সৌদি আরব প্রতিনিধি : মঙ্গলবার শুরু হচ্ছে পবিত্র হজ পালনের আনুষ্ঠানিকতা। এদিন লাখ লাখ মুসল্লির ‘লাব্বাইক আল্লাহুম্মা লাব্বাইক’ ধ্বনিতে প্রকম্পিত হবে পবিত্র মিনা।

এদিন সন্ধ্যার পর বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে আসা প্রায় ৩০ লাখেরও বেশি ধর্মপ্রাণ মুসলমান মিনার উদ্দেশে রওনা হবেন।

ইতিমধ্যে ৬০ ভাগ হজযাত্রী মিনায় পৌঁছেছেন। হজ মন্ত্রণালয়ের উপদেষ্টা মেজর জেনারেল মোহাম্মদ আল কারনী জানান, স্থানীয় সময় সোমবার সন্ধ্যা থেকে প্রায় ৬০ ভাগ হজযাত্রী মিনায় অবস্থান করছেন। বাকি ৪০ ভাগ আজ (মঙ্গলবার) পৌঁছবেন।

এ দিকে মক্কায় ক্রেন দুর্ঘটনায় আহত ৫২ জন হজযাত্রীকে সরকারি উদ্যোগে আরাফাতের ময়দানে নিয়ে যাওয়া হবে বলে জানিয়েছেন মক্কা হেলথ এ্যাফেয়ার্সের মহাপরিচালক ডা. মোস্তাফা বালজুন।

মহান আল্লাহর নৈকট্যলাভের আশায় জিকির ও ইবাদত-বন্দেগির মধ্য দিয়ে সময় কাটাবেন তারা। পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ আদায় করবেন জামাতের সঙ্গে। বুধবার ফজরের পর হেঁটে আরাফাতের ময়দানের উদ্দেশে রওনা হবেন তারা।

এদিকে হাজীদের সর্বোচ্চ সেবা প্রদানের নির্দেশ দিয়েছেন দুই পবিত্র মসজিদের খাদেম বাদশাহ সালমান বিন আব্দুল আজিজ। তিনি হজের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট সব মন্ত্রণালয়, প্রতিষ্ঠান ও ব্যক্তিদের এই নির্দেশ প্রদান করেন।

বাদশাহ বলেন, ‘হাজীদের সেবা করা সৌদি আরব ও সৌদি আরবের জনগণের জন্য একটি সম্মানের বিষয়।’

এ ছাড়াও আরাফাত, মিনা ও মুজদালিফায় প্রস্তুত রাখা হয়েছে প্রায় এক লাখ বিশেষ নিরাপত্তা বাহিনী ও সহস্রাধিক পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নকর্মী। আর হাজীদের স্বাস্থ্যসেবা দিতে ২৫টি হাসপাতাল প্রস্তুত রয়েছে বলেও জানিয়েছে দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়।

এদিকে কোরবানির পশু জবাই ও সংরক্ষণের জন্য মক্কার পৌরসভার একটি টিম বিশেষভাবে প্রস্তুত রয়েছে।

(দ্য রিপোর্ট/কেআই/এসবি/এইচএইচ/এজেড/সেপ্টেম্বর ২২, ২০১৫)