thereport24.com
ঢাকা, শনিবার, ১৭ নভেম্বর ২০১৮, ৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৫,  ৮ রবিউল আউয়াল ১৪৪০

‘আমরা এক থাকলে ওরা কিছুই করতে পারবে না’

২০১৫ ডিসেম্বর ১৪ ০০:০৬:৫২
‘আমরা এক থাকলে ওরা কিছুই করতে পারবে না’

মুহম্মদ আকবর, দ্য রিপোর্ট : মহান মুক্তিযুদ্ধে বিভিন্নভাবে শত্রুর মোকাবেলা করেছেন নানান শ্রেণি-পেশার মানুষ। সেই সময় কণ্ঠে বিপ্লবী সুর তুলে, গান লিখে কিংবা অভিনয় করে মুক্তিযুদ্ধে প্রেরণা যুগিয়েছিলেন স্বাধীন বাংলা বেতারকেন্দ্রের শিল্পীরা। স্বাধীনতার চুয়াল্লিশ বছর পর কী ভাবছেন তারা? কেমন তাদের যাপিত জীবন? চলমান পরিস্থিতিতে সরকার ও জনগণের প্রতি তাদের প্রত্যাশা কী? এ সব বিষয় নিয়ে স্বাধীনতার মাসে দ্য রিপোর্ট টুয়েন্টিফোর ডটকমের মাসব্যাপী আয়োজন ‘বিজয়ের মাসে’। এরই ধারাবাহিকতায় কথা হয় স্বাধীন বাংলা বেতারকেন্দ্রের অন্যতম শিল্পী সুজেয় শ্যামের সঙ্গে।

ব্যক্তিগত জীবনে তিনি কেমন আছেন, কীভাবে আছেন, রাষ্ট্র ও সরকার তার যাপিত জীবনের মূল্যায়ন করেছে কী না এ নিয়ে মাথা ব্যথা নেই তার। আক্ষেপ একটাই তা হলো- আমাদের অর্থহীন বিভাজন। তিনি বলেন, ‘পঁচাত্তরে বঙ্গবন্ধুকে নির্মমভাবে হত্যার পর মুক্তিযোদ্ধারা দুই অংশে ভাগ হয়ে যায়। শুধু তাই নয়, এক অংশ স্বাধীনতাবিরোধী শক্তির সঙ্গে যোগ দেয়। ফলে, মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে নতুন প্রজন্মের কাছে তুলে ধরতে ব্যর্থ হয়েছি। এ ব্যর্থতা আমাদের। তবে আশার কথা হলো কিছু বুদ্ধিদীপ্ত তরুণ নিজ তাগিদে মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে বহন করছে।’

সাম্প্রদায়িক শক্তি মোকাবেলায় আমাদের করণীয় বিষয়ে তিনি বলেন, ‘প্রয়োজন মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষের শক্তি এক থাকা। আমরা স্বাধীন বাংলা বেতারকেন্দ্রে বাংলার হিন্দু মুসলমান খ্রিস্টান বৌদ্ধ সবাই মিলে একসঙ্গে কাজ করেছি। এখনো যদি আমরা সবাই এক থাকি তাহলে ওরা কিছুই করতে পারবে না।’

তরুণ প্রজন্মের উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘আমরা একদিন থাকবো না তাই তরুণ প্রজন্মকেই দেশের পতাকা বহন করতে হবে।’

সেভাবে প্রস্তুত নেওয়ার জন্য তরুণদের প্রতি তিনি বিশেষ আহ্বান জানান।

বর্তমান সময়ের গানের মান সম্পর্কে তিনি বলেন, ‘এখন তেমন কোনো গান হচ্ছে না। গানের মৌলিকত্ব হারিয়ে যেতে বসেছে। আমাদের সময় শিল্পী হওয়ার জন্য এক ধরনের ব্যাকুলতা ছিল। এখন সবাই তারকা হতে চায় তাই এই অবস্থা।’

(দ্য রিপোর্ট/এমএ/এপি/এইচ/ডিসেম্বর ১৩, ২০১৫)

পাঠকের মতামত:

SMS Alert

শিল্প ও সংস্কৃতি এর সর্বশেষ খবর

শিল্প ও সংস্কৃতি - এর সব খবর