thereport24.com
ঢাকা, শুক্রবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৫ আশ্বিন ১৪২৫,  ১০ মহররম ১৪৪০

নাটোর মুক্ত দিবস ২১ ডিসেম্বর

২০১৩ ডিসেম্বর ২১ ০৭:৫৫:০৩
নাটোর মুক্ত দিবস ২১ ডিসেম্বর

নাটোর সংবাদদাতা : ২১ ডিসেম্বর নাটোর মুক্ত দিবস। ঢাকাসহ দেশের অধিকাংশ এলাকা ১৯৭১ সালের ১৬ ডিসেম্বর হানাদারমুক্ত হলেও সর্বশেষ অঞ্চল হিসেবে এদিন মুক্ত হয় নাটোর। তৎকালীন গভর্নর হাউজ বর্তমান উত্তরা গণভবনে মিত্র বাহিনীর কমান্ডার ব্রিগেডিয়ার রঘুবীর সিং পান্নুর কাছে পাকবাহিনী এবং মিলিশিয়াসহ প্রায় সাড়ে ৭ হাজার সৈন্য নিয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে আত্মসমর্পণ করেন নাটোর সেনা গ্যারিসনের ব্রিগেডিয়ার নওয়াব আহমেদ আশরাফ।

এ সময় নাটোর সেনা গ্যারিসনের কমান্ডেন্ট মেজর জেনারেল নজর হোসেন শাহ ও মিত্র বাহিনীর পক্ষে উপস্থিত ছিলেন ভারতের পূর্বাঞ্চলীয় কমান্ডের কমান্ডেন্ট লে. জেনারেল লছমন সিং। আনুষ্ঠানিকভাবে আত্মসমর্পণের পর পাক সেনাদের ট্যাঙ্ক, কামানসহ প্রায় ১১ হাজার অস্ত্র মিত্র বাহিনীর হস্তগত হয়।

মুক্তিযুদ্ধকালীন ঢাকার পর নাটোর ছিল পাক সেনাদের দ্বিতীয় হেড কোয়ার্টার। এখান থেকেই দেশের উত্তর ও দক্ষিণাঞ্চলের যুদ্ধ পরিচালনা করতো পাকবাহিনী। এ কারণে উত্তর ও দক্ষিণাঞ্চলের পরাজিত পাক সেনারা পালিয়ে এসে অবস্থান নেয় নাটোরে।

গণভবন ছাড়াও নাটোর আনছার হেডকোয়ার্টার, নবাব সিরাজ-উদ-দৌলা কলেজ, নাটোর রাজবাড়ি, পিটিআই ও বর্তমান উপজেলা পরিষদ কার্যালয় ছিল পাক সেনাদের নিরাপদ ঘাটি। ২১ ডিসেম্বর আত্মসমর্পণের আগ পর্যন্ত পুরো নাটোর ছিল তাদের দখলে। আত্মসমর্পনের খবর পেয়ে এদিন বিকেলে আনন্দে জয় বাংলা ধ্বনি দিয়ে রাস্তায় বেরিয়ে আসেন সাধারণ মানুষ।

নাটোরে রক্তক্ষয়ী যুদ্ধ না হলেও হয়েছে অনেক গণহত্যা। তবে সেসব গণকবরের সরকারি স্বীকৃতি আজও মেলেনি। সরকারিভাবে তৈরি হয়নি কোনো স্মৃতিসৌধ।

(দ্য রিপোর্ট/এনএইচ/এইচকে/জেএম/লতিফ/ডিসেম্বর ২১, ২০১৩)

পাঠকের মতামত:

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

M

M

SMS Alert

বিজয়ের মাস এর সর্বশেষ খবর

বিজয়ের মাস - এর সব খবর



রে