thereport24.com
ঢাকা, সোমবার, ১৯ এপ্রিল ২০২১, ৬ বৈশাখ ১৪২৮,  ৭ রমজান ১৪৪২

চলে গেলেন এটিএম: শোকে কাতর তারকারা

২০২১ ফেব্রুয়ারি ২০ ১৬:৪০:২৩
চলে গেলেন এটিএম: শোকে কাতর তারকারা

দ্য রিপোর্ট ডেস্ক: কিংবদন্তি অভিনেতা এটিএম শামসুজ্জামান মৃত্যুবরণ করেছেন। আজ শনিবার সকালে তিনি পাড়ি জমান না ফেরার দেশে। তার মৃত্যুতে শোকের ছায়া নেমে এসেছে শোবিজ জগতে। চলচ্চিত্র ও নাটকের মানুষেরা প্রকাশ করছেন শোক। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক যেন শোকবইতে রূপ নিয়েছে।

ঢালিউড সুপারস্টার শাকিব খান তার ফেসবুক পেজে লিখেছেন, বাংলা চলচ্চিত্রের যারা পথপ্রদর্শক, একে একে তারা চলে যাচ্ছেন। সেই কাতারে এবার কিংবদন্তী এটিএম শামসুজ্জামান আঙ্কেল। তিনিও বিদায় নিলেন। ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্নালিল্লাহি রাজিউন। চলচ্চিত্র অঙ্গনে প্রাজ্ঞজনদের একজন তিনি। তবে এতো সহজ মানুষ ছিলেন, যার সাথে সবকিছু অকপটে বলা যেত। সর্বদা সুপরামর্শ পেয়েছি এই গুণী মানুষটির কাছ থেকে। সবকিছু ছাপিয়ে এটিএম আঙ্কেল ছিলেন অত্যন্ত রসবোধ সম্পন্ন একজন মানুষ। শুধু সিনেমায় নয়, ব্যক্তিজীবনে দারুণ হিউমার সম্পন্ন মানুষ ছিলেন তিনি। রঙের মানুষ। মুহূর্তেই আসর জমিয়ে দিতে পারতেন, কিন্তু একই সঙ্গে আবার অত্যন্ত ব্যক্তিত্ববান! নাটক, সিনেমা, লেখালিখি, পড়াশোনা সব মাধ্যমে এটিএম শামসুজ্জামান ছিলেন সমুজ্জ্বল। অভিনেতা ছাড়াও ছিলেন একজন চমৎকার লেখক, পরিচালক, চিত্রনাট্যকার এবং কাহিনীকার। এমন মানুষ খুঁজে পাওয়া এই সময়ে দুস্কর। কাজে কিংবা কাজের বাইরে এই সহজ মানুষটির সাথে আমার অসংখ্য স্মৃতি। তাঁর প্রয়াণে প্রিয় অভিনেতা হারানোর পাশাপাশি একজন অভিভাবক হারানোর শোক অনুভব করছি। যেখানেই থাকুন, ভালো থাকুন এটিএম শামসুজ্জামান আঙ্কেল।

‘ইত্যাদি’ খ্যাত টেলিভিশন ব্যক্তিত্ব হানিফ সংকেত লিখেছেন দীর্ঘ স্ট্যাটাস। তার ফেসবুক পেজে দেওয়া সেই স্ট্যাটাসে লিখেছেন, বাংলাদেশের সাংস্কৃতিক অঙ্গন থেকে ঝরে গেলো আরো একটি নক্ষত্র। সকলের প্রিয় অভিনেতা এটিএম শামসুজ্জামান। আমাদের এটিএম ভাই। বর্ণাঢ্য যার অভিনয় জীবন। বিভিন্ন শারীরিক জটিলতা নিয়ে দীর্ঘদিন অসুস্থ ছিলেন। অবশেষে আজ সকালে সূত্রাপুরে তার নিজস্ব বাসভবনে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। অত্যন্ত মেধাবী, প্রাণবন্ত, বিনয়ী, সহজ-সরল, সাদামাটা মানুষ ছিলেন এটিএম ভাই। ছিলেন একজন আদর্শ সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব। অসুস্থতার সময় নিয়মিত তার খোঁজ-খবর রাখতে চেষ্টা করতাম। হাসপাতালেও গিয়েছি। রুনী ভাবীর সঙ্গে নিয়মিত কথা হতো। এটিএম ভাই ছিলেন ইত্যাদির বিশেষ অনুষ্ঠানগুলোর প্রায় নিয়মিত শিল্পী। এছাড়াও আমার অন্যান্য অনুষ্ঠান ও অনেকগুলো নাটকে তাকে নেয়ার সুযোগ হয়েছিলো। তাই কাছ থেকে দেখেছি, গভীরভাবে মেশার সুযোগ পেয়েছি। ছিলো আন্তরিক সম্পর্ক। ইত্যাদির প্রতি তার একটা বিশেষ দুর্বলতাও ছিলো। আর সেজন্যই চিকিৎসাধীন থাকা অবস্থায়ও তিনি বার বার ইত্যাদির কথা স্মরণ করেছেন। হাসপাতালে দেখতে গেলে সুস্থ হয়ে আবারও ইত্যাদির ক্যামেরার সামনে দাঁড়ানোর ইচ্ছে প্রকাশ করেছিলেন। আর তাই প্রথম যখন কিছুটা সুস্থ হয়ে বাসায় ফিরেছেন তখনই ভাবী আমাকে জানিয়েছিলেন এটিএম ভাই ইত্যাদিতে অভিনয় করতে চান। যেহেতু আমরা আমাদের নিজস্ব শ্যুটিং স্পটে শ্যুটিং করি এবং এখানকার পরিবেশ, খাওয়া-দাওয়া সবকিছুতে তিনি স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করেন, তাই তার বিশ্বাস এখানে এসে অভিনয় করলে তার শারীরিক কোন অসুবিধা হবে না। তাই এখান থেকেই তিনি আবার যাত্রা শুরু করতে চান। আরেকজন বর্ষীয়ান অভিনেতা জনাব মাসুদ আলী খানের সঙ্গে জুটি করে সেসময় ইত্যাদির জন্য ছোট্ট একটি নাট্যাংশ নির্মাণ করেছিলাম। যেটি পরবর্তীতে ইত্যাদিতে প্রচারিত হয়। আর ইত্যাদিতে করা সেই অভিনয়টুকুই ছিলো এটিএম ভাইয়ের জীবনের শেষ অভিনয়। অনেক শিল্পীরই বিকল্প তৈরি হয় কিংবা করা যায় কিন্তু এটিএম শামসুজ্জামানের কখনোই কোন বিকল্প ছিলো না, আর তৈরি হবে কিনা জানি না। তার প্রতিটি চরিত্রই ছিলো তার অভিনয় নৈপুণ্যে আলাদা বৈশিষ্ট্যের। এই মহান শিল্পীর মৃত্যুতে আমরা গভীরভাবে শোকাহত। আমরা তার মাগফিরাত কামনা করছি।

চিত্রনায়িকা বুবলী লিখেছেন, বিনোদনের প্রত্যেকটি জায়গায় ছিলো আপনার পদচারনা এবং সর্বত্রই আপনি সফলতার আলো ছড়িয়েছেন আপনার দুর্দাম্ত অভিনয় ক্ষমতা দিয়ে।কতটা বিচক্ষণ, দক্ষ, মেধাবী এবং পরিশ্রমী অভিনয় শিল্পী আপনি ছিলেন তা হয়তো শুধু মাত্র লেখায় প্রকাশ করা সম্ভব নয়। ভালো থাকবেন স্যার

নির্মাতা ইফতেখার চৌধুরী লিখেছেন, দুঃখের সংবাদ। এটিএম শামসুজ্জামান আর নেই। আপনার পরামর্শ আমার ব্যক্তিগত এবং পেশাগত জীবন বদলে দিয়েছে। আপনাকে মিস করবো আংকেল।

টিভি অভিনেত্রী তানজিন তিশা লিখেছেন, না ফেরার দেশে চলে গেলেন কিংবদন্তী অভিনেতা এটিএম শামসুজ্জামান। ইন্না-লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন

চিত্রনায়ক আরিফিন শুভ লিখেছেন, শান্তিতে থাকুন এটিএম চাচা

জনপ্রিয় অভিনেতা চঞ্চল চৌধুরী লিখেছেন, শেষ পর্যন্ত সত্যটা হলো। এ টি এম ভাই চলে গেলেন। আর হলো না দেখা। কত সময়, কত স্মৃতি। আবেগ তাড়িত হচ্ছি খুব। অপার শ্রদ্ধা। শান্তিতে থাকুন আপন মানুষ এ টি এম শামসুজ্জামান।

‘ঢাকা অ্যাটাক’ খ্যাত নির্মাতা দীপংকর দীপন লিখেছেন, বিদায় কিংবদন্তি।

চিত্রনায়ক সিয়াম আহমেদ লিখেছেন, এবারের খবরটি কোনো গুজব নয়। ইন্নালিল্লাহি ওয়াইন্না ইলাইহি রাজিউন।

চিত্রনায়িকা পূজা চেরি লিখেছেন, আপনি চলে গেলেন? ওপারে ভালো থাকবেন।

এটিএম শামসুজ্জামানের সঙ্গে তোলা একটি ছবি শেয়ার করেছেন রওনক হাসান। সঙ্গে লিখেছেন, এই স্নেহ, আদর, ভালোবাসা আর আশীর্বাদ! আর পাবো না! আর দেখা হবে না! আহহহ! আপনার আত্মা শান্তিতে থাকুক। ভালোবাসা ও শ্রদ্ধা কিংবদন্তি অভিনেতা ও অভিভাবক এ টি এম শামসুজ্জামান।

চিত্রনায়ক বাপ্পী চৌধুরী লিখেছেন, কিংবদন্তিরা অন্যসব সাধারণ মানুষের মতো বাঁচেন না, মরেনও না। ভালো থাকবেন কিংবদন্তি। শ্রদ্ধা। আপনার আত্মা শান্তিতে থাকুক স্যার।

চিত্রনায়ক সাইমন সাদিক লিখেছেন, চলে গেলেন আমাদের সবার প্রিয় অভিনেতা এ টি এম শামসুজ্জামান স্যার। মহান আল্লাহ আপনাকে জান্নাত দান করুন।

(দ্য রিপোর্ট/আরজেড/২০ ফেব্রুয়ারি, ২০২১)

পাঠকের মতামত:

SMS Alert

জলসা ঘর এর সর্বশেষ খবর

জলসা ঘর - এর সব খবর