thereport24.com
ঢাকা, সোমবার, ১১ ডিসেম্বর ২০১৭, ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৪,  ২২ রবিউল আউয়াল ১৪৩৯

অমিত গোস্বামীর তিনটি কবিতা

২০১৭ নভেম্বর ২৫ ০৪:২২:৩৮
অমিত গোস্বামীর তিনটি কবিতা

প্রকৃতঠিকানা

[উৎসর্গ: বাংলাদেশকে]

হয়ত বা কোনদিন থেকে যাব তোমাদের দেশে,
ফিরিয়ে দেবে না কেউ, বলবে না - চলে যাও
তুমি,
দেশের আবহ ছুঁয়ে বলা যাবে সমান শ্রদ্ধায়
এ আমারও। দিগন্ত জুড়ে ডাক দেবে পিতৃভূমি।

কাছে আসি প্রতিদিন, ফেরার আহ্বান কানে
আসে,
আমার শিকড় ছোঁয় মাটি, বেজে ওঠে সুর
অজানা,
পলিভাঙা পদ্মায় পার হবে ডিঙি খুশিমতো
ঘোলাজলে খুঁজে নেবে হৃদয়ের তাপ, প্ররোচনা।

দৃশ্য নয়, শব্দের বন্ধনে আমি বর্ণমালা বাঁধি,
শুন্যতার সাথে জমা হয় দূরদেশ, সন্ন্যাসী কোন,
মা'য়ের কন্ঠে গান, ভেসে আসে ভোরের আজান
বুকের পাঁজরে আঁকা দেশ মুছে যায় আদৌ
কখনো!

নিবিড় আকাশ জুড়ে পুড়ে যায় পরিযায়ী
ডানা,
একদিন, জানি পাবো আমাদের প্রকৃত ঠিকানা।



নিয়ন্ত্রণ

কেন যে ধ্বংসের চিহ্ন আঁকা হয় দূরের শহরে!
দীর্ঘ শূন্যতার ভিড়ে ফুটে ওঠে বোমা,
ভাঙা দেহ,
গাঢ় ক্ষয় রেখে যায় ছাই, স্রোত, কুটিল সন্দেহ।

কুহকের মন্ত্র নিয়ে যারা ডাকে - সাম্পান চালাও
দ্রুত যাও, আমাদেরও পেতে হবে মহানির্বাণ।
ইতিহাস নিভে যায়, নিভে যায় স্বর, একে একে।
মৃত মাটি ও বিদ্বেষ... দিতে পারে শুদ্ধতম
ত্রাণ?

রাতের যে আলো জ্বলে দিগন্তে, মিনারে,
মাটিদেশে
ডেকে আনে স্বেচ্ছাদাহ,দ্বেষ, মরণের গুঢ় স্পন্দন
অনড় ঈর্ষায় তারা খোঁজে দেবতাদের
জন্মনিয়ন্ত্রণ।



ভালবাসা এখনো....

তোমাকে সান্ত্বনা দেব, আমার সে শব্দ জানা
নেই,
অশ্রু বড় আন্তরিক,
স্পর্শ করি নি, যত দোষ, জানি তুমি দেবে
আমাকেই।

একবার ফিরিয়ে চোখ, দেখো, শুধু প্রজ্ঞাশূন্য
মন,
কেন যে বোঝো না তুমি!
কোন কারাগারে আমি অন্তরীণ হয়ে আছি
এতক্ষন।

আমি যে একাই জ্বলি কী করুণ বিষের জ্বালায়,
কিছু কথা বাকি ছিল,
তবু আমি ফিরে যাবো লালবাগে, পুরোনো
ঢাকায়।

বৃষ্টি নেমেছে। নয়? পৃথিবী কি জাল দিয়ে ঘেরা?
শহর কি বলেছিল
তুমি মেঘ হলে আশঙ্কা মুছে দেবে বৃষ্টি ফড়েরা?
আলো কাঁপে, হৃদয়ে রেখেছি হাত কোন ঈশ্বরীর,
সব ভুলে বলে ফেলি ভালবাসা এখনো গভীর।

পাঠকের মতামত:

SMS Alert

সাহিত্য এর সর্বশেষ খবর

সাহিত্য - এর সব খবর



রে