thereport24.com
ঢাকা, বুধবার, ২৮ জুন ২০১৭, ১৪ আষাঢ় ১৪২৪,  ২ অক্টোবর ১৪৩৮
মো. শামীম রিজভী

দ্য রিপোর্ট

প্রথম কোনো কার্যালয়ে ‘জঙ্গি হামলা’, সারাদেশে ‘অধিকতর সতর্কতা’র নির্দেশ

২০১৭ মার্চ ১৮ ০০:১০:২২
প্রথম কোনো কার্যালয়ে ‘জঙ্গি হামলা’, সারাদেশে ‘অধিকতর সতর্কতা’র নির্দেশ

দেশে এই প্রথম আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর কোনো কার্যালয়ে ‘জঙ্গি হামলা’র ঘটনা ঘটেছে। এর আগে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদের ওপর জঙ্গি হামলার ঘটনা ঘটলেও কোনো কার্যালয়ে এ ধরণের ঘটনা এবারই প্রথম। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে রাজধানীসহ সারাদেশের গুরুত্বপূর্ণ স্থান, উপাসনালয়, কারাগার, বিমান ও নৌ-বন্দর এবং বাস ও রেলস্টেশনে বিশেষ সতর্কতার নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

আইন-শৃঙ্খলা সূত্রে জানা যায়, বিভিন্ন সময় আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদের কাছে গ্রেফতার জঙ্গিরা গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি বা সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের ভবনে নাশকতার পরিকল্পনার কথা জানিয়েছিল। সে অনুযায়ী সব সময়ই সতর্ক থেকেছে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী। জঙ্গিদের অনেক নাশকতার পরিকল্পনা ব্যর্থ করে দিতেও সক্ষম হয়েছে তারা। কিন্তু শুক্রবার (১৭ মার্চ) রাজধানীর আশকোনায় হাজি ক্যাম্পসংলগ্ন র‌্যাবের নির্মাণাধীন কার্যালয়ের ভেতরে আত্মঘাতী হামলার ঘটনা ঘটে। এ ঘটনার পর পরই সারাদেশের সকল গুরুত্বপূর্ণ স্থান, থানা, উপাসনালয়, কারাগার, বিমান ও নৌ-বন্দর এবং বাস ও রেলস্টেশনে বিশেষ সতর্কতার নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। দেশের থানাগুলোতে নিরাপত্তা জোরদার করার পাশাপাশি পুলিশ সদস্যদের বুলেটপ্রুফ জ্যাকেট ও হেলমেট পরে থানার গেটে ডিউটি করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে এবং চেকপোস্টে ‘অনগার্ড’ অবস্থায় দায়িত্ব পালন করতে বলা হয়েছে। এ ছাড়াও সারাদেশে গোয়েন্দা নজরদারিও বৃদ্ধি করা হয়েছে।

রাজধানীর আশকোনায় হাজি ক্যাম্পসংলগ্ন র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটেলিয়নের (র‌্যাব) নির্মাণাধীন কার্যালয়ের ভেতরে আত্মঘাতী হামলার ঘটনায় নিহত হামলাকারীর পরিচয় এখনও জানা যায় নি। শুক্রবার (১৭ মার্চ) জুম্মার নামাজের সময় এ আত্মঘাতী হামলার ঘটনা ঘটে। হামলায় দুই র‌্যাব সদস্য আহত হয়েছেন। আত্মঘাতী হামলাকারীর মৃতদেহের পাশ থেকে একটি কালো ট্রাভেল ব্যাগ উদ্ধার করেছে র‌্যাব। হামলাকারীর কাঁধে ওই কালো ব্যাগটি ছিল। ব্যাগের ভেতর যা রয়েছে তা ক্ষতিয়ে দেখছে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা। এ ছাড়াও মরদেহের পাশে একটি বোমা পাওয়া যায়। বোমাটি নিষ্ক্রিয় করে র‌্যাবের বোম্ব ডিসপোজাল ইউনিট।

এ ঘটনার পর দেশের সকল কারাগার ও বিমানবন্দরে বাড়তি সতর্কতা অবলম্বনের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। কারাগারগুলোতে ‘অধিকতর সতর্কতা’র পাশাপাশি হযরত শাহজালাল (র.) আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরসহ দেশের প্রতিটি বিমানবন্দরে নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে। বিমানবন্দরগুলোতে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর অতিরিক্ত সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে। সদরঘাটসহ দেশের সকল নৌ-বন্দরে এবং কমলাপুরসহ দেশের সকল রেলস্টেশন ও বাসস্টেশনগুলোতে বিশেষ সতর্কতার নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

অন্যদিকে, এ ঘটনার পর ঘটনাস্থলের আশপাশের ফুটপাতের সকল দোকান বন্ধ করে দিতে নির্দেশ দিয়েছে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী। এর আশপাশের বেশিরভাগ দোকান হচ্ছে জায়নামাজ, তসবিহ, মেসওয়াক ও টুপির।

কারাগারগুলোতে ‘অধিকতর সতর্কতা’র বার্তা ইতোমধ্যে সিনিয়র জেল সুপার, জেল সুপার, জেলার ও সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের কাছে পাঠানো হয়েছে। সকল কর্মকর্তা ও কারারক্ষীদের সর্বোচ্চ সতর্ক অবস্থায় থাকার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন কারা মহাপরিদর্শক (আইজি প্রিজন) ব্রিগেডিয়ার জেনারেল সৈয়দ ইফতেখার উদ্দীন।

দেশের সকল বিমানবন্দরে অধিকতর সতর্কতা জারির নির্দেশ দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন বেসামরিক বিমান চলাচল ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের জনসংযোগ কর্মকর্তা মাহবুবুর রহমান তুহিন।

হযরত শাহজালাল (র.) আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়নের (এপিবিএন) সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি) তারিক জানিয়েছেন, ইতোমধ্যে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর অতিরিক্ত সদস্য বিমানবন্দরে মোতায়েন করা হয়েছে।

বুধবার থেকে শুরু করে বৃহস্পতিবার পর্যন্ত চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডে ‘জঙ্গি আস্তানায়’ অভিযান ও শুক্রবার রাজধানীর আশকোনায় হাজি ক্যাম্পসংলগ্ন র‌্যাবের নির্মাণাধীন কার্যালয়ের ভেতরে আত্মঘাতী হামলার ঘটনার পর সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের পক্ষ থেকে এ সতর্কতা জারি করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১৬ মার্চ) ভোরে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর অভিযান চলাকালে চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডের কলেজ রোডের ছায়ানীড় নামের একটি বাড়িতে ‘জঙ্গি আস্তানায়’ আত্মঘাতী বোমা বিস্ফোরণে এক নারীসহ চার জঙ্গি ও এক শিশু নিহত হয়। এ সময় দুই সোয়াত সদস্যসহ ৪ পুলিশ সদস্য আহত হন।

শুক্রবার নির্মাণাধীন কার্যালয়ের ভেতরে আত্মঘাতী হামলার ঘটনা প্রসঙ্গে র‌্যাবের লিগ্যাল অ্যান্ড মিডিয়া উইংয়ের পরিচালক কমান্ডার মুফতি মাহমুদ খান বলেছেন, ‘হামলাকারী কোনো দলের বা কোনো গোষ্ঠীর তা এখনই বলা সম্ভব নয়। বিস্ফোরকের ধরন দেখে ধারণা করা হচ্ছে, হামলাকারী কোনো জঙ্গিগোষ্ঠীর সদস্য। তবে বাংলাদেশে আইএসের কোনো অস্তিত্ব নেই। শুক্রবার আত্মঘাতী হামলার তদন্তে এ পর্যন্ত আইএসের কোনো সংশ্লিষ্টতা পাওয়া যায়নি। এখন ক্যাম্পের নিরাপত্তাকেই বেশি গুরুত্ব দিয়ে দেখা হচ্ছে। যেহেতু বিস্ফোরণ ঘটেছে, সেহেতু আর কোনো বিস্ফোরক আছে কিনা, বোম্ব ডিসপোজাল ইউনিট সেটি পরীক্ষা করে দেখছে। কারণ এখানে যারা কাজ করবেন, তাদের নিরাপত্তার বিষয়টি নিশ্চিত করতে হবে। আমরা নিশ্চিত করতে চাই, এখানে আর কোনো বিস্ফোরক নেই। বাকি বিষয়গুলো এই মুহূর্তে বলা সম্ভব নয়।’

তিনি আরও বলেছেন, ‘আমাদের ডান পাশের যে বাউন্ডারি রয়েছে, সেখানে হাজী ক্যাম্প ও স্থাপনার মাঝখান দিয়ে রাস্তা গেছে। গ্রিল ও ওয়ালের সমন্বয়ে গঠিত এই বাউন্ডারি। এখানে যারা থাকেন, বাউন্ডারি সংলগ্ন জায়গায় তাদের জন্য কাপড় ধোয়া ও গোসলের ব্যবস্থা করা আছে। আনুমানিক দুপুর ১টার দিকে বাউন্ডারি ওয়ালের নিচ দিয়ে একজন প্রবেশ করেন। অপরিচিত ব্যক্তি হওয়ায় তাকে চ্যালেঞ্জ করা হয় যে সে কোথায় যাচ্ছে। চ্যালেঞ্জ করার পরিপ্রেক্ষিতেই সে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে এবং সঙ্গে সঙ্গে একটা বিস্ফোরণ হয়। তার সঙ্গে যে বোমা ছিল সেই বোমার বিস্ফোরণে ঘটনাস্থলেই হামলাকারীর মৃত্যু হয়। যে দুজন র‌্যাব সদস্য ওই ব্যক্তিকে চ্যালেঞ্জ করেছিলেন, তারা বোমার বিস্ফোরণে কিছুটা আহত হয়েছেন। তাৎক্ষণিকভাবে তাদের সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে। তাদের অবস্থা আশঙ্কামুক্ত এবং তারা এখন মোটামুটি সুস্থ।’

ঘটনাস্থলে বিকাল সাড়ে ৪ টার দিকে সিআইডি’র ক্রাইম সিন ইউনিট প্রবেশ করে। তারা আলামত সংগ্রহ করার পর সন্ধ্যা সাড়ে ৬ টার দিকে নিহত জঙ্গির সুরাতহাল প্রতিবেদন তৈরি করেন বিমানবন্দর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) এজাজ শফী। সন্ধ্যার পর ঘটনাস্থল পরিদর্শনে আসেন পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) এ কে এম শহীদুল হক ও ‌র‌্যাবের মহাপরিচালক বেনজীর আহমেদ। তবে এ সময় তারা সাংবাদিকদের সঙ্গে কোনো কথা বলেননি।

এর আগে, গাবতলী ও আশুলিয়ায় পুলিশ সদস্যদের উপর জঙ্গি হামলার ঘটনা ঘটে। ২০১৫ সালের ২২ অক্টোবর গাবতলীর দারুসসালাম থানাধীন পর্বত সিনেমা হলের সামনে চেকপোস্টে দুর্বৃত্তদের ছুরিকাঘাতে নিহত হন পুলিশের সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) ইব্রাহিম মোল্লা। দায়ের করা মামলা (মামলা নং ৬০) মহানগর ডিবি পুলিশে হস্তান্তর করা হয়। ঘটনা তদন্তে অতিরিক্ত কমিশনার (ক্রাইম) শেখ মোহাম্মদ মারুফ হাসানকে প্রধান করে ৫ সদস্য বিশিষ্ট একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। এ ঘটনায় প্রথমে বিএনপি-জামায়াতের দিকে ইঙ্গিত করা হলেও ৬ জনকে গ্রেফতারের পর রিমান্ডে জিজ্ঞাসাবাদের পর জানা যায় জঙ্গি সংগঠনের সংশ্লিষ্টতা। নিহত এএসআই ইব্রাহিম মোল্লার বাড়ি বাগেরহাট জেলার কচুয়া থানার সোনারকুলি ইউনিয়নের পালপাড়া গ্রামে।

একই বছর ৪ নভেম্বর সকালে ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কে আশুলিয়ার বাড়ৈপাড়া এলাকায় নন্দন পার্কের ঠিক উল্টো পাশে চেকপোস্টে প্রস্তুতিকালে দুর্বৃত্তদের চাপাতি কোপে নিহত হন কনস্টেবল মুকুল হোসেন (২৪)। এ সময় কুপিয়ে হত্যা চেষ্টা করা হয় আরেক কনস্টেবল নুরে আলমকেও। ঘটনার ১০ গজ দূরে পুলিশের আরও ৩ সদস্য অস্ত্র নিয়ে থাকলেও এগিয়ে এসে সহকর্মীকে রক্ষা না করে উল্টো পিছনে শালবন দিকে দৌড়ে পালিয়ে যায়।

১০ নভেম্বর ঢাকা সেনানিবাসের প্রবেশমুখে চেকপোস্টে দায়িত্বপালনকারী মিলিটারি পুলিশের সদস্য ল্যান্স কর্পোরাল সামিদুল ইসলামকে ধারালো অস্ত্রের আঘাতে কুপিয়ে জখম করে এক দুর্বৃত্ত। এ ঘটনায় হামলাকারী জামিরুল ইসলাম মানিককে আটক করে। আহত মিলিটারি পুলিশ সদস্য সামিদুলকে সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

(দ্য রিপোর্ট/এমএসআর/জেডটি/এনআই/মার্চ ১৭, ২০১৭)

পাঠকের মতামত:

SMS Alert

বিশেষ সংবাদ এর সর্বশেষ খবর

বিশেষ সংবাদ - এর সব খবর



রে