thereport24.com
ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৫ নভেম্বর ২০১৮, ৩০ কার্তিক ১৪২৫,  ৬ রবিউল আউয়াল ১৪৪০

বাল্যবিবাহের নারীরা সনাতন মানসিকতার হয়

২০১৬ অক্টোবর ১৬ ১৭:৫৭:৫৪
বাল্যবিবাহের নারীরা সনাতন মানসিকতার হয়

দ্য রিপোর্ট প্রতিবেদক : বিবাহিত নারীদের প্রায় ২৮ শতাংশ মনে করেন সংসার জীবনে কিছু কিছু ক্ষেত্রে স্বামীর দ্বারা শারীরিক নির্যাতন দোষের কিছু না। অবশ্য এসব নরীর প্রায় ৭০ শতাংশই বাল্যবিবাহের শিকার। যারা বাল্যবিবাহের শিকার তারা সনাতন মানসিকতার হন।

রবিবার (১৬ অক্টোবর) রাজধানীর আগারগাঁওয়ে বাংলাদেশ উন্নয়ন গবেষণা প্রতিষ্ঠান (বিআইডিএস) ভবনে এ তথ্য প্রকাশ করা হয়।

বাল্যবিবাহ সামাজিক নেটওয়ার্ক এবং প্রথা রূপান্তর শীর্ষক সেমিনারে বাল্যবিবাহের প্রভাব সম্পর্কে ধারণা দেওয়া হয়। সম্প্রতি বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরো প্রকাশিত একটি জরিপে বলা হয়, দেশে বিবাহিত নারীদের ৮০ শতাংশ নির্যাতনের শিকার।

বিআইডিএসএর মহাপরিচালক ড. এ কে এস মুরশিদের সভাপতিত্বে সেমিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন যৌথভাবে মালয়েশিয়ার ইউনিভার্সিটি অব মালয়ের শিক্ষক নিয়াজ আসাদুল্লাহ এবং যুক্তরাজ্যের ইউনিভার্সিটি অব কেন্টের শিক্ষক ড. জাকী ওয়াহহাজ। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতির অধ্যাপক অতনু রাব্বানি এবং বিআইডিএসের রিসার্চ ফেলো কাজী ইকবাল মূল প্রবন্ধের ওপর আলোচনা করেন।

মূল প্রবন্ধে জাকী ওয়াহ্হাজ বলেন, যেসব মেয়ের তাড়াতাড়ি বিয়ে হয়ে যায় পরবর্তীতে তারাও বাল্যবিবাহের প্রতি ইতিবাচক ধারণা পোষণ করে। এসব মেয়ের সামাজিক যোগাযোগ নেটওয়ার্ক খুব দুর্বল হয় যা প্রগতিশীল চিন্তা ভাবনার প্রতিবন্ধক। জাতীয় পর্যায়ে বাল্যবিবাহের প্রভাবও নেতিবাচক। এর কারণে দেশের মোট মানবসম্পদ সামগ্রিকভাবে ক্ষতির শিকার হয়। নিজেদের করা একটি জরিপের উদ্ধৃতি দিয়ে তিনি বলেন, বাল্যবিবাহের শিকার ৪০ শতাংশ নারী বিশ্বাস করেন- মেয়েদের তুলনায় ছেলেদের স্বাস্থ্যবান হওয়া উচিত এবং এজন্য পুষ্টি সুবিধা ছেলেদের বেশি পাওয়া উচিত। মেয়েদের তুলনায় ছেলেদের স্কুল শিক্ষা বেশি জরুরি বলে মনে করেন ৪৬ শতাংশ নারী। এ ছাড়া এসব নারীর ৮৭ শতাংশ মনে করেন, মায়েরা ঘরের বাইরে কাজ করলে সন্তানরা ক্ষতিগ্রস্ত হয় এবং এজন্য মূলত মায়েরাই দায়ী। আর ৬৫ শতাংশ মনে করেন, অর্থনৈতিক কাজের সঙ্গে যুক্ত থাকলেও মেয়েদের আয় কোনো অবস্থাতেই তাদের স্বামীদের আয়ের চেয়ে বেশি হওয়া উচিত নয়। এতে সংসারে অশান্তি সৃষ্টি হয়।

সভাপতির বক্তব্যে কে এ এস মুরশিদ বলেন, মানব উন্নয়নের অনেক সূচকে বাংলাদেশ উন্নতি করলেও বাল্যবিবাহের ক্ষেত্রে এখনো পিছিয়ে রয়েছে। বাল্যবিবাহের শিকড় ঠিক কোন জায়গায় এবং এর আর্থ-সামাজিক প্রভাব সঠিকভাবে নিরূপণ করতে পারলে এ সমস্যার সমাধান সহজ হবে। এজন্য পর্যাপ্ত গবেষণা প্রয়োজন।

(দ্য রিপোর্ট/জেজে/এপি/এম/অক্টোবর ১৬, ২০১৬)

পাঠকের মতামত:

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

SMS Alert

জাতীয় এর সর্বশেষ খবর

জাতীয় - এর সব খবর