thereport24.com
ঢাকা, রবিবার, ২৩ জুলাই ২০১৭, ৮ শ্রাবণ ১৪২৪,  ২৮ শাওয়াল ১৪৩৮

যে কারণে প্রধানমন্ত্রীর সামনে এলেন না বিএনপি নেতারা

২০১৫ জানুয়ারি ২৫ ১৫:১১:০৬
যে কারণে প্রধানমন্ত্রীর সামনে এলেন না বিএনপি নেতারা

দ্য রিপোর্ট প্রতিবেদক : ছোট ছেলে আরাফাত রহমান কোকোর মৃত্যুতে শোকে মুহ্যমান বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে সমবেদনা জানাতে শনিবার রাতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গুলশান কার্যালয়ে যান।

কিন্তু কার্যালয়ের গেট বন্ধ থাকায় এবং কেউ গেট না খোলায় খালেদা জিয়ার সঙ্গে দেখা করতে পারেননি প্রধানমন্ত্রী। সেখানে পাঁচ-সাত মিনিট অবস্থান করে চলে যান তিনি।

এ সময় গুলশান কার্যালয়ে বিএনপির প্রথম সারির সিনিয়র নেতারা অবস্থান করলেও কেউ প্রধানমন্ত্রীর সামনে আসেননি। তাকে অভ্যর্থনাও জানাননি।

৩ জানুয়ারি থেকে গুলশানে রাজনৈতিক কার্যালয়ে অবস্থান করছেন খালেদা জিয়া। সেখানে বসে ছোট ছেলের মৃত্যুর খবর পান তিনি। মালয়েশিয়ার রাজধানী কুয়ালালামপুরে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে শনিবার দুপুরে মৃত্যুবরণ করেন কোকো। ছোট ছেলের মৃত্যুতে ভেঙে পড়েছেন খালেদা জিয়া।

তাকে সান্ত্বনা ও সমবেদনা জানাতে সেখানে আগে থেকে অবস্থান করছিলেন বিএনপির সর্বোচ্চ নীতি নির্ধারণী ফোরাম জাতীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. আর এ গণি, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, ব্যারিস্টার জমির উদ্দিন সরকার, বেগম সারোয়ারী রহমান, নজরুল ইসলাম খান, ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল্লাহ আল নোমান, সেলিমা রহমান, চেয়াপারসনের উপদেষ্টা আব্দুল কাইয়ুম, চেয়ারপারসনের প্রেস সচিব মারুফ কামাল খান।

শোকে মুহ্যমান এক মাকে সমবেদনা জানাতে আরেক মা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রাত সাড়ে ৮টার দিকে গুলশান কার্যালয়ে যান। কিন্তু খালেদা জিয়ার সঙ্গে দেখা হয়নি শেখ হাসিনার।

যদিও বিএনপির পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, ওই সময় ঘুমের ইনজেকশনের প্রভাবে খালেদা জিয়া অচেতন থাকায় তার সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর দেখা হয়নি। তাই শোকের মতো বিষয় নিয়ে নোংরা রাজনীতি না করতে অনুরোধ জানানো হয়।

ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ এ বিষয়টিকে শিষ্টাচার বিবর্জিত বলে নিন্দা জানায়।

এ নিয়ে গণমাধ্যম, রাজনৈতিক বোদ্ধা, সুশীল সমাজ ও সচেতন মানুষ আলোচনা-সমালোচনায় মুখর হয়ে উঠেন।

গণমাধ্যম কর্মীদের প্রশ্নের জবাবে ব্যারিস্টার মওদুদ বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকে এ ব্যাপারে শিমুল বিশ্বাসের সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়েছে। এ ব্যাপারে যা বলার শিমুলই বলেছে।’

বিএনপি সূত্রে জানা যায়, আরাফাত রহমান কোকো বিএনপির রাজনীতির সঙ্গে সরাসরি সম্পৃক্ত না থাকায় খালেদা জিয়ার মতামত না নিয়ে দলের সিনিয়র নেতারা প্রধানমন্ত্রীর সাক্ষাতের বিষয়ে কোনো সিদ্ধান্ত নিতে দ্বিধাগ্রস্ত হয়ে পড়েন। শোকে কাতর খালেদা জিয়ার মানসিক অবস্থা তখন কোনো ধরনের সিদ্ধান্ত দেওয়ার পক্ষেও ছিল না। যে কারণে কোনো নেতাই বিষয়টি নিয়ে তার মতামত নিতেও যাননি।

সূত্রটি আরও দাবি করে, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে বিএনপি চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে যাওয়ার বিষয়ে সকল যোগাযোগ করা হয় শিমুল বিশ্বাসের সঙ্গে। দলের সিনিয়র কোনো নেতাই এ ব্যাপারে অবগত ছিলেন না।

(দ্য রিপোর্ট/টিএস/এসবি/এইচএসএম/আরকে/জানুয়ারি ২৫, ২০১৫)

পাঠকের মতামত:

SMS Alert

রাজনীতি এর সর্বশেষ খবর

রাজনীতি - এর সব খবর



রে