thereport24.com
ঢাকা, রবিবার, ১৮ নভেম্বর ২০১৮, ৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৫,  ৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪০

মায়ের ঋণ

২০১৪ মে ১১ ১৩:৪৯:৩৬
মায়ের ঋণ

আমজাদ হোসেন, দ্য রিপোর্ট : আমার শৈশবের একটা বিশাল সময় গ্রামে কেটেছে। দুরন্ত শৈশবে আমি তীব্র রোদে ফড়িং ধরতে যেতাম মাঠে। একটা ফড়িংয়ের পিছনে দৌড়াতাম এই মাঠ থেকে ও মাঠে। অবশেষে একটা ফড়িং ধরে বিশ্বজয়ের ভাব নিয়ে এলে মা তার কাপড়ের আঁচল দিয়ে আমার ঘর্মাক্ত মুখ-শরীর মুছে দিত।

আমাদের ছিল যৌথ পরিবার। চাষবাস করে গ্রামের যেসব পরিবার চলত সেই রকমই গেরস্ত পরিবারের সন্তান আমি। ধানের মৌসুমে ফসল যখন ঘরে উঠানোর সময় হত তখন প্রায় দিনরাত কাজ করত আমার মমতাময়ী মা। দিনেরবেলা কাঁচা ধান পুকুরে গোলার মধ্যে রেখে আসত। আবার রাতে সেই ধান সিদ্ধ করা হত। এত ব্যস্ততার মধ্যেও আমার মা আমার পড়ার বিষয়ে এতটুক গাফিলতি করত না। রাতে যখন কাঁচা ধান সিদ্ধ করা হত তখন উঠানে হারিকেন দিয়ে আমাকে পড়ার ব্যবস্থা করত মা।

একবার খেজুর গাছের নিচে গেলে আমার পায়ে কাটা ঢুকে অনেক অংশ কেটে যায়। আমার পায়ের দূর থেকে রক্তাক্ত অবস্থা দেখে মা হন হন করে ছুটে এসে আমাকে ধরে। নিচের কাপড়ের আঁচল ছিঁড়ে আমার রক্তাক্ত পায়ে বেঁধে দেয়। ডাক্তার এসে পায়ে বেশ কয়েকটি সেলাই করেছিল। আমার কোমলমতী মার চোখ থেকে পানির ফোটা টপটপ করে পড়ছিল। আমার সমস্ত ব্যথা নিজের করে নিয়ে সারারাত আমার পাশে বসে ছিল।

এই রকম অসংখ্যা খন্ড খন্ড কথামালা নিয়ে আজকের আমার আমি। সবকিছুর জন্যই মায়ের কাছে আমি ঋণী।

(দ্য রিপোর্ট/এএইচ/এইচএসএম/এনআই/মে ১১, ২০১৪)

পাঠকের মতামত:

SMS Alert

মায়ের জন্য ভালবাসা এর সর্বশেষ খবর

মায়ের জন্য ভালবাসা - এর সব খবর