thereport24.com
ঢাকা, শুক্রবার, ২২ নভেম্বর ২০১৯, ৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৬,  ২৩ রবিউল আউয়াল 1441

ইসরাইলের নির্বাচনের পরই ট্রাম্পের 'মধ্যপ্রাচ্য শান্তি পরিকল্পনা' প্রকাশ

২০১৯ আগস্ট ১৯ ১২:০৪:১০
ইসরাইলের নির্বাচনের পরই ট্রাম্পের 'মধ্যপ্রাচ্য শান্তি পরিকল্পনা' প্রকাশ

দ্য রিপোর্ট ডেস্ক: মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের কথিত শতাব্দীর সেরা মধ্যপ্রাচ্য শান্তি পরিকল্পনা ইসরাইলের নির্বাচনের পরই প্রকাশ করা হবে।

হোয়াইট হাউসে রোববার এক বক্তব্যে ট্রাম্প বলেন, আগামী ১৭ সেপ্টেম্বর ইসরাইলের সংসদ নির্বাচনের পরই বহুল আলোচিত ওই শান্তি পরিকল্পনা প্রকাশ করা হবে। খবর রয়টার্সের।

হোয়াইট হাউসের সিনিয়ার অ্যাডভাইজার ও ট্রাম্পের জামাতা ইহুদি বংশোদ্ভূত জ্যারেট কুশনার এ শান্তি পরিকল্পনার নীলনকশা এঁকেছেন।

এতে ফিলিস্তিনিদের স্বাধীনতার বিনিময়ে ৫০ বিলিয়ন (৫ হাজার কোটি) ডলারের আর্থিক সহায়তার টোপ দেয়া হয়েছে। এ অর্থ ফিলিস্তিন, জর্ডান, মিসর ও লেবাননের উন্নয়নে ব্যয় করা হবে।

মধ্যপ্রাচ্যে ট্রাম্পের কথিত শান্তি পরিকল্পনায় ইসরাইলের সম্মতি থাকলেও তা প্রত্যাখ্যান করেছেন ফিলিস্তিনিরা।

এ পরিকল্পনা প্রণয়নে নেতৃত্ব দিচ্ছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের জামাতা ও উপদেষ্টা জ্যারেড কুশনার। ফিলিস্তিনিদের জন্য একে ‘শতাব্দীর সেরা সুযোগ’ হিসেবে আখ্যা দিয়েছেন তিনি।

তবে নতুন এ অর্থনৈতিক পরিকল্পনা প্রত্যাখ্যান করেছে ফিলিস্তিন। তারা বলেছেন, সব পক্ষের সঙ্গে আলোচনা করে কেবল রাজনৈতিক উপায়েই সংকট সমাধান সম্ভব।

একতরফাভাবে প্রণয়ন করা ওই পরিকল্পনার বিরুদ্ধে জর্ডানে বিক্ষোভে নামেন দেশটিতে বসবাসরত ফিলিস্তিনের নাগরিকরা।

জর্ডানের সাধারণ মানুষও এতে যোগ দেন। তারা যুক্তরাষ্ট্রের শান্তি পরিকল্পনার বিরুদ্ধে স্লোগান দেন।

শুধু জর্ডানে নয়, মধ্যপ্রাচ্যের অনেক দেশেই এর বিরুদ্ধে বিক্ষোভ হয়েছে।

কুশনার বলেন, আমাদের পরিকল্পনা অনুযায়ী ৫০ বিলিয়ন ডলার বিনিয়োগ হলে ফিলিস্তিনের পশ্চিমতীর এবং গাজায় কয়েক লাখ নতুন কর্মসংস্থানের সৃষ্টি হবে।

এর বেশিরভাগ অর্থই ফিলিস্তিনির গাজা ভূখণ্ড এবং পশ্চিমতীরের উন্নয়নে ব্যয় করা হবে। বাকি অর্থ ফিলিস্তিনি শরণার্থীদের আশ্রয় দেয়া জর্ডান, মিসর এবং লেবাননের উন্নয়নে ব্যয় করা হবে। ফলে ফিলিস্তিনিদের জীবনযাত্রায় আমূল পরিবর্তন আসবে।

যা সেখানের বেকারত্বের হার সিঙ্গেল ডিজিটে নামিয়ে আনবে বলে আমার বিশ্বাস। এটি ১০ বছরের একটি পরিকল্পনা। তাই সামগ্রিকভাবে তাদের অর্থনীতির ইতিবাচক পরিবর্তন হবে।

ফিলিস্তিনি কর্তৃপক্ষের দাবি, কথিত শান্তি পরিকল্পনা বাস্তবায়নের জন্যই অর্থ সহায়তার লোভ দেখাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র। সারাবিশ্বই ওয়াশিংটনের বিতর্কিত শান্তি পরিকল্পনা প্রত্যাখ্যান করবে বলেও দাবি ফিলিস্তিনি নেতাদের।

(দ্য রিপোর্ট/আরজেড/আগস্ট ১৯, ২০১৯)

পাঠকের মতামত:

SMS Alert

বিশ্ব এর সর্বশেষ খবর

বিশ্ব - এর সব খবর