thereport24.com
ঢাকা, সোমবার, ৩০ জানুয়ারি ২০২৩, ১৭ মাঘ ১৪২৯,  ৮ রজব ১৪৪৪

সময় থাকতে মানে মানে কেটে পড়ুন- মির্জা ফখরুল

২০২২ নভেম্বর ২৬ ২১:৪৬:২৮
সময় থাকতে মানে মানে কেটে পড়ুন- মির্জা ফখরুল

দ্য রিপোর্ট প্রতিবেদক:বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, ‘এখন বাংলাদেশের মানুষ আওয়ামী লীগের বিদায় দেখতে চায়। সময় থাকতে মানে মানে কেটে পড়ুন। না হলে এ দেশের জনগণ আপনাদের বিদায় করে দেবে।’

গুম, খুন ও নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতির প্রতিবাদে এবং দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি ও নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচনের দাবিতে কুমিল্লা বিভাগীয় বিএনপি'র গণসমাবেশে বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এ কথা বলেন তিনি।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, সরকার আবারও ২০১৪-১৮ সালের নির্বাচনের মতো নির্বাচন দেওয়ার পাঁয়তারা করছে। তারপর পাতানো নির্বাচনে জিতে আবারও যেমন খুশি তেমন চুরি করবে।

তিনি বলেন, ‘আওয়ামী লীগ সরকারের চুরির কথা বলতে গেলে দিনরাত পার হয়ে যাবে। বিলিয়ন বিলিয়ন ডলার তারা পাচার করে বিদেশে পাঠিয়ে দিয়েছে। তারা আমাদেরকে ভাতে মারছে, পানিতে মারছে, কর্মসংস্থানে মারছে।’

বিএনপি মহাসচিব আরও বলেন, সরকার আবারও ২০১৪-১৮ সালের নির্বাচনের মতো নির্বাচন দেয়ার পাঁয়তারা করছে। তারপর পাতানো নির্বাচনে জিতে আবারও যেমন খুশি তেমন চুরি করবে। আগামী নির্বাচনের বিষয়ে ফখরুল বলেন, তত্ত্বাবধায়ক সরকার ছাড়া এই দেশে আর কোনো নির্বাচন হবে না।

মির্জা ফখরুল বলেন, আওয়ামী লীগের সভানেত্রী, যারা তাকে বলে প্রধানমন্ত্রী। আমরা বলি অবৈধ প্রধানমন্ত্রী। জোর করে দুইবার নির্বাচন করেছে। ২০১৪ আর ২০১৮। ২০১৪ তে কেউ ভোট দিতে যায়নি। ১৫৪ জনকে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত ঘোষণা করেছে। আর ২০১৮ তে আগের রাতেই নাকি ভোট শেষ। উনি নাকি আবার নির্বাচন করবেন। গত পরশু যাশোরে সভা করেছেন। সভায় তিনি ঘোষণা দিয়েছেন আওয়ামী লীগ আসলে নাকি জনগণ শান্তি পায়। আর বলেছেন- আবার নৌকায় ভোট দেন। আব্বাস উদ্দিনের একটা গান আছে- ‘আগে জানলে তোর ভাঙা নৌকায় উঠতাম না।’ দেশের সব মানুষ এখন এই গান গাইতে শুরু করেছে। ভুলে যান, ওই নৌকার কথা ভুলে যান। এখন বাংলাদেশের মানুষ আপনাদের বিদায় দেখতে চায়। সময় থাকতে মানে মানে কেটে পড়ুন। তা না হলে এদেশের মানুষ আপনাদের বিদায় করবে।

এর আগে সকাল থেকেই খন্ড খন্ড মিছিল নিয়ে সমাবেশস্থলে জড়ো হন কুমিল্লাসহ আশপাশের জেলার নেতাকর্মীরা। পুরো শহর ছেয়ে গেছে ব্যানার-ফেস্টুনে।

বিএনপি নেতারা বলছেন, এই গণসমাবেশ জোরালো করবে সরকার পতনের আন্দোলন।

এদিকে সমাবেশস্থল ও আশেপাশের অন্তত ১ কি.মি এলাকায় শুরুতে মোবাইল ইন্টারনেটে ধীরগতি থাকলেও বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে মোবাইলে ইন্টারনেট অনেকটা বন্ধ হয়ে যায়।

গুম, খুন ও নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতির প্রতিবাদে এবং দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি ও নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচনের দাবিতে কুমিল্লা বিভাগীয় বিএনপি এ গণসমাবেশ আয়োজন করে।

পাঠকের মতামত:

SMS Alert

রাজনীতি এর সর্বশেষ খবর

রাজনীতি - এর সব খবর