thereport24.com
ঢাকা, শনিবার, ১৭ নভেম্বর ২০১৮, ৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৫,  ৮ রবিউল আউয়াল ১৪৪০
নিলুফার সীমা

অতিথি লেখক

রোনালদোকে গোলে জবাব মেসির

২০১৪ নভেম্বর ০৭ ২২:২৫:১৮
রোনালদোকে গোলে জবাব মেসির

মেসির আগেই আমি ছুঁয়ে ফেলব রাউলের রেকর্ড- মাত্র কিছুদিন আগেই বলা ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোর এই উক্তিটি এখন শুধুই অতীত। কেননা তার আগেই লিওনেল মেসি চ্যাম্পিয়ন্স লিগে সর্বোচ্চ গোলদাতা রাউলকে ছুঁয়ে ফেলেছেন। চারবার ব্যালন ডি’অর হাতছাড়া হয়ে যাওয়া, এল ক্লাসিকোয় হার; সবকিছুই যেন শুধু ব্যর্থতার দিকেই অঙ্গুলি নির্দেশ করছিল। কোথাও যেন ঠিক নিজেকে প্রমাণ করতে পারছিলেন না মেসি। আর তার পরেই এই সাফল্য অবশেষে ইউরোপিয়ান ফুটবলে সর্বোত্তম টিআরপির বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে। সিআর সেভেন নয়, রাউলের ৭১ চ্যাম্পিয়ন্স লিগ গোলের রেকর্ডে আগে পৌঁছেছেন এলএম টেন। এখানেই পেছনে পড়ে গেছেন ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো।

লিওনেল মেসি-রোনালদো লড়াই অনেক পুরনো। দু’জনই ছুটছিলেন প্রায় সমগতিতে। কে কাকে পেছনে ফেলছেন তাই হচ্ছিল মিডিয়াগুলোর শিরোনাম। বুধবার রাতে আয়াক্সের বিপক্ষে বার্সার হয়ে ২-০ গোল করে একটু থমকে দাঁড়ানো মেসি ফের এগিয়ে গেছেন। ওই গোল দু’টিই মেসিকে আলোচনার শীর্ষে নিয়ে এসেছে। তবে এই শ্বাসরুদ্ধকর সাফল্যের পরে মেসি বলেছেন, ‘আমার দুটি গোলকে ধন্যবাদ। তবে আমি রেকর্ড ছুঁয়েছি বলে নয়; আমার গোলে আমাদের দল জিতেছে বলে। নকআউটে পৌঁছে গেছে বলে। ওটাই খুশির আসল কারণ।’

এই কথা দিয়ে মেসি আবারও প্রমাণ করলেন যে, সে সবার থেকে আলাদা। তাই তো প্রচারমাধ্যম ইউরোপিয়ান ফুটবলের সর্বোচ্চ সিংহাসনে বসিয়ে দিয়েছে মেসিকে। না; ভেতরে ভেতরে জ্বলছিলেন আধুনিক ফুটবলের কিংবদন্তি লিওনেল মেসি। ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোকে পেছনে ফেলার দিনে মিডিয়া জেঁকে ধরেছিল মেসিকে। ঘুরেফিরে ওই পুরনো কথাই টানার চেষ্টা করেছে। কিন্তু হ্যাস্যোজ্জ্বল মেসি তা এক ভলিতে উড়িয়ে দিয়ে বলেছেন, ‘ভাগ্যক্রমে আমরা জিতেছি এবং খুশি মনে বাড়ি ফিরতে পারছি। ওরাই (আয়াক্স) ভালো খেলেছে। আমাদের গোটা মাঠ ছুটিয়ে মেরেছে। তার মধ্যেই দুটি গোল করতে পেরেছি, দলকে জেতাতে পেরেছি বলে আরও বেশি ভালো লাগছে।’

ক্লাব ফুটবলে রাজসিক আসরের নাম চ্যাম্পিয়ন্স লিগ। সেখানে এখন সর্বোচ্চ গোলদাতার তালিকায় প্রথম মেসি (৯০ ম্যাচে ৭১ গোল), রাউল (১৪২ ম্যাচে ৭১ গোল) এবং রোনালদো (১০৭ ম্যাচে ৭০ গোল)। তবে এখানেও মেসি ব্যতিক্রম। কারণ তিনি এক ক্লাবের জার্সিতে সব গোল করেছেন।

মেসির এই ৭১ গোলের মধ্যে সবচেয়ে বেশি গোল করেছেন এসি মিলানের বিপক্ষে; ৮টি। আর তার পরেই আয়াক্সের বিপক্ষে ৬টি। এ ছাড়াও একটি চ্যাম্পিয়ন্স লিগ ম্যাচে মেসি সর্বোচ্চ ৪টি গোলও করেছেন একবার। চলতি মাসের শেষ সপ্তাহে সিআর সেভেন এবং এলএম টেন-এর চ্যাম্পিয়ন্স লিগ আবার শুরু হতে যাচ্ছে। ২৫ নভেম্বর টুর্নামেন্টে বার্সার পরের ম্যাচ আপোয়েলের সঙ্গে। এই ম্যাচে এক গোল করলেই মেসির একক দখলে এসে যাবে চ্যাম্পিয়ন্স লিগে সর্বোচ্চ গোলদাতার রেকর্ড। তবে তার আগের রাতেই (২৪ নভেম্বর) বাসেলকে রিয়ালের রোনালদো কটি গোল দিয়ে মেসিকে চ্যালেঞ্জে ফেলতে পারেন, তাই দেখার বিষয়। তবে আপাতত গোলের রাজা হিসেবে মেসিকেই অধ্যুষিত করা হয়েছে।

বিষয়টি একটি ধন্ধে আটকে যাচ্ছে। এটা বলতে দ্বিধা নেই যে, এই দুইয়ের লড়াই থাকছে আরও। একবার মেসি রোনালদোকে টপকে গেছেন তো নতুন সমীকরণের মুখেও পড়তে পারেন তারা। সেখানে ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো ফের মোটা শিরোনাম হলে অবাক হওয়ার কিছুই থাকবে না।

(দ্য রিপোর্ট/এনএস/এএস/জেডটি/এজেড/নভেম্বর ০৭, ২০১৪)

পাঠকের মতামত:

SMS Alert

তারকা কথন এর সর্বশেষ খবর

তারকা কথন - এর সব খবর