thereport24.com
ঢাকা, শনিবার, ১৫ আগস্ট ২০২০, ৩১ শ্রাবণ ১৪২৭,  ২৫ জিলহজ ১৪৪১

আদালতে সাফাই গাইলেন সাহেদ

২০২০ জুলাই ১৬ ১৫:১৪:৩৩
আদালতে সাফাই গাইলেন সাহেদ

দ্য রিপোর্ট প্রতিবেদক: করোনা পরীক্ষার নামে ভুয়া রিপোর্টসহ বিভিন্ন প্রতারণার অভিযোগে দায়ের করা মামলায় রিজেন্ট হাসপাতালের চেয়ারম্যান সাহেদ ওরফে সাহেদ করিমকে বৃহস্পতিবার (১৬ জুলাই) আদালতে হাজির করা হয়।

বেলা ১১টার দিকে ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ জসীমের আদালতে ডিবি পুলিশের ১০ দিনের রিমান্ড আবেদনের বিষয়ে শুনানি হয়। সাহেদের পক্ষে অ্যাডভোকেট নাজমুল হোসেন, মনিরুজ্জামান, শাহ আলম প্রমুখ আইনজীবী রিমান্ড বাতিল চেয়ে জামিন শুনানি করেন।

রিমান্ড শুনানি চলাকালে সাহেদ কাঠগড়া থেকে বিচারকের কাছে অনুমতি চান কিছু বলার জন্য। বিচারক তাকে বলার অনুমতি দেন। এ সময় সাহেদ কেঁদে ফেলেন বলে জানান আইনজীবীরা। আদালতে নিজেই নিজের পক্ষে সাফাই গাইলেন সাহেদ।

আসামি সাহেদের বরাত দিয়ে তার আইনজীবীরা জানান, করোনা রোগীদের পরীক্ষা যখন বাংলাদেশে শুরু হয়, সেই সময় সরকারের সঙ্গে আলোচনা সাপেক্ষে রিজেন্ট লাইসেন্স নেয়। সরকারের সঙ্গে করোনা রোগীদের চিকিৎসার চুক্তি প্রথম রিজেন্ট হাসপাতালের সঙ্গেই হয়। লাইসেন্সের মেয়াদ আছে। বাংলাদেশে তারাই প্রথম করোনা রোগীদের চিকিৎসার জন্য এগিয়ে আসে। সাহেদ নিজেও করোনায় আক্রান্ত হয়ে অসুস্থ হয়ে যান। তার বাবাও করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন। তার এমডিসহ অনেক অফিসারই আক্রান্ত হয়েছেন।

আইনজীবীরা বলেন, রিজেন্ট হাসপাতাল করোনা রোগীদের চিকিৎসার জন্য সর্বদা প্রস্তুত ছিল। তারা সেবা করেছেন। জনগণের সেবা করতে গিয়ে সাহেদ নিজেও করোনায় আক্রান্ত হয়েছিলেন। তিনি সুস্থ হতে না হতে এ রকম একটা রিপোর্ট চলে এলো। তার বিরুদ্ধে ভুল তথ্য ছড়ানো হচ্ছে এজন্য থানায় একটি জিডি করার কথাও আদালতকে জানান তিনি। তিনি অনেক অসুস্থ, পা ফুলে গেছে বলেও জানান তিনি।

এসময় তিনি আদালতের কাছে ন্যায় বিচার প্রার্থনা করেন।

সাহেদ কিভাবে গ্রেপ্তার হলেন এ বিষয়ে আদালতকে কিছু জানিয়েছেন কি না জানতে চাইলে আইনজীবীরা বলেন, গ্রেপ্তারের বিষয়ে সাহেদ আদালতকে কিছু জানাননি।

রাষ্ট্রপক্ষে ঢাকা মহানগর পাবলিক প্রসিকিউটর আব্দুল্লাহ আবু, ঢাকার মহানগর দায়রা জজ আদালতের অতিরিক্ত পিপিকে এম সাজ্জাদুল হক শিহাব, হেমায়েত উদ্দিন খান হিরন প্রমুখ আইনজীবী তিন আসামির ১০দিন করেই রিমান্ড মঞ্জুরের প্রার্থনা করেন।

উভয় পক্ষের শুনানি শেষে আদালত জামিনের আবেদন নামঞ্জুর করে সাহেদ ও মাসুদ পারভেজের দশদিনে ১০ দিনই এবং তারেক শিবলীর পুনরায় সাত দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

বেলা ১১টা ১০ মিনিটের দিকে ডিবি পুলিশ আসামিদের আদালত প্রাঙ্গণ থেকে নিয়ে যায়।

(দ্য রিপোর্ট/আরজেড/১৬জুলাই, ২০২০)

পাঠকের মতামত:

SMS Alert

অপরাধ ও আইন এর সর্বশেষ খবর

অপরাধ ও আইন - এর সব খবর