thereport24.com
ঢাকা, রবিবার, ১৮ নভেম্বর ২০১৮, ৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৫,  ৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪০

বাংলাদেশ মিশনে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উদযাপন

২০১৫ ফেব্রুয়ারি ২১ ১৫:২৬:৩৪
বাংলাদেশ মিশনে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উদযাপন

নিউইয়র্ক প্রতিনিধি : নিউইয়র্কে বাংলাদেশের স্থায়ী মিশনে স্থানীয় সময় শুক্রবার বিভিন্ন অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উদযাপিত হয়। একুশের প্রথম প্রহর রাত ১২ টা ১ মিনিটে মিশনে স্থাপিত শহীদ মিনারে মিশনের পক্ষে স্থায়ী প্রতিনিধি ড. এ. কে. আব্দুল মোমেন ফুল দিয়ে ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। নিউইয়র্ক কনস্যুলেট জেনারেল ও যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার মানুষ মিশনে স্থাপিত শহীদ মিনারে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান। যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগ, মহিলা আওয়ামী লীগ, প্রবাসী মুক্তিযোদ্ধা সংগঠনসহ যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী বিভিন্ন রাজনৈতিক ও সামাজিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ, বিশিষ্ট ব্যক্তি, মিডিয়া প্রতিনিধিরা শহীদ মিনারে পুষ্প অর্পণ করেন। শুক্রবার সন্ধ্যায় মিশনে এক আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানের শুরুতে ভাষা শহীদদের স্মরণে দাঁড়িয়ে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়।

স্বাগত ভাষণে স্থায়ী প্রতিনিধি ও রাষ্ট্রদূত ড. এ. কে. আব্দুল মোমেন বলেন, একুশে ফেব্রুয়ারি আমাদের শোকের প্রতীক, শক্তির প্রতীক, ঐক্যের প্রতীক ও গৌরবের প্রতীক। যার মাধ্যমে বাঙালি জাতির স্বাধিকার, আত্মনিয়ন্ত্রণ ও স্বাধীনতা সংগ্রামের সূচনা হয়। তিনি বলেন, শহীদ দিবস আমাদেরকে ন্যায় ও মানবতা রক্ষায় দৃঢ় থাকতে এবং প্রতিকূলতার কাছে মাথা নত না করতে শিখিয়েছে। এ জন্যই বিভিন্ন চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করে বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে। একুশের চেতনাই বাংলাদেশকে জঙ্গীবাদমুক্ত সমৃদ্ধ সোনার বাংলা হিসেবে গড়তে উদ্বুদ্ধ করছে।

অনুষ্ঠানে মিশনের কাউন্সেলর ও দূতালয় প্রধান রকিবুল হকের সঞ্চালনায় রাষ্ট্রপতির বাণী পাঠ করে শোনান মিশনের উপস্থায়ী প্রতিনিধি সাদিয়া ফয়জুননেসা। প্রধানমন্ত্রীর বাণী পাঠ করে শোনান মিশনের প্রতিরক্ষা উপদেষ্টা ব্রিগেডিয়ার জেনারেল একেএম আখতারউজ্জামান, পররাষ্ট্রমন্ত্রীর বাণী পাঠ করে শোনান মিশনের প্রেস সচিব বিজন লাল দেব ও পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর বাণী পাঠ করে শোনান মিশনের কাউন্সেলর মোহাম্মদ মাহমুদুজ্জামান।

আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে ভাষা শহীদদের স্মরণ ও শ্রদ্ধা জানাতে আলোচনা সভায় অংশ নেন জাতিসংঘের আন্ডার সেক্রেটারি জেনারেল ক্রিস্টিনা গ্যালাচ, রাশিয়ার উপস্থায়ী প্রতিনিধি পেত্রে ভ ইলিচেভ, ইউনেস্কো পরিচালক মোওফিদা গুচা ও ভারতের উপস্থায়ী প্রতিনিধি ভগয়ান্ত শিং ভিশনী। এ সময়ে তারা একুশে তথা বাংলাদেশের এই ভাষা দিবসটির তাৎপর্য তুলে ধরে বক্তব্য দেন। বক্তারা জ্ঞানচর্চা ও সাংস্কৃতিক বৈচিত্র্য রক্ষায় দেশে দেশে মাতৃভাষার চর্চা বাড়ানোর ওপর গুরুত্ব আরোপ করেন। অনুষ্ঠানে সৌদি আরব, নেপালসহ বিভিন্ন দেশের প্রতিনিধি উপস্থিত ছিলেন।

এ ছাড়াও অনুষ্ঠানে সাংবাদিক হাসান ফেরদৌস ঐতিহাসিক ভাষা আন্দোলন ও আন্তর্জাতিক রাষ্ট্রভাষা দিবসের পটভূমি তুলে ধরেন। পরে এক মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে বাংলাদেশের প্রবাসী শিল্পীরা সঙ্গীত ও আবৃতি পরিবেশন করেন। সমবেত কন্ঠে জাতীয় সঙ্গীত গাওয়ার মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠান শেষ হয়।

(দ্য রিপোর্ট/এসকেসি/এইচএসএম/ফেব্রুয়ারি ২১, ২০১৫)

পাঠকের মতামত:

SMS Alert

জাতীয় এর সর্বশেষ খবর

জাতীয় - এর সব খবর