thereport24.com
ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২২ জুন ২০১৭, ৮ আষাঢ় ১৪২৪,  ২৬ রমজান ১৪৩৮

কথাসাহিত্যিক জুবাইদা গুলশান আরা আর নেই

২০১৭ মার্চ ১৯ ২২:০৮:০১
কথাসাহিত্যিক জুবাইদা গুলশান আরা আর নেই

দ্য রিপোর্ট প্রতিবেদক : কথাসাহিত্যিক জুবাইদা গুলশান আরা আর নেই। রবিবার (১৯ মার্চ) বেলা আড়াইটায় সিদ্ধেশ্বরীর একটি বেসরকারি হাসপাতালে তিনি ইন্তেকাল করেছেন (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাহি রাজিউন)। তার বয়স হয়েছিল ৭৫ বছর। দীর্ঘদিন ধরে বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হয়ে তিনি শয্যাশায়ী ছিলেন।

জুবাইদা গুলশান আরা তার সাহিত্যকর্মের জন্য একুশে পদক লাভ করেন। উপন্যাস, ছোটগল্প, নাটক, শিশুতোষ ছড়া মিলিয়ে তার প্রকাশিত বইয়ের সংখ্যা ৫০-এর উপরে। তার বেশ কিছু গল্প উপন্যাস টিভি নাটকে রূপ দেওয়া হয়েছে। ষাটের দশক থেকে লেখালেখিতে যুক্ত জুবাইদা গুলশান আরা কবি জসীম উদ্দীন পদকসহ আরো বিভিন্ন পদকে ভূষিত হন। পেশাগত জীবনে তিনি সরকারি কলেজ থেকে বাংলার অধ্যাপক হিসেবে অবসর নেওয়ার পর দীর্ঘদিন বাংলাদেশ শিশু একাডেমির চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন করেছেন।

তিনি ১৯৪২ সালে খুলনায় জন্মগ্রহণ করেন। তার পিতার নাম মো : ইউনুস, মায়ের নাম আঞ্জুমান আরা।

তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় বাংলা বিভাগ থেকে এমএ পাস করেন। তার স্বামী অধ্যাপক মাহমুদ-উল-আমীন (প্রয়াত) ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের জীববিদ্যা বিভাগের প্রফেসর ছিলেন।

জুবাইদা গুলশান আরা বেশকিছু উপন্যাস ও ছোটগল্পের জন্য বিখ্যাত ছিলেন। শিশুদের জন্য তিনি প্রচুর ছড়া-কবিতা লিখেছেন। তার উপন্যাস ও ছোটগল্পের মধ্যে রয়েছে- বসতি, আলোটুকুর হাতছানি, নদী তুই কোন ঘাটে যাবি, মধ্যরাতের তারা, সাগর সেচার স্বাদ, তখনো ঘুম ভাঙেনি, ভোরের হিরন্ময়, আঁধারে নক্ষত্র জ্বলে, অগ্নিস্নান, কায়াহীন কারাগার, বাতাসে বারুদ রক্ত নিরুদ্ধ উল্লাস, হৃদয়ে বসতি, বিষাদনগরে যাত্রা, দাওদানবের মালিকানা, প্রমিথিউসের আগুন, ঘৃণার জঠরে জন্ম, উষারাগ, অশ্রু নদীর ওপারে, কি লিখেছ তরবারি তুমি, পদ্মা আমার পদ্মা, হৃদয়ে নীল নাম, চৈতী তোমার ভালোবাসা, বিবর্ণ নগরী, মন্দাকিনী, উপন্যাস- নদী, ভালোবাসার স্বভাব এমন, সোনালী রংয়ের নদী প্রভৃতি।

ছোটদের জন্য রচিত ছড়া কবিতা নিয়ে তার প্রকাশিত বইয়ের মধ্যে রয়েছে মজার ছড়া, ছানাপোনাদের ছড়া, কলকাকলির গান, নিঝুম দ্বীপের গল্প কথা, ঘুম ভাঙানো নদী, গল্প তবু গল্প নয়, রূপমের ছিরা খানা, তোমাদের জন্য গল্প, পরিচয় হোক বন্ধুর সাথে, শিশু তোর খেলার সাথী, ছোটদের নাটক মেলা প্রভৃতি।

তিনি বাংলাদেশ লেখিকা সংঘের ভাইস চেয়ারম্যান ছিলেন। জাতীয় মহিলা সংস্থা, এশিয়াটিক সোসাইটি, বাংলা একাডেমি, পেন বাংলাদেশ, ঢাকা লেডিস ক্লাব, বাংলাদেশ মহিলা সমিতি প্রভৃতি সংস্থার সদস্য ছিলেন। সাহিত্য, সমাজ ও নারী বিষয়ক বিভিন্ন সংগঠনের সাথে জড়িত থেকে তিনি নারীদের অগ্রগতি এবং নারী জগরণের পক্ষে কাজ করেছেন।

(দ্য রিপোর্ট/এপি/এনআই/মার্চ ১৯, ২০১৭)

পাঠকের মতামত:

SMS Alert

জাতীয় এর সর্বশেষ খবর

জাতীয় - এর সব খবর



রে