thereport24.com
ঢাকা, শনিবার, ১৫ ডিসেম্বর ২০১৮, ৩০ অগ্রহায়ণ ১৪২৫,  ৬ রবিউস সানি ১৪৪০

হুমায়ূন আহমেদ আমার কাছে জীবন্ত : জয়ন্ত চট্টোপাধ্যায়

২০১৪ নভেম্বর ১৩ ০৪:৩৩:১৫
হুমায়ূন আহমেদ আমার কাছে জীবন্ত : জয়ন্ত চট্টোপাধ্যায়

বাংলা সাহিত্যের নন্দিত কথাসাহিত্যিক হুমায়ূন আহমেদ। তিনি ছিলেন একাধারে ঔপন্যাসিক, গল্পকার, নাট্যকার ও গীতিকার। নাটক ও চলচ্চিত্র পরিচালক হিসেবেও তিনি সমাদৃত হয়েছিলেন।

দীর্ঘ কর্মযাত্রায় অসংখ্য মানুষ হুমায়ূন আহমেদের সান্নিধ্য পেয়ে নিজেদের সমৃদ্ধ করেছেন। অভিনেতা ও সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব জয়ন্ত চট্টোপাধ্যায় তাদের মধ্যে অন্যতম। হুমায়ূন আহমেদের বেশকিছু নাটক ও চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন জয়ন্ত চট্টোপাধ্যায়। দ্য রিপোর্টের সঙ্গে আলাপচারিতায় সেই গল্পই শুনিয়েছেন তিনি। আলাপচারিতার কিছু অংশ তুলে ধরছেন ইসরাত জাহান তমা

আপনার কাছ থেকে হুমায়ূন আহমেদ সম্পর্কে জানতে চাই

হুমায়ূন আহমেদ এক বৃহৎ পরিসরের মানুষ। তার সম্পর্কে মুখে কয়েকটা কথা বলে শেষ করা যাবে না। উনি সবার সঙ্গে খুব আন্তরিক ছিলেন। উনার সঙ্গে এক পরিবার হয়ে কাজ করেছি আমরা। উনাকে কখনই দূরের মনে হয়নি। তবে আজ উনার অনুপস্থিতি খুব পীড়া দেয় আমাদের। নয় নম্বর বিপদ সংকেত এবং সর্বশেষ ঘেটুপুত্র কমলাতে কাজ করার স্মৃতিগুলো আজ খুব মনে পড়ে।

সেই স্মৃতির কিছু অংশ কি আমাদের সঙ্গে বলা যায়?

স্মৃতিগুলো স্মৃতি হয়েই থাক না। কিছু কথা না বলাই থাক। হুমায়ূন আহমেদকে নিয়ে স্মৃতিচারণ করতে ভালো লাগে না। তিনি সব সময়ই আমার কাছে বর্তমান। স্মৃতিচারণ করতে গেলেই মনে হয়, তিনি আমাদের মাঝে নেই। হুমায়ূন আহমেদ আমার কাছে জীবন্ত। আমার চলমান জীবনযাত্রায় তাকে খুবই অনুভব করি। প্রায়ই তাকে মনে পড়ে।

পরিচালক হুমায়ূন আহমেদ কেমন ছিলেন ?

হুমায়ূন আহমেদ খুব বন্ধুত্বপূর্ণ ব্যক্তিত্ব ছিলেন। তাই বলে যে শুটিংয়ে তিনি কাউকে কিছু বলতেন না বা বকা দিতেন না, তা নয়। তবে তার রাগ স্থায়ী হতো সর্বোচ্চ তিন মিনিট। তিনি অভিভাবকের মতো শাসন করতেন আবার বন্ধুর মতো বোঝাতেন। আমার কাছে সবচেয়ে মজার ব্যাপার হলো- হুমায়ূন আহমেদ তার প্রায় প্রতিটি নাটক বা চলচ্চিত্রেই শিশু চরিত্র রাখার চেষ্টা করতেন। তাও একজন-দুজন নয়; সম্ভব হলে অনেক। তিনি শুটিংয়ের ফাঁকে তাদের সঙ্গে খেলা করতে, স্নান করতে খুব ভালোবাসতেন। এমনও হয়েছে, তিনি শিশুদের নিয়ে তবেই খেতে বসেছেন।

হুমায়ূন আহমেদের সঙ্গে করা কাজগুলোর মধ্যে আপনার প্রিয় চরিত্র কোনটি?

প্রিয় চরিত্রতো অনেক আছে। তবে সবচেয়ে পছন্দের চরিত্র হলো ‘ঘেটুপুত্র কমলা’য় ঘেটুর বাবা আর ধারাবাহিক নাটক ‘কালা কইতর’র মজিদ কসাই। এ দুটি চরিত্রই অসাধারণ লেগেছে আমার কাছে। এ ছাড়াও পছন্দের আরও অনেক চরিত্র রয়েছে। হুমায়ূন আহমেদ চরিত্রগুলোকে এতটাই জীবন্ত করে তুলতেন যে, মনে হতো সবগুলো চরিত্রই প্রিয়।

৬৬তম জন্মদিনে হুমায়ূন আহমেদকে কীভাবে স্মরণ করবেন?

হুমায়ূন আহমেদের জন্মদিনটি একটি বিশেষ দিন। এই দিনে তাকে নিয়ে বাংলাভিশন ও রেডিও স্বাধীনে অনুষ্ঠান রয়েছে। এই অনুষ্ঠানে আমি উপস্থিত থাকব। এ ছাড়া চ্যানেল আইয়ের হুমায়ূন মেলাতে থাকব। তবে এ সবের চেয়ে বড় হলো হুমায়ূন আহমেদকে মন থেকে স্মরণ করা। আর আমি প্রতিনিয়তই উনাকে মন থেকে স্মরণ করি। তার অস্তিত্ব আমার মাঝে বিরাজমান।

আপনাকে অনেক ধন্যবাদ

তোমাকেও ধন্যবাদ। দ্য রিপোর্ট পরিবারের জন্য শুভকামনা।

(দ্য রিপোর্ট/পিএস/এইচএইচ/এজেড/নভেম্বর ১৩, ২০১৪)

পাঠকের মতামত:

SMS Alert

জলসা ঘর এর সর্বশেষ খবর

জলসা ঘর - এর সব খবর