thereport24.com
ঢাকা, মঙ্গলবার, ২২ আগস্ট ২০১৭, ৭ ভাদ্র ১৪২৪,  ২৮ নভেম্বর ১৪৩৮

মিরুর শটগানের ‘লেড বলের’ সঙ্গে শিমুলের মাথার গুলির মিল

২০১৭ মার্চ ২০ ১৭:৫৯:০৫
মিরুর শটগানের ‘লেড বলের’ সঙ্গে শিমুলের মাথার গুলির মিল

সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি : সাংবাদিক আব্দুল হাকিম শিমুলের মাথায় বিদ্ধ গুলির সঙ্গে সিরাজগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের বহিষ্কৃত সাংগঠনিক সম্পাদক শাহজাদপুর পৌর মেয়র হালিমুল হক মিরুর শটগানের গুলির মিল পাওয়া গেছে। ব্যালাস্টিক পরীক্ষায় এ মিল খুঁজে পেয়েছে সিআইডি।

সিআইডি’র ব্যালাস্টিক পরীক্ষা বিভাগের এ সংক্রান্ত একটি প্রতিবেদন শাহজাদপুর আমলি আদালতে জমা দেওয়া হয়েছে।

রিপোর্টে উল্লেখ করা হয়েছে, মিরুর শটগানের গুলির সঙ্গে সাংবাদিক শিমুলের ময়নাতদন্তে পাওয়া গুলির স্প্লিন্টারের মিল পাওয়া গেছে।

শিমুল হত্যা মামলার রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী অ্যাডভোকেট আবুল কাশেম মিয়া এ তথ্য নিশ্চিত করে জানান, সাংবাদিক শিমুলের ময়নাতদন্তকারী চিকিৎসক দল তার মাথার ভেতর থেকে একটি গুলি (০.০৫ গ্রাম ওজনের সিসার বল) উদ্ধার করেন। তবে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা শাহজাদপুর থানার ইন্সপেক্টর (তদন্ত) মনিরুল ইসলাম জানান, বিষয়টি মৌখিকভাবে জেনেছি। রিপোর্টটি এখনও হাতে পাইনি। তাই পুরোপুরি নিশ্চিত না হয়ে এ ব্যাপারে মন্তব্য করতে পারছি না।

শিমুলের মাথায় বিদ্ধ গুলিটি মেয়র মিরুর শটগানের গুলি কি না, তা নিশ্চিত করতে গত ৮ ফেব্রুয়ারি ঢাকার সিআইডি’তে ব্যালাস্টিক পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা মনিরুল ইসলাম শাহজাদপুর আমলী আদালতের মাধ্যমে পৌর মেয়র মিরুর কাছ থেকে জব্দ করা তার লাইসেন্সকৃত বারো বোরের একটি শটগান, ৪টি গুলি, ময়নাতদন্তে নিহত শিমুলের মাথার ভেতর থেকে পাওয়া একটি স্প্লিন্টার (সিসার বল) ও একটি গুলির খোসা ঢাকার সিআইডি’তে ব্যালাস্টিক পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়।

উল্লেখ্য, গত ২ ফেব্রুয়ারি শাহজাদপুরে আওয়ামী লীগের দু'পক্ষে সংঘর্ষের খবর সংগ্রহ করতে গিয়ে গুলিবিদ্ধ হন সমকালের শাহজাদপুর প্রতিনিধি আবদুল হাকিম শিমুল। পরদিন দুপুরে ঢাকায় আনার পথে তিনি মারা যান। সংঘর্ষের সময় মেয়রের বাড়ির উল্টোদিক থেকে ধারণ করা একটি ভিডিও ক্লিপ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে। পরদিন তা গণমাধ্যমেও প্রকাশিত হয়; যাতে মেয়র মিরুকে শটগান হাতে দেখা যায়।

এ ঘটনায় শিমুলের স্ত্রী নুরুন্নাহার বেগম শাহজাদপুর থানায় হত্যা মামলা করেন। এতে মেয়র হালিমুল হক মিরু, তার দুই ভাইসহ ১২ জনের নাম উল্লেখ করে ১৫ জনকে আসামি করা হয়। শিমুল হত্যা মামলার প্রধান আসামি মেয়র মিরু ও তার ভাই হাবিবুল হক মিন্টুসহ ১৪ জনকে এরই মধ্যে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। এদের মধ্যে মিরু ও মিন্টুকে দু’দফায় পৃথক সাতদিন করে রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করেছে পুলিশ।

(দ্য ‍রিপোর্ট/এমকে/এপি/মার্চ ২০, ২০১৭)

পাঠকের মতামত:

SMS Alert

জেলার খবর এর সর্বশেষ খবর

জেলার খবর - এর সব খবর



রে