thereport24.com
ঢাকা, শুক্রবার, ২৪ মে ২০১৯, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬,  ১৮ রমজান ১৪৪০

গর্ভপাত নিষিদ্ধের প্রতিবাদে ‘সেক্স স্ট্রাইক'

২০১৯ মে ১৩ ২৩:০২:৪৮
গর্ভপাত নিষিদ্ধের প্রতিবাদে ‘সেক্স স্ট্রাইক'

দ্য রিপোর্ট ডেস্ক: যুক্তরাষ্ট্রের জর্জিয়া অঙ্গরাজ্যের গর্ভপাত নিষিদ্ধ করা আইন বাতিলের দাবিতে অভিনব এক প্রতিবাদের ডাক দিয়েছেন অভিনেত্রী ও মি টু আন্দোলনের নেত্রী অ্যালিসা মিলানো৷ আন্দোলনের নাম দিয়েছেন ‘সেক্স স্ট্রাইক' বা যৌন ধর্মঘট৷

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের জর্জিয়া অঙ্গরাজ্যে গর্ভপাত নিষিদ্ধ আইন বাতিলের আগ পর্যন্ত পুরুষদের সাথে যৌন সম্পর্ক থেকে বিরত থাকার জন্য নারীদের প্রতি আহবান জানিয়েছেন অ্যালিসা মিলানো৷ শুক্রবার টুইটারে এই সেক্স স্ট্রাইক বা যৌন ধর্মঘটের ডাক দেন মি টু আন্দোলনের নেত্রী৷খবর ডয়চে ভেলের।

অ্যালিসা টুইটে লিখেছেন, ‘‘আমাদের প্রজনন অধিকার ধ্বংস করে দেয়া হচ্ছে৷ যতক্ষণ নারীরা তাঁদের শরীরের উপর নিয়ন্ত্রণ ফিরে না পায়, ততক্ষণ আমরা গর্ভধারণের ঝুঁকি নিতে পারি না৷ আমার সাথে যোগ দিন, শরীরের উপর নিজেদের স্বাধীনতা ফিরে না পাওয়া পর্যন্ত আমরা যৌন সম্পর্কে জড়াবো না৷ আমি সেক্স স্ট্রাইকের ডাক দিচ্ছি৷ ছড়িয়ে দিন এটি৷''

এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত তাঁর টুইটটিতে প্রায় ৪৫ হাজার লাইক পড়েছে, রিটুইট হয়েছে প্রায় ১৫ হাজার বার৷

এদিকে গর্ভপাত নিষিদ্ধের নতুন আইন কার্যকর করা হলে জর্জিয়ায় কোনো ধরনের কাজে অংশ না নেয়ার হুমকি দিয়ে রেখেছেন অরো অনেক চলচ্চিত্র তারকা৷ মিলানোর নেতৃত্বে এই দলে আছেন অ্যালেক বালডউইন, ডন চিয়াডল, বেন স্টিলার, মিয়া ফারো ও অ্যামি শুমার৷

সেখানকার নতুন আইন অনুযায়ী ভ্রুণে হৃদস্পন্দন এলে গর্ভপাত করানো যাবে না৷ হৃদস্পন্দন সাধারণত গর্ভধারণের ছয় সপ্তাহের মধ্যে আসে৷ গত মঙ্গলবার অঙ্গরাজ্যটির গভর্নর ব্রায়ান ক্যাম্প এই আইনে স্বাক্ষর করেন৷

‘সেক্স স্ট্রাইক' কী

মিলানো তাঁর নতুন কর্মসূচীর বিষয়ে বার্তা সংস্থা এপিকে বলেন, ‘‘আমাদের বুঝতে হবে, পুরো দেশজুড়ে পরিস্থিতি কতটা খারাপ হয়েছে৷ এটি আসলে মানুষকে মনে করিয়ে দেয়ার জন্য যে, আমাদের শরীর এবং সেটি আমরা কীভাবে ব্যবহার করব সে বিষয়ে আমাদের নিজেদের নিয়ন্ত্রণ আছে৷'' তবে প্রতিবাদ কিংবা রাজনৈতিক সংস্কারের দাবিতে যৌন সম্পর্ক স্থগিত করার বিষয়টি ইতিহাসে এবারই প্রথম নয় বলেও জানান তিনি৷ ১৬০০ সালে অনিয়ন্ত্রিত যুদ্ধ ঠেকাতে উত্তর অ্যামেরিকার আদিবাসীদের জোট ইরোকুয়োইস-এরনারীরা যৌন সম্পর্ক স্থাপনে অস্বীকৃতি জানান৷ এছাড়া ২০০৩ সালে লাইবেরিয়ার নারীরা দীর্ঘ সময় ধরে চলা গৃহযুদ্ধ বন্ধেও ‘যৌন ধর্মঘট' করেছেন বলে জানিয়েছেন মিলানো৷

চলচ্চিত্র ও টিভি প্রতিষ্ঠানগুলোর জর্জিয়া বর্জন

বেশ কয়েকটি চলচ্চিত্র, টেলিভিশন অনুষ্ঠান নির্মাণকারী প্রতিষ্ঠান এই আইন বাতিলের আগ পর্যন্ত জর্জিয়া অঙ্গরাজ্য বয়কটের ঘোষণা দিয়েছে৷ তাঁদের মধ্যে রয়েছেন এইচবিও-র দ্য ওয়্যার এর মতো সিরিজের নির্মাতা ডেভিড সিমন, কিলার ফিল্মসের প্রধান নির্বাহী ক্রিস্টিন ভ্যাখোন, অভিনেতা ও নির্মাতা মার্ক ডুপ্ল্যাস৷

দীর্ঘদিন ধরেই জর্জিয়া যুক্তরাষ্ট্রের চলচ্চিত্র ও টিভি সিরিজ নির্মাতাদের কাছে শুটিংয়ের জন্য আকর্ষণীয় জায়গা৷ লস এঞ্জেলেসের তুলনায় সেখানে খরচ কম, আছে দৃশ্য ধারণের জন্য বৈচিত্র্যপূর্ণ প্রকৃতি৷ সেই সঙ্গে ২০০৮ সাল থেকে ৩০ ভাগ পর্যন্ত কর ছাড়ের ব্যবস্থাও চালু হয়েছে৷

মার্ভেলস-এর ব্ল্যাক প্যানথার, অ্যভেঞ্জার্স: ইনফিনিটি ওয়ার-এর মতো চলচ্চিত্র, সেই সঙ্গে স্ট্রেঞ্জার থিংস, ওজার্ক, দ্য ওয়াকিং ডেড-এর মতো টিভি সিরিজগুলো জর্জিয়াতেই ধারণ করা৷ গত বছর মোট ৪৫০ টি চলচ্চিত্র ও টিভি সিরিজের কাজ হয়েছে সেখানে৷ এর পেছনে নির্মাতা প্রতিষ্ঠানগুলো খরচ করেছে ২৭০ কোটি ডলার৷ দেশটির চিত্রনাট্যকারদের সংগঠন ‘দ্য রাইটার্স গিল্ড অফ অ্যামেরিকা'-র পক্ষ থেকে আইনটির প্রতিবাদ জানিয়ে বলা হয়েছে, এর মাধ্যমে জর্জিয়া চলচ্চিত্র ও টেলিভিশন শিল্পের সাথে জড়িতদের জন্য একটি অনাকাঙ্খিত জায়গায় পরিণত হয়েছে৷
(দ্য রিপোর্ট/একেএমএম/ মে ১৩,২০১৯)

পাঠকের মতামত:

SMS Alert

জলসা ঘর এর সর্বশেষ খবর

জলসা ঘর - এর সব খবর