thereport24.com
ঢাকা, শুক্রবার, ১৬ নভেম্বর ২০১৮, ২ অগ্রহায়ণ ১৪২৫,  ৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪০

শ্রমবান্ধব আইন প্রণয়নের আশ্বাস দিলেন মেনন

২০১৪ মে ০১ ১৫:২৪:৪৬
শ্রমবান্ধব আইন প্রণয়নের আশ্বাস দিলেন মেনন

দ্য রিপোর্ট প্রতিবেদক : ২০১৩ সালের শ্রম আইন সংশোধন করে যুগোপযোগী শ্রমবান্ধব আইন প্রণয়নের আশ্বাস দিয়েছেন বেসামরিক বিমান পরিবহন মন্ত্রী রাশেদ খান মেনন।

মতিঝিলস্থ বিমান অফিসের সামনে বৃহস্পতিবার দুপুরে ইমারত নির্মাণ শ্রমিক ইউনিয়ন বাংলাদেশ’র (ইনসাব) উদ্যোগে মহান মে দিবস উপলক্ষে এক শ্রমিক সমাবেশে তিনি এ আশ্বাস দেন।

রাশেদ খান মেনন বলেন, নির্মাণ শ্রমিকদের দাবি নিয়ে ইতোমধ্যে সংসদে কথা বলেছি। আগামীতে নির্মাণ শ্রমিকদের ন্যায়সঙ্গত ১২ দফা দাবি জাতীয় সংসদে উত্থাপন এবং ২০১৩ সালের শ্রম আইন সংশোধন করে যুগোপযোগী শ্রমবান্ধব শ্রম আইন প্রণয়নের চেষ্টা করব।

এ সময় শ্রমিকরা তাদের ১২ দফা দাবি উত্থাপন করেন। দাবিগুলো হল- সরকারি উদ্যোগে রাজধানী ঢাকা শহরে থানা ও ওয়ার্ডভিত্তিক এবং সারাদেশে জেলা ও উপজেলায় নির্মাণ কলোনি স্থাপন করে সুলভ মূল্যে দীর্ঘমেয়াদী লীজ প্রদানের মাধ্যমে নির্মাণ শ্রমিকদের বাসস্থান নিশ্চিত করতে হবে। নির্মাণ ক্ষেত্রে উপযুক্ত কর্মপরিবেশ এবং নির্মাণ শ্রমিকদের পেশাগত স্বাস্থ্য ও নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিশ্চিত করতে হবে। শ্রম আইনের আওতায় নির্মাণ শ্রমিকদের পূর্ণ অধিকার নিশ্চিত করতে হবে। পেনশন বীমা স্কীম চালু, দুর্ঘটনায় নিহত শ্রমিকের ১৭ লাখ টাকা এবং আহত শ্রমিকদের ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ ২১,২৫,০০০ টাকা ক্ষতিপূরণ দিতে হবে।

নির্মাণ শ্রমিকরা তাদের অধিকার বাস্তবায়নে যাতে সহজে আদালতের স্মরণাপন্ন হতে পারে সে লক্ষ্যে প্রত্যেক জেলা উপজেলায় শ্রম আদালত স্থাপন করতে হবে এবং পাওনাদি অধিকার ৪২ দিনের মধ্যে বিচারকাজ সম্পন্ন করতে হবে। শ্রমিক কল্যাণ ফাউন্ডেশনে ইনসাবের প্রতিনিধি অন্তর্ভূক্ত করে তহবিল থেকে নির্মাণ শ্রমিকদের জন্য কল্যাণমুখী কর্মসূচি গ্রহণ করতে হবে। শ্রম আইন সংশোধনী ২০০৬ এর ৩২৩ ধারা মোতাবেক জাতীয় শিল্প স্বাস্থ্য কাউন্সিল গঠনে ইমারত নির্মাণ শ্রমিক ইউনিয়ন বাংলাদেশ’র (ইনসাব) প্রতিনিধি অন্তর্ভূক্ত করতে হবে। নির্মাণ শ্রমিকদের জন্য সস্তা ও সুলভমূল্যে পূর্ণ রেশনিং ব্যবস্থা চালু করতে হবে।

কর্মস্থলে নির্মাণ শ্রমিকরা যাতে সন্ত্রাস, চাঁদাবাজি ও সহিংসতার শিকার না হয় তা নিশ্চিত করতে হবে। সরকারিভাবে প্রশিক্ষণ প্রদান করে শুধু সার্ভিস চার্জ নিয়ে নির্মাণ শ্রমিকদের প্রবাসী কল্যাণ ব্যাংকের মাধ্যমে ঋণ দিয়ে বিদেশে উপযুক্ত কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করতে হবে এবং বর্তমানে বিদেশে কর্মরত নির্মাণ শ্রমিকদের হয়রানি ও দূর্ভোগ বন্ধ করতে হবে। সরকারি উদ্যোগে বিভাগীয় শহরে থানা ভিত্তিক এবং জেলা ও উপজেলায় শ্রম ছাউনি নির্মাণ করতে হবে। নারী নির্মাণ শ্রমিকদের সমকাজে সমমজুরী নিশ্চিত করতে হবে এবং নির্মাণ শ্রমিকদের জন্যও শ্রমিক রেজিষ্ট্রার খাতা রাখার বিধান সকল নির্মাণাধীন ভবনে বাস্তবায়ন করতে হবে।

ইনসাবের সহ-সভাপতি আবুল কাশেমের সভাপতিত্বে উপস্থিত ছিলেন নাজমুল হক প্রধান, হাজী মো. সেলিম, ইনসাবের সাধারণ সম্পাদক মো. আব্দুর রাজ্জাক, কার্যকরি সভাপতি মিজানুর রহমান বাবুল প্রমুখ।

(দ্য রিপোর্ট/এসআর/এসবি/মে ০১, ২০১৪)

পাঠকের মতামত:

SMS Alert

রাজনীতি এর সর্বশেষ খবর

রাজনীতি - এর সব খবর