thereport24.com
ঢাকা, রবিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৭ আশ্বিন ১৪২৫,  ১২ মহররম ১৪৪০

স্কুল সংস্কারে ২০০ কোটি টাকা, ৩ হাজার শিক্ষক নিয়োগ

২০১৬ জুন ০২ ১৯:২২:৫৯
স্কুল সংস্কারে ২০০ কোটি টাকা, ৩ হাজার শিক্ষক নিয়োগ

দ্য রিপোর্ট প্রতিবেদক : সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রাক-প্রাথমিকের জন্য আরও ৩ হাজার শিক্ষক নিয়োগ দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। একই সঙ্গে আগামী বাজেটে জরাজীর্ণ স্কুল সংস্কারে ২০০ কোটি টাকা বরাদ্দেরও প্রস্তাব করেছেন অর্থমন্ত্রী।

বৃহস্পতিবার জাতীয় সংসদে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত ২০১৬-১৭ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেট বক্তৃতায় এ কথা বলেন। উন্নয়ন ও অনুন্নয়ন মিলে আগামী অর্থবছরের বাজেটের আকার ৩ লাখ ৪০ হাজার ৬০৫ কোটি টাকা।

বাজেটে শিক্ষা এবং প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের জন্য ৪৯ হাজার ১০ কোটি টাকা বরাদ্দের প্রস্তাব করা হয়েছে।

অর্থমন্ত্রী বাজেট বক্তৃতায় বলেন, ‘সব প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রাক-প্রাথমিক শিক্ষা চালু করাসহ কারিকুলাম প্রণয়ন, বই মুদ্রণ এবং প্রায় ৩৫ হাজার শিক্ষক নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। আরও প্রায় ৩ হাজার শিক্ষক নিয়োগ ও তাদের প্রশিক্ষণ দেওয়ার পরিকল্পনা আমাদের রয়েছে।’

প্রাথমিক শিক্ষা অষ্টম শ্রেণিতে উন্নীত করার পরিকল্পনা বাস্তবায়নে সরকার কাজ করছে জানিয়ে অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘এরই মধ্যে ৭৬০টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ষষ্ঠ ও সপ্তম শ্রেণি চালু করা হয়েছে।’

ভর্তির হার বৃদ্ধি ও শিক্ষার্থীদের স্কুলে ধরে রাখার জন্য উপবৃত্তির পাশাপাশি স্কুল ফিডিং কার্যক্রম সম্প্রসারণ এবং এতে সরকারি ও ব্যক্তি খাতকে অন্তর্ভুক্ত করার জন্য জাতীয় স্কুল ফিডিং নীতিমালা প্রণয়ন করা হচ্ছে বলেও জানান মন্ত্রী।

তিনি বলেন, ‘১৫ থেকে ৪৫ বছর বয়সী নিরক্ষর জনগণকে মৌলিক সাক্ষরতা ও জীবনদক্ষতামূলক প্রশিক্ষণ দিতে উপানুষ্ঠানিক শিক্ষা খাতে একটি সেক্টর কর্মসূচি প্রণয়নের পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে।’

বর্তমানে প্রায় ৬৩ হাজার শেণিকক্ষ নির্মাণের প্রয়োজন জানিয়ে মুহিত বলেন, ‘এ ক্ষেত্রে সামর্থ্যের ঘাটতি থাকায় আমাদের কার্যক্রম এখনো সীমিত। তাই বিদ্যালয় নির্মাণকাজে ব্যক্তিখাতে উদ্যোগ বাঞ্ছনীয়।’

জরাজীর্ণ বিদ্যালয় সংস্কারের জন্য ২০১৬-১৭ অর্থবছরের বাজেটে ২০০ কোটি টাকা বরাদ্দের প্রস্তাব করে অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘এজন্য একটি নীতিমালা শিগগিরই প্রণয়ন করা হবে। প্রাথমিক থেকে সব পর্যায়ের অনেক শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান সংস্কারের অভাবে জরাজীর্ণ অবস্থায় রয়েছে। এ ছাড়া শিক্ষা প্রসারের স্বার্থে কোথাও কোথাও কুঁড়েঘর বিদ্যালয় স্থাপন করা হয়েছে।’

শিক্ষা অবকাঠামোর ডিজাইনে প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থীদের বিষয়ে গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে জানিয়ে অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘কারিগরি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনের কাজ প্রক্রিয়াধীন আছে।’

আবুল মাল আবদুল মুহিত বলেন, ‘আগামী বাজেটে বেসরকারি শিক্ষকদের কল্যাণে বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান অবসর সুবিধা বোর্ডের অনুকূলে ৫০০ কোটি টাকার এনডাওমেন্ট ফান্ড এবং ১০০ কোটি টাকা এককালীন অনুদান প্রস্তাব করছি। এ ছাড়া বেসরকারি শিক্ষক কর্মচারীদের কল্যাণ ট্রাস্টের অনুকূলে এককালীন ৫০ কোটি টাকা বরাদ্দেরও প্রস্তাব করছি।’

(দ্য রিপোর্ট/আরএমএম/এএসটি/এম/জুন ০২, ২০১৬)

পাঠকের মতামত:

SMS Alert

জাতীয় এর সর্বশেষ খবর

জাতীয় - এর সব খবর



রে