thereport24.com
ঢাকা, মঙ্গলবার, ১১ আগস্ট ২০২০, ২৬ শ্রাবণ ১৪২৭,  ২১ জিলহজ ১৪৪১

আশরাফুলের আজ ৩৬তম জন্মদিন

২০২০ জুলাই ০৭ ১৪:৫৯:০৬
আশরাফুলের আজ ৩৬তম জন্মদিন

দ্য রিপোর্ট প্রতিবেদক: বাংলাদেশের ক্রিকেটের এক সময়কার বড় বিজ্ঞাপন। যার হাত ধরে একাধিক সাফল্য পেয়েছিল টাইগাররা। শুধু তাই নয়, সাবেক এ ব্যাটসম্যানের কারণে লাল-সবুজ প্রতিনিধিরা পরাশক্তি হিসেবে নিজেদের জানান দেন। আজ সেই মোহাম্মদ আশরাফুলের জন্মদিন। ৭ জুলাই ১৯৮৪ সালে ঢাকায় জন্মগ্রহণ করেছিলেন তিনি। বয়স ৩৬। তারপরও আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলার স্বপ্ন এখনও দেখেন তিনি। জন্মদিনে আশরাফুলের এই স্বপ্নপূরণের জন্য শুভকামনা।

দেশের ক্রিকেটের আশার ফুল হয়ে ফোটা আশরাফুল জনপ্রিয়তা হারিয়েছেন আরও আগেই, লড়ছেন নতুন করে নিজেকে ফিরে পেতে। দেশের জার্সিতে আশরাফুলের টেস্ট ম্যাচ থমকে গেছে ৬১টি ম্যাচ খেলে। ওয়ানডে খেলেছেন ১৭৭টি আর টি-টোয়েন্টি খেলেছেন ২৩টি।

২০০১ সালের ১১ এপ্রিল বুলাওয়াতে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ওয়ানডেতে অভিষেক হয় আশরাফুলের। সবশেষ ওয়ানডে খেলেছেন ২০১৩ সালের ৮ মে, সেই জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে, সেই বুলাওয়েতে। ২০০১ সালের ৬ সেপ্টেম্বর কলম্বোতে স্বাগতিক শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে টেস্ট অভিষেকে সর্বকনিষ্ঠ ব্যাটসম্যান হয়ে সেঞ্চুরি হাঁকিয়ে সাড়া ফেলেন আশরাফুল। ২০১৩ সালের এপ্রিলে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে হারারেতে সবশেষ সাদা পোশাকে খেলেছিলেন তিনি। এদিকে ২০০৭ সালের ১ সেপ্টেম্বর নাইরোবিতে কেনিয়ার বিপক্ষে টি-টোয়েন্টিতে অভিষেক হয় অ্যাশের। ২০১৩ সালের ৩১ মার্চ পাল্লেকেলেতে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে তিনি খেলেছিলেন তার সবশেষ টি-টোয়েন্টি ম্যাচ। জাতীয় দলে আর কখনো ফেরা না হলে দেশের মাটিতে অভিষেক কিংবা দেশের মাটিতে বিদায় নেওয়ার সুযোগ থেকে বঞ্চিত থাকবেন আশরাফুল।

নিজের অভিষেক টেস্টের প্রথম ইনিংসে আশরাফুল শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ৫৩ মিনিট ক্রিজে থেকে ৫৩ বলে করেছিলেন ২৬ রান। আর দ্বিতীয় ম্যাচেই ইতিহাস লিখে করেছিলেন ১৬ বাউন্ডারিতে ১১৪ রান। ক্রিজে ছিলেন ২৪৮ মিনিট, বল মোকাবেলা করেছিলেন ২১২টি। মাত্র ১৭ বছর ৬১ দিন বয়সে অভিষেক টেস্টে সেঞ্চুরির মধ্য দিয়ে বিশ্ব ক্রিকেটে অনন্য এক নজির স্থাপন করেছিলেন আশরাফুল। কলম্বোর সিংহলিজ স্পোর্টস স্টেডিয়ামে ওই সেঞ্চুরির সুবাদে আশরাফুল যেমন নিজেকে চিনিয়েছেন তেমনি হয়েছিলেন টেস্টের সর্বকনিষ্ঠ সেঞ্চুরিয়ান।

২০০৭ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে মাত্র ৪টি-টোয়েন্টি খেলার অভিজ্ঞতা নিয়ে বিশ্বমঞ্চে মাঠে নেমে যায় বাংলাদেশ। মোহাম্মদ আশরাফুল সেবার বাংলাদেশকে নেতৃত্ব দিয়েছিলেন। প্রথম ম্যাচেই ক্রিকেট বিশ্বকে চমকে দিয়ে ক্রিস গেইল, সারওয়ান, ব্রাভোদের ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হারিয়ে দেয় আশরাফুলের দল। সেই আসরে ভারতকে নেতৃত্ব দিয়েছিলেন ধোনি। ফাইনালে পাকিস্তানকে ৫ রানে হারিয়ে বিশ্ব শিরোপা উঠেছিল ধোনির হাতে।

এদিকে প্রথম শ্রেনির ক্রিকেটও দারুণ সফল আশরাফুল। ১৫৬টি প্রথমশ্রেণির ম্যাচ আর লিস্ট ‘এ’ তে খেলেছেন ২৬৫টি ম্যাচ। প্রথমশ্রেণিতে ২০টি সেঞ্চুরিতে আশরাফুলের ব্যাটিং গড় ২৮.৯৪, লিস্ট ‘এ’ তে ১০টি সেঞ্চুরিতে গড় ২৫.৫৫। প্রথমশ্রেণিতে আশরাফুলের রান ৭৯৩১, লিস্ট ‘এ’ তে ৫৮৫১। সবধরনের টি-টোয়েন্টিতে আশরাফুল ৬৯ টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলে করেছিলেন ১৩৪৬, ইনিংস সর্বোচ্চ অপরাজিত ১০৩ রান। আন্তর্জাতিক ওয়ানডেতে আশরাফুলের রান থমকে আছে ৩৪৬৮তে। সাদা পোশাকে থমকে গেছেন ২৭৩৭ রানে।

বিপিএলে ঢাকা গ্ল্যাডিয়েটর্সের জার্সিতে খেলে শিরোপা জেতার সুযোগ হয়েছিল আশরাফুলের। দেশের জমজমাট টি-টোয়েন্টির এই আসরে স্পট ফিক্সিং কেলেঙ্কারিতে জড়িয়েছিলেন। যে থাকার কথা স্বীকার করে আশরাফুল প্রথমে নিষিদ্ধ হয়েছিলেন আট বছরের জন্য। এর মধ্যে স্থগিত নিষেধাজ্ঞা ছিল তিন বছরের। আপিলের পর শাস্তিটা কমে হয় দুই বছরের স্থগিত নিষেধাজ্ঞাসহ পাঁচ বছর। শাস্তি কমানোর সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক ক্রীড়া আদালতে পাল্টা আপিল করেছিল বিসিবি ও আইসিসি। বিপিএল স্পট ফিক্সিংয়ের কেঁচো খুঁড়তে বেরিয়ে আসা ‘সাপ’ নিয়ে উদাসীন ছিল বিসিবি। ক্ষমা চেয়েও পার না পাওয়ায় হারিয়ে গিয়েছিলেন আশরাফুল। তবে গত কয়েক বছর ঘরোয়া ক্রিকেটে দুর্দান্ত পারফর্ম করেন তিনি। কিন্তু তারপরও নির্বাচক চোখে নিজেকে ঠিক প্রমাণ করতে পারেননি এ ডানহাতি। আর তাই জাতীয় দলের বন্ধ দুয়ার এখনো খুলেনি তার। তাই বলে অ্যাশ এখনও আশা ছাড়েননি। চেষ্টা করছেন স্বাধ্যমতো। এখনও স্বপ্ন দেখেন একদিন দেশের জার্সিতে ফিরবেন চেনা পরিবেশে।

(দ্য রিপোর্ট/আরজেড/০৭জুলাই, ২০২০)

পাঠকের মতামত:

SMS Alert

খেলা এর সর্বশেষ খবর

খেলা - এর সব খবর