thereport24.com
ঢাকা, রবিবার, ১৮ নভেম্বর ২০১৮, ৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৫,  ৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪০

দুই বাংলার মানুষের মিলনমেলা 

বেনাপোল নো-ম্যানসল্যান্ডে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস

২০১৬ ফেব্রুয়ারি ২১ ০০:২০:৫৭
বেনাপোল নো-ম্যানসল্যান্ডে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস

বেনাপোল প্রতিনিধি : বরাবরের মত এবারও যশোরের সীমান্তবর্তী স্থলবন্দর বেনাপোল চেকপোস্টের জিরো পয়েন্ট তথা নো-ম্যানসল্যান্ডে দুই বাংলার মানুষ যৌথভাবে পালন করবে ‘আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস’। বেনাপোল পৌরসভা ও দুই বাংলার একুশ উদযাপন কমিটি যৌথভাবে আয়োজনের উদ্যোক্তা।একই আকাশ একই বাতাস দুই বাংলার মানুষের ভাষা এক।

২০০২ সাল থেকে বাংলাদেশের বেনাপোল ও ভারতের পেট্রাপোল বন্দরের সীমান্তবর্তী বাসিন্দারা একসঙ্গে মিলিত হয়ে দিনটি পালন করে আসছেন। দুই দেশের বিভিন্ন সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠন এ অনুষ্ঠানে অংশ নেয়।ওইদিন দুই বাংলার মানুষের মধ্যে বসে এক মিলন মেলা।

একুশের ভোরে দুই চেকপোস্টের নো-ম্যানসল্যান্ডে হাজার হাজার মানুষের ঢল নামে। ক্ষনিকের জন্য হলেও মুছে যায় আন্তর্জাতিক ভেদরেখা। এ সময় এক আবেগাপ্লুত পরিবেশের সৃষ্টি হয়। দুই বাংলার মানুষ একে অপরকে আলিঙ্গন করে সকল ভেদাভেদ ভুলে যান কিছু সময়ের জন্য। অনেকে নাড়ির টানে একজন অপরজনকে জড়িয়ে ধরে হাউমাউ করে কেঁদে ফেলেন।

রবিবার নো-ম্যানসল্যান্ডে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উদযাপনে ইতোমধ্যে সকল প্রস্তুতি গ্রহণ করা হয়েছে। দুই দেশের চেকপোস্ট সাজানো হয়েছে বর্ণিল সাজে, তৈরি করা হয়েছে অস্থায়ী শহীদ মিনার ও একুশটি মঞ্চ। বাংলাদেশের বেনাপোল চেকপোস্ট নোম্যানসল্যান্ডের অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মাহাবুবুল আলম হানিফ এমপি। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন জনপ্রশাসন মন্ত্রনালয়ের প্রতিমন্ত্রী ইসমত আরা সাদেক, যশোর-১ আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব শেখ আফিল উদ্দিন, যশোর-২ আসনের সংসদ সদস্য এ্যাডভোকেট মনিরুল ইসলাম, যশোর-৩ আসনের সংসদ সদস্য কাজী নাবিল আহম্মেদ, যশোর-৪ আসনের সংসদ সদস্য রনজিৎ কুমার রায়, যশোর জেলা প্রশাসক ড. হুমায়ুন কবীর, যশোর ২৬ বিজিবি ব্যাটালিয়নের কমান্ডিং অফিসার লে. কর্নেল জাহাঙ্গীর হোসেন, পুলিশ সুপার আনিসুর রহমান, বেনাপোল বন্দরের পরিচালক নিতাই চন্দ্র সেন প্রমুখ।

অন্যদিকে ভারতের পক্ষে উপস্থিত থাকবেন পশ্চিমবঙ্গ সরকারের খাদ্য ও সরবরাহ মন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক, অনগ্রসর শ্রেণী কল্যাণমন্ত্রী উপেন্দ্র নাথ বিশ্বাস, লোক সভার বনগাঁ অঞ্চলের সাংসদ মমতা ঠাকুর, বিধায়ক বিশ্বজিৎ দাস, উত্তর ২৪ পরগনার জেলা পরিষদের সভাধিপতি রহিমা মন্ডল ও বনগাঁ পৌর মেয়র শংকর আঢ্য প্রমুখ।

শহীদ মিনারের বেদীতে উভয় দেশের অতিথিদের পুষ্পস্তবক অর্পণের মধ্য দিয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে শুরু হবে মূল অনুষ্ঠান। এরপর পরিবেশিত হবে উভয় দেশের জাতীয় সংগীত । উভয় সীমান্তে সকাল ৭টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত অনুষ্ঠান চলবে।অনুষ্ঠান চলাকালে উভয় সীমান্তে বিনিময় হবে বিভিন্ন ব্যানার, ফেস্টুন ও ব্যাজ। যাতে লেখা আছে- ‘শহীদের রক্তে গড়া আমাদের এই মাতৃভাষা’। এ ছাড়াও একুশের কবিতা আবৃত্তি, ছড়া, গীতিনাট্য, আলোচনা ও সংগীতানুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে। দুই বাংলার প্রখ্যাত কবি, সাহিত্যিক, শিল্পী ও ভাষাপ্রেমীরা এসব অনুষ্ঠানে অংশ নেবেন।

এদিকে এ অনুষ্ঠানকে ঘিরে কড়া নিরাপত্তা আরোপ করা হয়েছে দুই দেশের সীমান্তে। বেনাপোল-পেট্রাপোল চেকপোস্টে যাতে কেউ প্রবেশ করতে না পারে সেজন্য বিজিবি ও বিএসএফ অতিরিক্ত সদস্য মোতায়েন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বলে জানা গেছে। ভারতীয় বিএসএফ সদস্যরা ডগ স্কোয়াড নিয়ে সীমান্তে নিরাপত্তা জোরদার করবে বলে জানা গেছে।

বেনাপোল পৌর মেয়র আশরাফুল আলম লিটন জানান, গতবারের চেয়ে এবারের আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস আরো জাঁকজমকপূর্ণভাবে অনুষ্ঠিত হবে।

(দ্য রিপোর্ট/এসআর/ ফেব্রুয়ারি ২০, ২০১৬)

পাঠকের মতামত:

SMS Alert

জাতীয় এর সর্বশেষ খবর

জাতীয় - এর সব খবর