thereport24.com
ঢাকা, শুক্রবার, ৩০ অক্টোবর ২০২০, ১৪ কার্তিক ১৪২৭,  ১৩ রবিউল আউয়াল 1442

চীনা ঋণ বাতিলের আশংকা

২০১৩ ডিসেম্বর ০৬ ০২:২২:৫৪
চীনা ঋণ বাতিলের আশংকা

জোসনা জামান, দ্য রিপোর্ট : বিদ্যুৎকেন্দ্র স্থাপনের জন্য চীনের কাছ থেকে পেতে যাওয়া প্রায় এক হাজার ৮৩৫ কোটি ৫৭ লাখ টাকা ঋণ বাতিলের আশংকা দেখা দিয়েছে। সময়মতো জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটিতে (একনেক) প্রকল্প অনুমোদন না হওয়ায় এ আশংকা করছেন সংশ্লিষ্টরা।

এক্সটেনশন অফ বড়পুকুরিয়া কোল ফায়ার্ড থার্মাল পাওয়ার স্টেশন বাই ২৭৫ মেগাওয়াট (তৃতীয় ইউনিট) প্রকল্পের বিপরীতে এ ঋণ দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল ইন্ডাস্ট্রিয়াল অ্যান্ড কর্মাশিয়াল ব্যাংক অব চায়না (আইসিবিসি)।

এ বিষয়ে বিদ্যুৎ বিভাগের সচিব মনোয়ার ইসলাম দ্য রিপোর্টকে জানান, প্রকল্পটি অনুমোদন দ্রুত হলে ভাল হতো। তবে একেবারেই যে চীনা ব্যাংক ঋণ বাতিল করবে সেটি সরাসরি বলা যায় না।

চীনের দায়িত্বপ্রাপ্ত অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগের যুগ্ম-সচিব ও এশিয়া শাখার প্রধান আসিফ উজ জামান দ্য রিপোর্টকে বলেন, ‘প্রকল্পটির বর্তমান অবস্থা সম্পর্কে মন্ত্রণালয়ই ভাল বলতে পারবে। আমরা ঋণ ম্যানেজ করে দিয়েছি। প্রকল্পটি একনেকের বৈঠকে অনুমোদন না হওয়ায় স্বাভাবিক কারণেই এ ঋণের প্রক্রিয়া বাঁধাগ্রস্ত হতে পারে।’

বিদ্যুৎ বিভাগ জানায়, প্রস্তাবিত এ প্রকল্পটি বাস্তবায়নে মোট ব্যয় ধরা হয়েছে দুই হাজার ৬৮৭ কোটি ৯৪ লাখ টাকা। এর মধ্যে ইন্ডাস্ট্রিয়াল অ্যান্ড কর্মাশিয়াল ব্যাংক অব চায়না (আইসিবিসি) ঋণ হিসেবে দেবে এক হাজার ৮৩৫ কোটি ৫৭ লাখ টাকা, বাংলাদেশ সরকারের নিজস্ব তহবিল থেকে ৬৪৮ কোটি ৩৩ লাখ টাকা এবং বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড ব্যয় করবে ২০৪ কোটি চার লাখ টাকা।

অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগ জানায়, গত ২৪ ফেব্রুয়ারি অনুষ্ঠিত সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির বৈঠকে টেন্ডার্স ফাইন্যান্সিংয়ের অর্থায়নের বড়পুকুরিয়া ২৭৫ মেগাওয়াট ক্ষমতাসম্পন্ন কয়লা ভিত্তিক তাপ বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণ প্রকল্পটি টার্নকি ভিত্তিতে বাস্তবায়নের জন্য সর্বনিম্ন দরদাতা জয়েন্ট ভেনচার হারবিন ইলেকট্রিক ইন্টারন্যাশনাল কোম্পানি লিমিটেড এবং সিসিসি ইঞ্জিনিয়ারিং পিআর চায়নার দরপ্রস্তাব অনুমোদন দেওয়া হয়।

এর আগে ২০১২ সালের ১১ এপ্রিল অর্থবিভাগ প্রকল্পটি টেন্ডার্স ফাইন্যান্সিংয়ের মাধ্যমে বাস্তবায়নের জন্য বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের পক্ষে সভরেন গ্যারান্টি দেওয়ার বিষয়ে নীতিগত অনুমোদন দিয়েছিল।

কিন্তু একনেকে প্রকল্পটি অনুমোদন না হওয়ায় চীন অর্থায়নকারী ব্যাংক শেষ পর্যন্ত পিছিয়ে যেতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে। ইতোমধ্যেই ব্যাংকের পক্ষ থেকে তাগিদ দেওয়া হয়েছে বলেও জানা গেছে।

বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, বিদ্যুৎ বিভাগ কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎ উৎপাদনের লক্ষ্যে এ প্রকল্পটি অনুমোদন প্রক্রিয়ার জন্য পরিকল্পনা কমিশনে প্রস্তাব পাঠায়। গত ২৭ জুলাই প্রকল্পটির ওপর প্রকল্প মূল্যায়ন কমিটির (পিইসি) সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভার সিদ্ধান্ত মতে প্রকল্প প্রস্তাব সংশোধন করে পুনরায় পরিকল্পনা কমিশনে পাঠানো হয়।

কিন্তু একনেকে উপস্থাপনের যাবতীয় প্রস্তুতি শেষ করা হলেও জাতীয় নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা হওয়ায় একনেক স্থগিত হয়ে যায়। ফলে প্রকল্পটি অনুমোদন আটকে গেছে। আর এ প্রকল্প অনুমোদন দেরি হওয়ার ফলে শেষ পর্যন্ত চীনের অর্থায়নকারী ব্যাংক ঋণ দেওয়া থেকে পিছিয়ে যেতে পারে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।

(দ্য রিপোর্ট/জেজে/এআইএম/এমডি/ডিসেম্বর ০৫, ২০১৩)

পাঠকের মতামত:

SMS Alert

অর্থ ও বাণিজ্য এর সর্বশেষ খবর

অর্থ ও বাণিজ্য - এর সব খবর