর্ম এর সর্বশেষ খবর

ধর্ম - এর সব খবর