thereport24.com
ঢাকা, শনিবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৬ আশ্বিন ১৪২৫,  ১১ মহররম ১৪৪০

‘গল্পের ভেতরের সত্য তুলে আনাই কর্তব্য’

২০১৪ আগস্ট ০৬ ১১:২৩:৩৭
‘গল্পের ভেতরের সত্য তুলে আনাই কর্তব্য’

বুধবার বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের প্রয়াণ দিবস। এ দেশে রবীন্দ্রনাথের সাহিত্য থেকে অনেক নাটক নির্মিত হয়েছে। ১৯৯৮ সাল থেকে মঞ্চাভিনয়ের পাশাপাশি নাটক পরিচালনায় হাত দেন নাহিদ আহমেদ পিয়াল। সাহিত্যপ্রেমী এই পরিচালক রবীন্দ্রনাথের উপন্যাস থেকে ধারাবাহিক এবং ছোটগল্প থেকে খন্ড নাটক নির্মাণ করেছেন। দ্য রিপোর্টের সঙ্গে আলাপচারিতায় অংশ নিয়েছেন নাহিদ আহমেদ পিয়াল। সাক্ষাৎকারটি নিয়েছেন ইসহাক ফারুকী

রবীন্দ্রসাহিত্য নিয়ে প্রথম কোন নাটকটি নির্মাণ করলেন?

-শেষকথা। এটি ২০০৫ সালে এনটিভিতে প্রচার হয়েছে। এর আগে রবীন্দ্রসাহিত্য নিয়ে কাজ করব চিন্তা করিনি। তবে সাহিত্যনির্ভর নাটক বানাতাম। ১৯৯৮ সালে রশীদ করিমের সাহিত্য নিয়ে প্রসন্ন পাষাণ নাটকটি পরিচালনা করেছি। ২০০৫ এর দিকে বেশ তাড়াহুড়া করেই শেষ কথা নাটকটি নির্মাণ করতে হয়েছিল। সেসময় এনটিভিতে গল্পকথার নাটক নামে সাহিত্যনির্ভর নাটকের সিরিজ চলছিল। তখন আমাকে বলা হলো, রবীন্দ্রসাহিত্য নিয়ে নাটক বানাতে হবে। ভেবে দেখলাম, কোন গল্পটি তখনও নির্মাণ করা হয়নি। সে নাটকে অভিনয় করেছিলেন আতাউর রহমান, মীর সাব্বির, জয়া আহসান।

দেখা যায়, ঘুরে ফিরে রবীন্দ্রনাথের পরিচিত গল্পগুলো নিয়ে নাটক বানানো হয়, একই গল্প অনেকেই পরিচালনা করেন। এ সব ছাড়াও তো রবি বাবুর অনেক গল্প, কবিতা রয়ে গেছে-

-যারাই পরিচালনা করেন তারা নিজের পছন্দের গল্পটি বেছে নেন। ৩/৪ বার করলেও আপত্তি নেই। যে যার দৃষ্টিভঙ্গি প্রকাশ করছেন। আর গল্পটিকে তার মতো ব্যাখ্যা করছেন। তা ছাড়া সাহিত্যনির্ভর কাজ করতে গেলে বাজেট, সীমাবদ্ধতা থাকে। যেমন. একরাত্রি গল্পটিতে জলোচ্ছ্বাসের বিষয়টি রয়েছে। এক ঘণ্টার নাটকের জন্য এসব আয়োজন খরচান্তের ব্যাপার। তবে যেসব গল্প নিয়ে নাটক হয়নি। সেগুলো বুঝেশুনে করলে ভালো।

আপনার পরিচালিত কতগুলো নাটক রবীন্দ্রসাহিত্য থেকে নেওয়া?

-চার অধ্যায় নিয়ে ৮ পর্ব, নৌকাডুবি নিয়ে ৪০ পর্ব, যোগাযোগ নিয়ে ৪০ পর্বের ধারাবাহিকসহ ১৪/১৫টি খণ্ড নাটক পরিচালনা করেছি।

আপনার মাধ্যমে দর্শকরা রবীন্দ্রসাহিত্যকে টিভি পর্দায় দেখছে। কতটুকু ফুটিয়ে তুলতে পেরেছেন?

-এটা আমি জানি না। জানতেও পারব না। তবে আমি মনে করি, যেটা আমার কাছে পরিষ্কার, সেটা দর্শকের কাছেও পরিষ্কার থাকবে। যা বলতে চাই- পরিষ্কার করে বলতে চাই।

সাহিত্যনির্ভর কাজ করতে যেরকম বড় আয়োজন দেখা যায় তার কতটুকু করতে পারছেন?

-৪০ মিনিট সময়কাল ধরা অত সহজ নয়। চলচ্চিত্র বা ধারাবাহিকে সেট, প্রপসের ব্যাপারে আলাদা করে ভাবা যায়। কিন্তু এক ঘণ্টার নাটকে তেমন বাজেট থাকে না। তাই সেটের বেলায় আমাদের বেশকিছু পরিচিত লোকেশন আছে, সেখানে শুটিং করি। আর আমার ধারাবাহিকের জন্য যেসব পুরো জিনিস কিনেছিলাম তাই প্রপস হিসেবে এক ঘণ্টার নাটকে ব্যবহার করছি।

রবীন্দ্রসাহিত্য নিয়ে কাজ তো তাহলে অনেক ঝক্কি?

-হ্যা। তবে বাজেট ও সীমাবদ্ধতার কথা ভেবে গল্প বাছাই করতে হবে। আর রবীন্দ্র নাটকে যে বেশি টাকা ব্যয় করতে হবে সেটা কিন্তু না।

রবীন্দ্রনাথের ভাবনা একরকম, আপনারটা অন্যরকম। দুজনের ভাবনার সম্মিলন হয় কিভাবে?

-গল্পটি আকৃষ্ট করা মানে লেখকের কোন একটি চরিত্র, দর্শন, চিন্তা-কোন না কোন বিষয় ভাল লেগেছে। পরে লেখকের চিন্তার সঙ্গে মিল রেখে ভাবনাকে প্রাধান্য দিয়ে কাজটি করি। আর নতুন কিছু যুক্ত করতে চাইলে করা হয় বা পটভূমি ঠিক রেখে ভাবনাটিকে নিজের মতো উপস্থাপন করা হয়। তবে অবশ্যই আমাদের বক্তব্যে জোর থাকতে হবে। লেখক যা বলে গেছেন তার ওপর আমি বলব? গল্পের ভেতরের সত্যটি তুলে আনাই কর্তব্য।

নাটকে রবীন্দ্রনাথের গল্প, উপন্যাস, কবিতা চলে এসেছে। আর কি আনা যায়?

-উপন্যাস নিয়ে এক ঘণ্টার নাটক হতে পারে। কবিতা, শিশুতোষ সাহিত্য, রবীন্দ্রভাবনা, প্রবন্ধ থেকেও নাটক বানানো যেতে পারে। তিনি তার ব্রতধারণ প্রবন্ধে লিখেছিলেন, ‘জনৈকা নারী কর্তৃক নারী সভায় পঠিত, নারীরা অবগুণ্ঠিত…’-এই বিষয়টিকে তুলে ধরে নাটক নির্মাণ করা যায়।

রবীন্দ্রসাহিত্যের কোন নারী আপনাকে আকর্ষণ করে?

-এটা অনেক জটিল ব্যাপার। তবে গোরা উপন্যাসের সুচরিতা চরিত্রটি অনেক বেশি শক্তিশালী। তাকে অনেকভাবে বিশ্লেষণ করা যায়।

(দ্য রিপোর্ট/আইএফ/এনআই/আগস্ট ০৬, ২০১৪)

পাঠকের মতামত:

SMS Alert

জলসা ঘর এর সর্বশেষ খবর

জলসা ঘর - এর সব খবর



রে