thereport24.com
ঢাকা, শনিবার, ১৫ ডিসেম্বর ২০১৮, ৩০ অগ্রহায়ণ ১৪২৫,  ৬ রবিউস সানি ১৪৪০

৬৬ বছরে নাসির উদ্দীন ইউসুফ

২০১৬ এপ্রিল ১৫ ০০:০২:১১
৬৬ বছরে নাসির উদ্দীন ইউসুফ

পাভেল রহমান, দ্য রিপোর্ট : বাংলাদেশের সাংস্কৃতিক আন্দোলনের অন্যতম পুরোধাব্যক্তিত্ব নাসির উদ্দীন ইউসুফ। তিনি একাধারে নাট্য নির্দেশক, চলচ্চিত্র নির্মাতা ও সংগঠক। বরেণ্য এই মানুষটির জন্মদিন ১৫ এপ্রিল শুক্রবার। দ্য রিপোর্ট টুয়েন্টিফোর ডটকম শুভেচ্ছা জানাচ্ছে নাসির উদ্দীন ইউসুফের জন্মদিনে।

জন্মদিন নিয়ে বিশেষ কোনো উন্মাদনা নেই নাসির উদ্দীন ইউসুফের। অন্যসব দিনের মতোই সাধারণ একটি দিন। তবে কর্মময় প্রতিটি দিনই আনন্দের বলে মনে করেন তিনি। সৃজনকর্মের মাঝেই বেঁচে থাকতে চান। তাই দ্য রিপোর্টের কাছ থেকে জন্মদিনের শুভেচ্ছা গ্রহণ করে নতুন কাজের খবর জানালেন এই নন্দিত সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব।

নতুন একটি পথনাটক নির্দেশনা দিতে যাচ্ছেন তিনি। মান্নান হীরার রচনায় এই নাটকটির নাম এখনো ঠিক হয়নি। শনিবার (১৬ এপ্রিল) থেকে নাটকটির মহড়া শুরু হবে এবং মে মাসের প্রথম সপ্তাহে নাটকটির প্রদর্শিত হবে। বিভিন্ন নাট্য সংগঠনের নাট্যকর্মীরা এতে অভিনয় করবেন।

এ প্রসঙ্গে নাসির উদ্দীন ইউসুফ বলেন, ‘মূলত তনু হত্যা’সহ ধর্ষণের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ হিসেবে নাটকটি করা হচ্ছে। এই নাটকটি প্রযোজনা করছে বাংলাদেশ পথনাটক পরিষদ। এতে বিভিন্ন নাট্যদলের কর্মীরা অংশ নেবে।’

একনজরে নাসির উদ্দীন ইউসুফ

বাংলাদেশের সাংস্কৃতিক অঙ্গনে নাসির উদ্দীন ইউসুফের পথচলা প্রায় পাঁচ দশক। দেশের সীমানা পেরিয়ে আন্তর্জাতিক অঙ্গনেও ছড়িয়েছেন সাফল্যের আলো। নাসির উদ্দীন ইউসুফ নির্মিত মুক্তিযুদ্ধের চলচ্চিত্র ‘গেরিলা’ কলকাতা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে সেরা চলচ্চিত্রের মর্যাদা অর্জন করে। আর দেশের মাটিতে অর্জন করেছে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার। চলচ্চিত্র নির্মাতা হিসেবে নির্মাণ করেছেন ‘একাত্তরের যীশু’ শিরোনামের আরও একটি প্রামাণ্যচিত্র।

তবে চলচ্চিত্র নির্মাতা নয়, নাট্যমঞ্চের পুরোধা ব্যক্তিত্ব হিসেবেই তিনি বেশি আলোচিত। নাট্যকার সেলিম আল দীন আর নির্দেশক নাসির উদ্দীন ইউসুফ যেন সমার্থক দুটি শব্দ। এই জুটি বদলে দিয়েছেন বাংলাদেশের নাট্যচর্চার গতিধারা। তারা আমাদের দিয়েছেন বাংলা নাটকের শেকড়ের খোঁজ। দেশীয় নাট্য আঙ্গিক নির্মাণে বিভোর স্বপ্ন যুগল নাসিরউদ্দিন ইউসুফ ও সেলিম আল দীন নাটককে গণমানুষের কাছে নিয়ে যাওয়ার জন্য গড়ে তুলেছিলেন গ্রাম থিয়েটার। যার প্রায় আড়াইশ শাখা সারাদেশে ছড়িয়ে-ছিটিয়ে থেকে দেশের প্রান্তিক মানুষের নাট্যচর্চায় ভূমিকা রাখছে।

নাসির উদ্দীন ইউসুফের হাত ধরে আমরা পেয়েছি হুমায়ুন ফরীদি, সুবর্ণা মুস্তাফা, আফজাল হোসেন, রাইসুল ইসলাম আসাদ প্রমুখের মতো অভিনয়শিল্পী। বর্ণাঢ্য জীবনের অধিকারী নাসিরউদ্দিন ইউসুফ পেয়েছেন রাষ্ট্রের সর্বোচ্চ সম্মান একুশে পদক (২০১০)। কিন্তু মুক্তিযুদ্ধে অংশ নেওয়াটাকে জীবনের শ্রেষ্ঠতম কাজ বলে মনে করেন তিনি। এক জীবনের এতসব অর্জনের মধ্যেও তিনি বলেন, ‘আমি একজন মুক্তিযোদ্ধা, দ্বিধাহীন মুক্তিযোদ্ধা।’ মানুষের মুক্তির লড়াইয়ে এখনো সামনের সারিতে থাকেন মুক্তিযোদ্ধা নাসির উদ্দীন ইউসুফ।

ব্যক্তিজীবনে তিনি একজন যোগ্য স্বামী ও বাবা। তার স্ত্রী মঞ্চকুসুম ও সঙ্গীতশিল্পী শিমুল ইউসুফ। একমাত্র সন্তান এষা ইউসুফও একজন সংস্কৃতিকর্মী। আপাদমস্তক এই যোদ্ধা পেশাগত জীবনে একজন উদ্যোক্তা। সেক্ষেত্রেও তিনি একজন সফল মানুষ। আমাদের সাংস্কৃতিক অঙ্গন তার স্পর্শে প্রাণিত হচ্ছে।

(দ্য রিপোর্ট/পিএস/এপি/এইচ/এসআর/এপ্রিল ১৫, ২০১৬)

পাঠকের মতামত:

SMS Alert

জলসা ঘর এর সর্বশেষ খবর

জলসা ঘর - এর সব খবর