thereport24.com
ঢাকা, শুক্রবার, ২১ জানুয়ারি ২০২২, ৮ মাঘ ১৪২৮,  ১৭ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

রাজারবাগ পীরের বিরুদ্ধে মামলা করা যাবে

২০২১ ডিসেম্বর ০৫ ১৯:৪৬:৩৫
রাজারবাগ পীরের বিরুদ্ধে মামলা করা যাবে

দ্য রিপোর্ট প্রতিবেদক: রাজারবাগ দরবারের পীর দিল্লুর রহমানসহ তার অনুসারীদের বিরুদ্ধে ভুক্তভোগীরা চাইলে দেশত্যাগে নিষেধাজ্ঞা ও মামলা করতে পারবেন বলে আদেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। একই সঙ্গে দুর্নীতি দমন কমিশনকে (দুদক) ৬০ দিনের মধ্যে প্রতিবেদন দাখিল করার নির্দেশ দিয়ে আগামী ১৩ ফেব্রুয়ারি মামলার শুনানির দিন নির্ধারণ করা হয়েছে।

রোববার (৫ ডিসেম্বর) এক রিট আবেদনের শুনানি নিয়ে বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমানের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন। পুলিশের সিআইডি ও কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটের তদন্ত প্রতিবেদনে জঙ্গি সম্পৃক্ততাসহ বেশকিছু অভিযোগ ওঠে আসায় মূলত এ আদেশ দেওয়া হয়েছে।

এদিন আদালতে রিটের পক্ষে শুনানিতে ছিলেন আইনজীবী মোহাম্মদ শিশির মনির ও এমাদুল হক বশির। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল বিপুল বাগমার। দুদকের পক্ষে ছিলেন জাহিদ হোসেন দোলন।

এর আগে গত ২ ডিসেম্বর পীর দিল্লুর রহমানসহ চার জনের বিদেশযাত্রায় নিষেধাজ্ঞা চেয়ে হাইকোর্টে একটি সম্পূরক রিট আবেদন দায়ের করা হয়। রিটে দেশত্যাগে নিষেধাজ্ঞা চাওয়া হয়। ভুক্তভোগী ব্যবসায়ী একরামুল আহসান কাঞ্চনের পক্ষে অ্যাডভোকেট এমাদুল হক বশির আবেদনটি দায়ের করেন।

তার আগের দিন ১ ডিসেম্বর পীর দিল্লুর রহমানের অবৈধ সম্পদের খোঁজে তথ্য চেয়ে সরকারি-বেসরকারি ৫৮টি ব্যাংকসহ ১২২টি প্রতিষ্ঠানে চিঠি পাঠায় দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। এসব প্রতিষ্ঠানের মধ্যে রয়েছে সরকারি-বেসরকারি ৫৬টি ব্যাংক, দেশের ৬৪ জেলা রেজিস্ট্রার, বন ও পরিবেশ মন্ত্রণালয় ও বনশিল্প উন্নয়ন করপোরেশন।

বিভিন্ন সূত্রে জানা যায়, রাজারবাগ দরবার শরিফের পীর দিল্লুর রহমানসহ তার অনুসারীরা কমপক্ষে ৮০০টি ভুয়া মামলা করেছেন। এসব মামলার পেছনে রয়েছে সাত হাজার একর জমি ও রাবার বাগান দখল। পীরের পক্ষে তার অনুগতরা এসব মামলা দায়ের করেছেন বলে জানা গেছে।

এছাড়া দেশের বিভিন্ন জেলায় ৪৯টি মামলা হওয়ার বিরুদ্ধে একরামুল আহসান কাঞ্চন ন্যায়বিচার পেতে এবং ঘটনার পেছনে দায়ীদের খুঁজতে তদন্তের নির্দেশনা চেয়ে হাইকোর্টে রিট দায়ের করেন। সে রিটের শুনানি নিয়ে হাইকোর্ট পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগকে (সিআইডি) একরামুলের বিরুদ্ধে হওয়া ৪৯ মামলার তদন্ত করে ৬০ দিনের মধ্যে প্রতিবেদন দিতে রুলসহ আদেশ দেন।

এরপর সিআইডির প্রতিবেদনে কাঞ্চনের বিরুদ্ধে পীর সিন্ডিকেটের করা হয়রানিমূলক মামলার তথ্য উঠে আসে। পরে ১৯ সেপ্টেম্বর রাজারবাগ দরবার শরীফের সব সম্পদের বিষয়ে তদন্ত করতে নির্দেশ দেন হাইকোর্ট। দুর্নীতি দমন কমিশনকে (দুদক) এ তদন্ত করতে বলা হয়। এছাড়া তাদের কোনো জঙ্গি সম্পৃক্ততা আছে কি না তা তদন্ত করতে কাউন্টার টেররিজম ইউনিটকে বলা হয়। একইসঙ্গে আবেদনকারীদের মামলা প্রতারণামূলক কি না, সিআইডিকে এ বিষয়ে তদন্তের নির্দেশ দেন আদালত।

পরে এই আদেশ স্থগিত চেয়ে আপিল বিভাগে আবেদন করেন রাজারবাগ পীরের আইনজীবীরা।

গত ১৬ সেপ্টেম্বর রাজারবাগ পীর ও তার চক্র কর্তৃক দেশব্যাপী দায়ের গায়েবি মামলার তদন্ত চেয়ে হাইকোর্টে রিট করে ভুক্তভোগী ৮ পরিবার। ৭ বছরের শিশু, মহিলা, মুক্তিযোদ্ধার সন্তান, মাদ্রাসার শিক্ষক, ব্যবসায়ীসহ ৮ জন ভুক্তভোগী আবেদনকারীর পক্ষে আইনজীবী শিশির মনির এ রিট দায়ের করেন।

আবেদনে রাজারবাগ পীর ও তার চক্র দ্বারা দেশব্যাপী আবেদনকারীদের বিরুদ্ধে মিথ্যা, বিভ্রান্তিকর, মানহানিকর মামলা দায়েরের বিরুদ্ধে কেন আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে না- এই মর্মে রুল জারির আর্জি জানানো হয়েছে। এছাড়া রাজারবাগ শরীফ ও পীর দিল্লুর রহমানের সম্পত্তি এবং ব্যাংক হিসাব তদন্ত করে একটি প্রতিবেদন দাখিল করতে দুদক চেয়ারম্যানের প্রতি নির্দেশনা চাওয়া হয়।

আবেদনকারীদের বিরুদ্ধে সারা দেশে করা মামলার বিষয়ে একটি তদন্ত চাওয়া হয়। ভুক্তভোগী পরিবারের সদস্যরা নিরাপত্তা দিতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সহায়তা চান। রিট আবেদনে স্বরাষ্ট্র সচিব ও আইজিপিসহ ২০ জনকে বিবাদী করা হয়।

(দ্য রিপোর্ট/আরজেড/ ০৫ ডিসেম্বর, ২০২১)

পাঠকের মতামত:

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

SMS Alert

অপরাধ ও আইন এর সর্বশেষ খবর

অপরাধ ও আইন - এর সব খবর