thereport24.com
ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৫ নভেম্বর ২০১৮, ১ অগ্রাহায়ণ ১৪২৫,  ৬ রবিউল আউয়াল ১৪৪০

এবিএম মূসার মৃত্যুতে সাংস্কৃতিক অঙ্গনে শোক

২০১৪ এপ্রিল ০৯ ২১:১১:৪২
এবিএম মূসার মৃত্যুতে সাংস্কৃতিক অঙ্গনে শোক

দ্য রিপোর্ট প্রতিবেদক : প্রবীণ সাংবাদিক এবিএম মূসা রাজধানীর ল্যাবএইড হাসপাতালে বুধবার দুপুর ১টা ১৫ মিনিটে মৃত্যুবরণ করেন। তাঁর মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বরেণ্য এই সাংবাদিকের মৃত্যুতে শোকাভিভূত বাংলাদেশের সাংস্কৃতিক অঙ্গন। তাৎক্ষণিকভাবে সাংস্কৃতিক অঙ্গনের অনেকেই শোকবার্তা ও অনুভূতি ব্যক্ত করেছেন দ্য রিপোর্ট-এর কাছে।

‘পত্রিকায় যুগপৎ পরিবর্তনের নায়ক ছিলেন’

প্রবীণ সাংবাদিক ও উদীচীর সভাপতি কামাল লোহানী বলেন- বাংলাদেশের পত্রিকায় যুগপৎ পরিবর্তনের নায়ক ছিলেন তিনি। আমি যদি ভুল না করি তিনিই প্রথম থমসন ফাউন্ডেশনে সাংবাদিকতায় প্রশিক্ষণের জন্যে দেশের বাইরে গিয়েছিলেন। সারাজীবন সাহসী ও অন্যায়ের বিরুদ্ধে সবসময় সোচ্চার ছিলেন। এবিএম মূসা তার কর্মজীবনে দীর্ঘদিন বাংলা ইংরেজি পত্রিকায় বার্তা সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেছেন। তাই তিনি সংবাদ এবং সংবাদপত্রের গুরুত্ব বুঝতেন। কর্মজীবনে আমরা একই প্রতিষ্ঠানে একসঙ্গে কাজ করেছি।

‘তার সঙ্গে আমার ফোনেই বেশি কথা হতো’

বিশিষ্ট নাট্যাভিনেতা আবুল হায়াত বলেন-আমি চারদিন ধরে শুটিংয়ের কাজে সিলেটে অবস্থান করছি। এখানে বসেই খবর পাই মূসা ভাই আর নেই। তার মৃত্যু সংবাদ শুনে খারাপ লাগছে। তার সঙ্গে আমার ফোনেই বেশি কথা হতো। আমি যখনি পত্রিকায় লিখেছি- তিনি আমার লেখা পড়ে ফোন দিতেন। দীর্ঘক্ষণ কথা হতো। তিনি একজন বিনয়ী ও ভালো মানুষ ছিলেন।

‘আমাকে রিপোর্টার হিসেবে চাকরি দিয়েছিলেন’

আইটিআই-এর বিশ্ব সভাপতি নাট্যজন রামেন্দু মজুমদার বলেন-তার সঙ্গে আমার ব্যক্তিগত অনুভূতি ও সম্পর্ক আছে। আমি যখন বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এমএ পাস করে বের হই তখন তিনি সেই সময়ের ‘পাকিস্তান অবজারভার’-এ আমাকে কালচারাল রিপোর্টার হিসেবে চাকরি দিয়েছিলেন। সেই থেকে তার প্রতি আমার শ্রদ্ধাবোধ। আমরা দুইজনই যেহেতু নোয়াখালীর। তার সঙ্গে দেখা হলে তাই নোয়াখালীর আঞ্চলিক ভাষায় কথা বলতাম দুজনেই। এবিএম মূসার দীর্ঘ কর্মময় জীবনের দক্ষতা ও নৈপুণ্যে আমি বরাবরই শ্রদ্ধাশীল।

‘তিনি ছিলেন বাংলা সংবাদপত্র জগতের পথিকৃৎ’

স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের কণ্ঠসৈনিক তিমির নন্দী বলেন-এবিএম মূসা ছিলেন স্বাধীনতার পক্ষের বুদ্ধিজীবীদের অন্যতম। দেশের ঐতিহাসিক সংকটময় মুহূর্তে তিনি আমাদের ছেড়ে চলে গেলেন। তিনি ছিলেন বাংলা সংবাদপত্র জগতের পথিকৃৎ। আমি তার মৃত্যুতে শোকাহত। তার আত্মার শান্তি কামনা করছি।

‘তিনি জাতীয়তাবাদী আন্দোলনের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন’

সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সহ-সভাপতি গোলাম কুদ্দুছ বলেন-এবিএম মূসা বঙ্গবন্ধুর সঙ্গে রাজনীতি করেছেন। তিনি জাতীয়তাবাদী আন্দোলনের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন। মৃত্যুর আগে শেষ দুই বছরে তার কিছু কিছু বক্তব্য সবার কাছে গ্রহণযোগ্য না হলেও তার রাজনৈতিক ও সাংবাদিকতা জীবনের জন্য তিনি আজীবন শ্রদ্ধার মানুষ হয়ে থাকবেন। বাংলাদেশের মানুষ তাকে চিরদিন মনে রাখবে।

‘মূসা ভাইয়ের মৃত্যু সংবাদ আমাকে ব্যথিত করেছে’

বিশিষ্ট অভিনেতা ও নির্মাতা আফজাল হোসেন বলেন-আমি শুটিংয়ে বসে খবরটি জেনেছি। মূসা ভাইয়ের মৃত্যু সংবাদ আমাকে ব্যথিত করেছে। আমি তার আত্মার মাগফেরাত কামনা করছি। তিনি ভালো মানুষ ছিলেন। মানুষের মাঝে তিনি তার কর্মময় জীবনের জন্য চিরস্মরণীয় হয়ে থাকবেন।

(দ্য রিপোর্ট/আইএফ-এমএ-এআর/এপি/এনআই/এপ্রিল ০৯, ২০১৪)

পাঠকের মতামত:

SMS Alert

জলসা ঘর এর সর্বশেষ খবর

জলসা ঘর - এর সব খবর