thereport24.com
ঢাকা, রবিবার, ১৮ নভেম্বর ২০১৮, ৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৫,  ৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪০

বন্যাকবলিত এলাকায় সরকারি নজরদারি জরুরি

২০১৬ জুলাই ২৩ ০৮:৫০:১৮

বৃহত্তর রংপুর ও সিলেট জেলার নিম্নাঞ্চলে বানের পানি ঢুকে পড়েছে। অনেক স্থানেই পানিবন্দি হয়ে পড়েছে মানুষ। কোথাও কোথাও বসতবাড়ির মধ্যে পানি ঢুকে পড়ায় গবাদিপশু নিয়ে বিপাকে পড়েছেন গৃহস্থরা। এ ছাড়া ফসল হানির ঘটনাও ঘটছে। দিন যত যাচ্ছে পরিস্থিতি তত বেশি সংকটাপন্ন হয়ে উঠছে বলে গণমাধ্যম খবর দিয়েছে। তবে পরিস্থিতি গণমাধ্যমের প্রধান খবর হয়ে উঠার পর্যায়ে এখনও পৌঁছায়নি বলে ধরে নেওয়া যায়।

প্রাপ্ত খবরানুযায়ী পাহাড়ি ঢলের কারণে উত্তরাঞ্চলের নদীগুলোতে পানিবৃদ্ধি পেয়ে কোথাও কোথাও তা বিপদসীমার উপর দিয়ে প্রবাহিত হতে শুরু করেছে। তবে এর ফলে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে চরাঞ্চলের মানুষ। সেখানে অনেক স্কুলে পানি উঠায় ছাত্রছাত্রীরা স্কুলে যেতে পারছে না। দিনমজুররা কাজের সুযোগ পাচ্ছে না। রান্নার সমস্যায় অনেকেই ঠিকমতো খাবারের খেতে পারছেন না। তবে এ বিষয়ে সরকারের সংশ্লিষ্ট বিভাগ সচেতন রয়েছে বলে গণমাধ্যমকে জানিয়েছে।

পরিস্থিতির আরও অবনতি ঘটবে কি না—এখনই বলা যাচ্ছে না। তবে দেশে বৃষ্টির পরিমাণ কম থাকায় সে আশঙ্কা কম বলেই মনে হচ্ছে। এটা ঠিক যে নদী তীরবর্তী বাঁধ এবং রাস্তা ঘাট নির্মাণের ফলে এখন দেশের অনেক অঞ্চলে আর বন্যার পানি পৌঁছায় না। তাছাড়া বন্যার সময় সাময়িক আশ্রয় নেওয়ারও সুবিধা হয়েছে। তবে সমস্যা হয়েছে বাঁধের বিপরীত দিকে থাকা মানুষদের, যাদের চরের মানুষ বলা হয়ে থাকে। এবারের বন্যায় মূলত তারাই ক্ষতিগ্রস্ত। যা-ই হোক দেশের অল্প সংখ্যক মানুষের সমস্যাও সমস্যা। আধুনিক সময়ে সেগুলোতেও নজর থাকা জরুরি।

বন্যা পরিস্থিতি মারাত্মক না হলেও বন্যার কারণে স্বাভাবিক কিছু উপসর্গ দেখা দিয়ে থাকে। যেমন বন্যায় পানিবাহিত কিছু রোগ বন্যার পানি নেমে যাওয়ার পর দেখা দেয়। বন্যাকবলিত এলাকায় সরকারের সংশ্লিষ্ট বিভাগের সে বিষয়ে নজর রাখা দরকার।

পাঠকের মতামত:

SMS Alert