thereport24.com
ঢাকা, রবিবার, ১ আগস্ট ২০২১, ১৭ শ্রাবণ ১৪২৮,  ২২ জিলহজ ১৪৪২

রিমান্ড শেষে আবজালকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ

২০২০ অক্টোবর ১৯ ১৫:৩৭:২৮
রিমান্ড শেষে আবজালকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ

দ্য রিপোর্ট প্রতিবেদক: ৩৬ কোটি টাকার অবৈধ সম্পদ অর্জনের মামলায় স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের বহুল আলোচিত সেই অফিস সহকারী আবজাল হোসেনকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দিয়েছেন আদালত।

আজ সোমবার (১৯ অক্টোবর) ঢাকা মহানগর দায়রা জজ কে এম ইমরুল কায়েশের আদালত এই আদেশ দেন।

এর আগে দ্বিতীয় দফার রিমান্ড শেষে আসামি আবজালকে আদালতে হাজির করা হয়। এসময় তাঁকে কারাগারে আটক রাখার আবেদন করে দুদক। পরে আদালত তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

গত ২০ সেপ্টেম্বর প্রথম দফায় সাত দিনের রিমান্ড শেষে আবজাল কারাগারে পাঠানো হয়। এর আগে গত ২ সেপ্টেম্বর অবৈধ সম্পদ অর্জনের দুটি মামলায় সাত দিন করে মোট ১৪ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত। গত ২৬ আগস্ট তাঁকে দুটি মামলায় ১০ দিন করে ২০ দিনের রিমান্ডে নিতে আবেদন করে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। পরে আদালত আগামী ২ সেপ্টেম্বর তাঁর উপস্থিতিতে রিমান্ড শুনানির জন্য দিন ধার্য করেন। এছাড়া একই দিন আবজাল হোসেন আইনজীবীর মাধ্যমে আত্মসমর্পণ করে জামিনের আবেদন করেন। শুনানি শেষে বিচারক তার জামিন আবেদন খারিজ করে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

২০১৯ সালের ২৭ জুন দুদক উপ-পরিচালক মো. তৌফিকুল ইসলাম বাদী হয়ে রাজধানীর সেগুনবাগিচায় দুদকের সমন্বিত জেলা কার্যালয় ঢাকা-১ কার্যালয়ে অবৈধ সম্পদ অর্জন, মানি লন্ডারিং এবং দুর্নীতি প্রতিরোধ আইনে দু'টি মামলা করেন।

মামলা দুটিতে আবজাল দম্পতির বিরুদ্ধে ৩৬ কোটি ৩০ লাখ ৬১ হাজার ৪৯৩ টাকার অবৈধ সম্পদ অর্জন ও ভোগ দখলে রাখার অভিযোগ আনা হয়েছে। মামলায় দীর্ঘ সময় ধরে স্থানান্তর, রূপান্তর ও হস্তান্তরের মাধ্যমে ২৮৪ কোটি ৫১ লাখ ১৩ হাজার ২০৭ টাকার অর্থপাচার অপরাধের অভিযোগও করা হয়েছে।

আবজালের বিরুদ্ধে করা মামলায় চার কোটি ৭৯ লাখ ৩৪ হাজার ৪৪৯ টাকার অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগ আনা হয়েছে। তিনি দুদকে পেশ করা সম্পদ বিবরণীতে দুই কোটি দুই লাখ এক লাখ ১৯ হাজার ৭৮৫ টাকার সম্পদ গোপন করেছেন বলে মামলায় উল্লেখ রয়েছে। আবজাল ও তাঁর স্ত্রী রুবিনা খানমকে যৌথভাবে আসামি করে করা মামলায় ৩১ কোটি ৫১ লাখ ২৩ হাজার ৪৪ টাকার সম্পদের কথা বলা হয়েছে। তিনি দুদকের কাছে পাঁচ কোটি ৯০ লাখ ২৮ হাজার ৯২৬ টাকার সম্পদের তথ্য গোপন করেছেন বলে মামলায় উল্লেখ করা হয়েছে।

মামলার অভিযোগপত্রে বলা হয়, আবজালের নামে থাকা সম্পদের চেয়ে তার স্ত্রীর নামে সম্পদের পরিমাণ বেশি। অবৈধ সম্পদ অর্জনের দায় থেকে নিজেকে রক্ষা করতে তিনি স্ত্রীর নামে সম্পদ করেছেন। এসব সম্পদের বৈধ উৎস খুঁজে পাওয়া যায়নি। এজাহারে আবজালের নামে ২০ কোটি ৭৪ লাখ ৩২ হাজার ৩২ টাকার অর্থ পাচার অপরাধের প্রমাণ মিলেছে। তার স্ত্রী রুবিনা খানমের বিরুদ্ধে ২৬৩ কোটি ৭৬ লাখ ৮১ হাজার ১৭৫ টাকার অর্থপাচার অপরাধের প্রমাণ পাওয়া গেছে।

(দ্য রিপোর্ট/আরজেড/১৯ অক্টোবর, ২০২০)

পাঠকের মতামত:

SMS Alert

অপরাধ ও আইন এর সর্বশেষ খবর

অপরাধ ও আইন - এর সব খবর