thereport24.com
ঢাকা, শনিবার, ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১১ ফাল্গুন ১৪২৫,  ১৭ জমাদিউস সানি ১৪৪০

মেয়র নির্বাচন থেকে সরে গেলেন ববি হাজ্জাজ

২০১৯ ফেব্রুয়ারি ১০ ১১:১০:০৭
মেয়র নির্বাচন থেকে সরে গেলেন ববি হাজ্জাজ

দ্য রিপোর্ট প্রতিবেদক: ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনে মেয়র পদের উপনির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ানোর ঘোষণা দিয়েছেন ন্যাশনালিস্ট ডেমোক্রেটিক মুভমেন্টের (এনডিএম) চেয়ারম্যান ববি হাজ্জাজ। এছাড়া, কাউন্সিলর পদে থেকে সরে দাঁড়িয়েছেন আরও ৬৮ জন প্রার্থী।

শনিবার তিনি মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেছেন বলে জানিয়েছেন রিটার্নিং কর্মকর্তা আবুল কাশেম। ববি হাজ্জাজ সরে যাওয়ার পর এখন মেয়র পদে ভোটের জন্য লড়াইয়ে থাকলেন পাঁচজন।

এদের মধ্যে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হয়েছেন তৈরি পোশাক ব্যবসায়ী আতিকুল ইসলাম। অন্য মেয়র প্রার্থীরা হলেন- জাতীয় পার্টির শাফিন আহমেদ, পিডিপির শাহীন খান, এনপিপির আনিসুর রহমান দেওয়ান ও স্বতন্ত্র মোহাম্মদ আব্দুর রহিম। বিএনপি এই নির্বাচনে অংশ নিচ্ছে না।

ঢাকা উত্তর সিটির ২০টি সাধারণ ওয়ার্ডে ৪০জন ও সংরক্ষিত ৬টি ওয়ার্ডে ১জন এবং ঢাকা দক্ষিণ সিটির ১৮টি ওয়ার্ডে ২৬জন ও সংরক্ষিত ৬টি ওয়ার্ডে ১জন প্রার্থীতা প্রত্যাহার করেছেন।

এছাড়া বিতর্কিত ব্যবসায়ী মুসা বিন শমশেরের বড় ছেলে ববি হাজ্জাজও জাতীয় পার্টিতে ছিলেন। ২০১৫ সালে ঢাকা সিটির নির্বাচনের সময় জাতীয় পার্টি প্রার্থী ঠিক করার পর তার বিপরীতে মেয়র পদে প্রার্থিতা ঘোষণা করায় তাকে বিশেষ উপদেষ্টার দায়িত্ব থেকে বাদ দেন এইচ এম এরশাদ।

একাদশ সংসদ নির্বাচন সামনে রেখে ২০১৭ সালের এপ্রিলে ববি হাজ্জাজ নতুন দল ন্যাশনালিস্ট ডেমোক্রেটিক মুভমেন্ট (এনডিএম) গঠনের ঘোষণা দেন। গত ৩০ জানুয়ারি নির্বাচন কমিশনের নিবন্ধন পেয়েছে এই দল।

তাছাড়া আনিসুল হকের মৃত্যুর পর গত বছর এই উপনির্বাচনের প্রক্রিয়া শুরু হলে ববি হাজ্জাজের দল এনডিএম থেকে প্রার্থী হওয়ার ঘোষণা দিয়েছিলেন ব্যান্ড শিল্পী শাফিন। আদালতের আদেশে সে সময় নির্বাচন আটকে যায়। এবার জাতীয় পার্টির হয়ে মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার পর বাছাইয়ে ঋণ খেলাপের কারণে তা বাতিল হলেও পরে প্রার্থিতা আবার ফিরে পান তিনি।

মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের কারণ জানতে চাইলে ববি হাজ্জাজ গণমাধ্যমকে বলেন, আমাদের দল ন্যাশনাল ডেমোক্রেটিক মুভমেন্ট এখন নিবন্ধিত দল। নিবন্ধন পাওয়ার আগেই আমি মনোনয়নপত্র কিনেছিলাম। তবে দলের সিদ্ধান্তে আমি মেয়র নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়াচ্ছি।

(দ্য রিপোর্ট/এমএসআর/ফেব্রুয়ারি ১০, ২০১৯)

পাঠকের মতামত:

SMS Alert

রাজনীতি এর সর্বশেষ খবর

রাজনীতি - এর সব খবর