thereport24.com
ঢাকা, শুক্রবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৬ আশ্বিন ১৪২৫,  ১০ মহররম ১৪৪০

কঠোর নিরাপত্তা বলয়ে উদযাপন বাংলা বর্ষবরণ

২০১৬ এপ্রিল ১৪ ১৮:৫৮:০০
কঠোর নিরাপত্তা বলয়ে উদযাপন বাংলা বর্ষবরণ

দ্য রিপোর্ট প্রতিবেদক : কঠোর নিরাপত্তা বলয়ে পালিত হলো বাংলা বর্ষবরণ অনুষ্ঠান পহেলা বৈশাখ। বর্ষবরণ উৎসবকে কেন্দ্র করে ব্যাপক নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী। নিরাপত্তার জন্য র‌্যাব সদস্যরা আকাশ পথেও নজরদারি রাখেন। যে কোন অবস্থার জন্য মেডিকেল টিম ও ফায়ার সার্ভিসের সদস্যদেরও প্রস্তুত রাখা হয়। জনসমাগম এলাকাগুলো রাখা হয় ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) সেন্ট্রাল মাইকের আওতায়।

এদিকে, পয়লা বৈশাখ উদযাপনে যেখানেই ভিড়, সেখানেই নিরাপত্তা বলয় গড়ে তুলবে পুলিশ। ভিড়ের স্থানগুলো চিহ্নিত করে নিরাপত্তা দেওয়ার পরিকল্পনা করে ডিএমপি। ভিড়ের মধ্যে গত বছরের মতো যৌন হয়রানির ঘটনা যাতে আর না ঘটে, তা এড়ানোর লক্ষ্যেই পুলিশের এ উদ্যোগ। রমনা বটমূল, সোহরাওয়ার্দী উদ্যান, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, ধানমন্ডি লেক, হাতিরঝিল, উত্তরা, বনানী ও গুলশান এলাকার যেসব স্থানে কনসার্ট, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও মেলা হয়েছে সেখানে পুলিশ বাড়তি নিরাপত্তা দিয়েছে। বিকাল সাড়ে ৫ টার মধ্যে অনুষ্ঠান শেষ করে দেওয়া হয়েছে।

তবে বাসাবাড়িতে যেকোন ধরনের অনুষ্ঠানের আয়োজন করতে বাধা দেবে না পুলিশ। বরং ওইসব অনুষ্ঠানে নিরাপত্তা দেবে। রাতে প্রিয়জনকে নিয়ে হেঁটে বেড়ানো যাবে, তবে দলগতভাবে কোন কিছু করা যাবে না বলেও জানিয়েছে ডিএমপি।

ডিএমপি আরো জানিয়েছে, ঢাকার ৭০টি স্থানে বাংলা বর্ষবরণের অনুষ্ঠান আয়োজনের অনুমতি দেওয়া হয়েছে। প্রতিটি স্থানে র‌্যাব-পুলিশ একত্রে দায়িত্ব পালন করছে। মঙ্গল শোভাযাত্রার সঙ্গে স্পেশাল উইপন্স অ্যান্ড ট্যাকটিক্স (সোয়াট, SWAT) টিম দায়িত্বরত ছিল। গুরুত্বপূর্ণ ও অধিক জনসমাগমের স্থানে র‌্যাব-পুলিশের ডগ ও বোম্ব স্কোয়াড দায়িত্ব পালন করেছে। ১৯টি ওয়াচ টাওয়ার দিয়ে সার্বক্ষণিক পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করা হয়। ঢুকতে ও বের হতে পৃথক গেট রাখা হয়। দর্শনার্থীরা আর্চওয়ে গেট দিয়ে ভেতরে ঢুকেন এবং মেটাল ডিটেক্টর দিয়ে দেহ তল্লাশির পর আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা তাদের ভিতরে প্রবেশ করতে দেন। পাশাপাশি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসন, সিটি করপোরেশন, বিএনসিসি, গার্লস গাইড ও চারুকলার সেচ্ছাসেবকরা আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদের সঙ্গে সমন্বয় করে দায়িত্ব পালন করেন।

বাংলাদেশ পুলিশের মহা-পরিদর্শক (আইজিপি) এ কে এম শহীদুল হক বলেন, ‘সাধারণ মানুষের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে সকল ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। আমরা চাই দেশের মানুষ নির্ভিগ্নে পয়লা বৈশাখ অনুষ্ঠান পালন করুক।’

তিনি আরও বলেন, ‘সিসি টিভি ক্যামেরায় পুরো এলাকা মনিটরিং করা হচ্ছে। মনিটরিং ক্যাম্প থেকে প্রয়োজনীয় নির্দেশনাও দেওয়া হচ্ছে। এছাড়াও ওয়াচ টাওয়ার থেকে নজরদারি অব্যাহত রয়েছে। প্রস্তুত রয়েছে পুলিশের ডগ ও বোম্ব স্কোয়াডসহ বিশেষায়িত ইউনিটগুলো।’

ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি) কমিশনার মো. আছাদুজ্জামান মিয়া বলেন, ‘মানুষের আনন্দ নষ্ট হয় এমন কোন বিধি নিষেধ আমরা দেইনি। আমরা চাই মানুষ নিরাপদে বর্ষবরণ উৎসব উৎযাপন করুক।’

(দ্য রিপোর্ট/এমএসআর/এসবি/এপ্রিল ১৪, ২০১৬)

পাঠকের মতামত:

SMS Alert

জাতীয় এর সর্বশেষ খবর

জাতীয় - এর সব খবর



রে