thereport24.com
ঢাকা, সোমবার, ১৯ নভেম্বর ২০১৮, ৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৫,  ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৪০

ঈদের শুভেচ্ছা : সেকাল-একাল

২০১৪ জুলাই ২৭ ২১:০৩:২৬
ঈদের শুভেচ্ছা : সেকাল-একাল

সোহেল রহমান

উৎসব-পার্বণে কিংবা কোনো বিশেষ দিনে বা উপলক্ষে শুভেচ্ছা জানানোর রেওয়াজ ঠিক কবে থেকে শুরু হয়েছিল এটা বলা কঠিন। তবে এটা ধরে নেওয়া যায় যে, এ উপমহাদেশে বিভিন্ন সময়ে যারা ক্ষমতাসীন ছিলেন (রাজা, বাদশাহ, সম্রাট, সুলতান কিংবা বিভিন্ন অঞ্চলের প্রভাবশালী জমিদার) তারা বিভিন্ন সময়ে কিংবা উপলক্ষে একে অপরের সঙ্গে কুশলাদি বিনিময় করতেন। এসব কুশল বিনিময় হতো মূলত বিশেষ দূত মারফত। কারণ সেই যুগে ডাক যোগাযোগ কিংবা টেলিফোন ছিল না। আর এ সব কুশল বিনিময়ের সঙ্গে থাকত নানা ধরনের উপহার সামগ্রী।

পরবর্তীকালে ইংরেজদের শাসনামলে ‘বড়দিন’ উপলক্ষে খ্রিষ্টান সম্প্রদায়ের পারস্পরিক শুভেচ্ছা বিনিময়ের একটা প্রভাব এ অঞ্চলের জনমানুষের ওপর পড়েছিল। কালের বিবর্তনে এ অঞ্চলের হিন্দু ও মুসলিম সম্প্রদায়ের শিক্ষিত জনগোষ্ঠীর মধ্যেও নিজ নিজ ধর্মীয় উৎসবে শুভেচ্ছা আদান-প্রদানের প্রচলন শুরু হয়। ব্যক্তি পর্যায়ের এ সব শুভেচ্ছা আদান-প্রদান শুরুতে ছিল নিতান্তই মৌখিক কিংবা চিঠিপত্রের মাধ্যমে। পরে এর সঙ্গে যুক্ত হয় ফুল, কার্ড কিংবা চকলেটসহ বিভিন্ন ধরনের বৈচিত্র্য ও আকর্ষণীয় সামগ্রীর।

মুসলিম সম্প্রদায়ের দু’টি বড় উৎসব হচ্ছে দুই ঈদ। ঈদের নামাজের পর কাঁধে কাঁধ ও বুকে বুক মিলিয়ে একে অপরের সঙ্গে কোলাকুলি এবং হাত মেলানোর যে প্রাচীন রীতি এটাই ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময়ের সর্বোৎকৃষ্ট পন্থা।

আমরা যখন ছোট ছিলাম তখন ঈদের দিনে কে কত বেশি জনের সঙ্গে কোলাকুলি করতে পারে— এ ধরনের প্রতিযোগিতা চলত আমাদের মধ্যে। ঈদের শুভেচ্ছাস্বরূপ ছেলেরা তখন তৈরি করত হাতে তৈরি কার্ড। সে সব কার্ডে থাকত নানা রকম ডিজাইন কিংবা ফুলের চিত্র। কখনও বা ব্যবহার করা হত নানা ধরনের উপকরণ। আঠা দিয়ে লাগানো হতো সেগুলো। মেয়েরা দিত ফুল তোলা রুমাল।

তবে এখন এটা না মেনে কোনো উপায় নেই যে, বর্তমান যুগে ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময়ে ঈদ কার্ড একটি অনেক বড় অনুষঙ্গ। ঈদে পরিবার-পরিজন, নিকট আত্মীয়-স্বজন, বন্ধু-বান্ধব ও প্রিয় মানুষকে ঈদ কার্ড দিতে না পারলে মনে হয় ঈদের আনন্দ যেন পূর্ণ হল না। শুধু ব্যক্তিগত পর্যায়েই নয়, সামাজিক-রাজনৈতিক-দাফতরিক এমন কি রাষ্ট্রীয় পর্যায়েও ঈদ কার্ড এখন অপরিহার্য বলা যায়।

কী লেখা থাকে ঈদ কার্ডে

কী লেখে মানুষ ঈদ কার্ডে? ঈদ কার্ড যিনি পাঠান তিনি মূলত প্রাপকের সুন্দর, সুস্থ, দীর্ঘ ও আনন্দময় জীবন কামনা করেন। প্রায় সকল শুভেচ্ছার মূল কথা এটাই। হাজার হাজার, লাখ লাখ কিংবা কোটি কোটি মানুষ শুভেচ্ছার মাধ্যমে এ কথাটাই নানাভাবে, নানা উপমায়, নানা ভাষায় তার প্রিয় মানুষের কাছে ব্যক্ত করেন নিজের মতো করে। পাশাপাশি কেউ কেউ ব্যবহার করেন কোনো কবিতার লাইন কিংবা বিখ্যাত কারও উদ্ধৃতি।

তবে ঈদ কার্ড প্রস্তুতকারক প্রতিষ্ঠানগুলো এখন নানা ধরনের শুভেচ্ছা বাক্য সম্বলিত কার্ড ছাপিয়ে থাকে। ক্রেতারা নিজ নিজ পছন্দ অনুযায়ী এসব কার্ড কিনে নেয়।

কিন্তু একটা সময় ছিল যখন গ্রামের স্বল্প শিক্ষিত তরুণীরা আঁকাবাঁকা অক্ষরে তার প্রিয় মানুষটিকে লিখত—

‘যাও পাখী কহ তারে

সে যেন ভুলে না মোরে।’

কিংবা গ্রামের স্বল্প শিক্ষিত যুবক যখন ঢাকা থেকে তার প্রিয় মানুষকে লেখা চিঠির খামের উপরে লিখত—

‘ডালিমের রস মিছরির দানা

মালিক বিনে খুলতে মানা

যে খুলবে তার দু’ চক্ষু হবে কানা।’

এখনকার শহুরে রেডিমেড ঈদ কার্ডে এ ধরনের নির্মল আন্তরিকতার ছাপ পাওয়া যায় না।

ঈদ কার্ড থেকে ই-মেইল ও ফেস বুক

বর্তমান যুগ কম্পিউটারের যুগ। যোগাযোগের মাধ্যম হিসেবে কম্পিউটার ও ইন্টারনেট গোটা পৃথিবীটাকে মানুষের হাতে এনে দিয়েছে। এর প্রয়োজনীয়তা ও উপকারিতা নিয়ে প্রশ্ন তোলার কোনো অবকাশ নেই। কম্পিউটারের ব্যবহার বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে কাগুজে ঈদ কার্ডের চাহিদা কমছে। ইন্টারনেটে শুভেচ্ছা কার্ডের একাধিক সাইট আছে। এখান থেকে এক বা একাধিক কার্ড বাছাই করে মানুষ বিনামূল্যে পাঠিয়ে দিচ্ছে পৃথিবীর যে কোনো প্রান্তে।

শুধু ই-মেইল নয়, ই-মেইল থেকেও এখন বেশি জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে ফেস বুক, টুইটার, স্কাইপি-ইন্টারনেট ভিত্তিক এ সব সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলো। ছবি, ম্যাসেজ ও শুভেচ্ছা বার্তা পাঠানোর পাশাপাশি চ্যাটিং-এর কারণে এ সব সাইট এখন অসম্ভব জনপ্রিয়। মোবাইলে ইন্টারনেট ব্যবহারের মাধ্যমে এ সব সাইট আরও বেশি জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে।

অতঃপর মোবাইলে এসএমএস

তবে সব কিছুর ওপরে এখন মোবাইল। এই ক্ষুদে যন্ত্রটির ব্যবহার এখন সবচেয়ে বেশি। মোবাইলের বাটন টিপে মানুষ এখন ইচ্ছে করলে যে কোনো সময় তার প্রিয় মানুষটির কণ্ঠ শুনতে পারে, পাঠাতে পারে একান্ত নিজস্ব শুভেচ্ছা ও বার্তা, যা একটা সময় কল্পনা করাও সম্ভব ছিল না। চান রাতে ১টার দিকে এক যুবক তার প্রিয় মানুষটিকে এই বলে শুভেচ্ছা বার্তা পাঠাচ্ছে যে, ‘ঈদের চাঁদকে ঈদের শুভেচ্ছা।’ এটা কি এসএমএস ছাড়া সম্ভব?

পাঠকের মতামত:

SMS Alert

মুক্তমত এর সর্বশেষ খবর

মুক্তমত - এর সব খবর