thereport24.com
ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১২ আশ্বিন ১৪২৯,  ১ রবিউল আউয়াল 1444

জ্বালানীর দাম বৃদ্ধির প্রভাব বাজারে

২০২২ আগস্ট ১২ ১২:১১:৩৪
জ্বালানীর দাম বৃদ্ধির প্রভাব বাজারে

দ্য রিপোর্ট প্রতিবেদক: জ্বালানি তেলের দাম বাড়ার পর সড়ক এবং নদীপথে পণ্য পরিবহনের ভাড়াও বাড়ানো হয়েছে। এর রেশ পড়েছে বাজারে। শুক্রবার (১২ আগস্ট) রাজধানীর কয়েকটি বাজার ঘুরে দেখা গেছে, চাল, ডাল, তেল, চিনি, আটা, সবজি, ডিম ও মুরগিসহ প্রায় সবকিছুরই দাম বেড়েছে।

এমন পরিস্থিতিতে নিম্ন ও মধ্যম আয়ের মানুষের পরিবার চালাতে হিমশিম খেতে হচ্ছে। তারা বলছেন, এভাবে চলতে থাকলে, কীভাবে সংসার চালাব, কিছু মাথায় ঢুকছে না। রাজধানীতে প্রতিনিয়ত বাড়ছে জীবনযাত্রার ব্যয়। এমনটা চলতে থাকলে পরিবার নিয়ে গ্রামের বাড়িতে চলে যেতে হবে।

বাজার ঘুরে দেখা গেছে,মিনিকেট চাল প্রতি কেজি বিক্রি হচ্ছে ৬৯ থেকে ৭০ টাকায়। যা গত সপ্তাহে ছিল ৬৭ থেকে ৬৮ টাকা। বিরি-২৮ চালের কেজি বিক্রি হচ্ছে ৫৫ থেকে ৫৭ টাকায়। আগে দাম ছিল ৫৩ টাকা কেজি। নাজিরশাইল চালের দাম বেড়ে বিক্রি হচ্ছে ৭৫ থেকে ৮৫ টাকায়। আর পোলাওর চাল বিক্রি হচ্ছে ১০৫ থেকে ১১০ টাকায়।

পাইকারিব্যবসায়ীরা বলছেন, জ্বালানি তেলের দাম বেড়ে যাওয়ায় চালের দাম বেড়েছে। চিকন চাল কেজিতে বেড়েছে ৩ টাকা, আর মোটা চালে বেড়েছে ২ টাকা করে। তবে খুচরা বাজারে৫ থেকে ৬ টাকা পর্যন্ত বেড়েছে।

এছাড়া বাজারে বেশিরভাগ সবজির দাম কেজিতে বেড়েছে ১০ থেকে ২০ টাকা। বাজারে টমেটো বিক্রি হচ্ছে ১২০ থেকে ১৩০ টাকা, করলা ৭০ টাকা, চালকুমড়া পিস ৫০ টাকা, প্রতি পিস লাউ আকার ভেদে বিক্রি হচ্ছে ৭০ টাকায়, শসা প্রতিকেজি বিক্রি হচ্ছে ৬০ থেকে ৭০ টাকা, লম্বা বেগুনের কেজি বিক্রি হচ্ছে ৯০ টাকা, গোল বেগুন বিক্রি হচ্ছে ৯০ থেকে ১০০ টাকা কেজি।এছাড়া মিষ্টিকুমড়ার কেজি ৫০ টাকা, চিচিঙ্গা ৬০ টাকা, পটল ৬০ টাকা, ঢেঁড়স ৭০ টাকা, কচুর লতি ৮০ টাকা, পেঁপের কেজি ৫০ টাকা, বরবটির কেজি ৮০ টাকা, ধুন্দলের কেজি ৬০ টাকা।বাজারে আলুর কেজি বিক্রি হচ্ছে ৩০ টাকায়।

এছাড়া কাঁচকলার হালি বিক্রি হচ্ছে ৪০ টাকায়। লেবুর হালি বিক্রি হচ্ছে ১৫ থেকে ২০ টাকা।

এসব বাজারে কাঁচামরিচ প্রতিকেজি বিক্রি হচ্ছে ২৬০ থেকে ২৫০ টাকায়।শুকনা মরিচের কেজি ৪০০ টাকা।

বিক্রেতারা বলছেন, জ্বালানি তেলের দাম বাড়ায় ট্রাক ভাড়াও বেড়েছে। সাপ্লাই বাড়লে সবজির দাম একটু কমতে পারে।

বাজারে পেঁয়াজের দাম কমেছে, কেজি বিক্রি হচ্ছে ৪০ টাকা। আর একটু ভাল মানের পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ৪৫ টাকায়। এসব বাজারে রসুনের কেজি ৪০ থেকে ৪৫ টাকা। বাজারে চায়না রসুন বিক্রি হচ্ছে ১৪৫ থেকে ১৫০ টাকা। আদা প্রতি কেজি বিক্রি হচ্ছে ৯০ থেকে ১১০ টাকায়।

বাজারে প্রতি কেজি খোলা চিনি বিক্রি হচ্ছে ৮৭ টাকায়। আর প্যাকেট চিনি ৯২ টাকায়। এছাড়াও এসব বাজারে দেশি মসুরের ডালের কেজি ১৪০ টাকা। ভারতীয় মসুরের ডাল বিক্রি হচ্ছে ১১০ টাকায়।

প্যাকেট আটার কেজি ৪৮ থেকে ৫০ টাকা। খোলা আটা ৪৫ থেকে ৪৮ টাকা। ভোজ্য তেলেও কোনো সুখবর নেই। প্রতি লিটার বিক্রি হচ্ছে ২০০ থেকে ২০৫ টাকা।

লাল ডিম প্রতি ডজন বিক্রি হচ্ছে ১৩৫ থেকে ১৪০ টাকা। হাঁসের ডজন ২১০ থেকে ২২০ টাকা। আর দেশি মুরগির ডিমের ডজন ১৮০ থেকে ১৯০ টাকা।

এছাড়া ব্রয়লার মুরগির দাম বেড়ে কেজি বিক্রি হচ্ছে ১৭০ থেকে ১৮০ টাকা। সোনালি মুরগির কেজি ৩০০ থেকে ৩২০ টাকা। আর লেয়ার মুরগির কেজি ২৮০ থেকে ২৯০ টাকা।

গরুর মাংসের কেজি ৭০০ টাকা। আর খাসির মাংস প্রতি কেজি বিক্রি হচ্ছে ৯০০ টাকায়।

পাঠকের মতামত:

SMS Alert

জেলার খবর এর সর্বশেষ খবর

জেলার খবর - এর সব খবর