দ্য রিপোর্ট প্রতিবেদক : ৯ অক্টোবর দুবাইতে আইসিসির সভা বসছে। আগে থেকেই সভার আলোচ্যসূচি নির্ধারিত থাকে। তারপরও আলোচনা করার সুযোগ রয়েছে। সেই সুযোগ কাজে লাগিয়ে বাংলাদেশের বর্তমান অবস্থা তুলে ধরেবে বিসিবি। সম্প্রতি বাংলাদেশের ক্রিকেটের ওপর কালোছায়া পড়েছে। অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট দলের পর দক্ষিণ আফ্রিকা প্রমীলা ক্রিকেট দলও বাংলাদেশে সফর আসতে অস্বীকৃতি জানিয়েছে। দুই দলেরই না আসার অজুহাত নিরাপত্তা।

বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন আইসিসির সভায় নিরাপদ বাংলাদেশ নিয়ে বিস্তারিত আলোচনার যে কথা বলেছেন মঙ্গলবার একই সুরে কথা বলেছেন সহ-সভাপতি মাহবুব আনাম। বিসিবির সহ-সভাপতি বলেছেন, ‘আইসিসির মিটিংয়ে আগে থেকেই এজেন্ডাগুলো নির্ধারণ করা থাকে। আইসিসি মিটিংগুলো দুটি ধাপে হয়। একটি হল সিইও পর্যায়ে অন্যটি হল বোর্ড পর্যায়ে। তবে এজেন্ডার বাইরেও আলাপ আলোচনা করার সুযোগ থাকে। বাংলাদেশ আইসিসি এবং অন্য দেশগুলোর সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক আলোচনা করবে। আমরা সেখানেই বাংলাদেশের বর্তমান অবস্থা সঠিকভাবে তুলে ধরব।’

ফিউচার ট্যুর প্রোগ্রাম বাইরে গিয়ে ম্যাচ আয়োজন সম্ভব কি-না এমন প্রশ্নে মাহবুব আনাম বলেছেন, ‘এফটিপি নিয়ে বেশকিছুদিন ধরেই আইসিসি বিভিন্ন পর্যায়ে পর্যালোচনা করছে। এটাকে কিভাবে আরও সুদৃঢ় এবং স্বচ্ছ করা যায় এই বিষয়ে আইসিসি সভায় নিয়মিতই আলোচনা হচ্ছে। সত্যি বলতে দ্বিধা নেই এফটিপির বাইরে খুব একটা আলোচনার কিছু থাকে না। কিছু কিছু আলোচনা হয়। সেখানে সিওইর সঙ্গে আমাদেরও আলোচনা করার সুযোগ থাকে।’

মাহবুব আনাম বলেছেন, ‘আমরা অবশ্যই আইসিসিসহ অন্য বোর্ডদের বাংলাদেশের মতো দলের আরও বেশি খেলার গুরুত্ব তুলে ধরব। যে কোনো দল তার থেকে উঁচু দলের সঙ্গে যত বেশি ম্যাচ খেলবে দলের উন্নতী তত বেশি হবে।’

আগামী বছরের শুরুতে জিম্বাবুয়ের নির্ধারিত সফর ছিল। কিন্তু অস্ট্রেলিয়া সফর না করায় জিম্বাবুয়ে আগামী মাসের নভেম্বরে টেস্ট সিরিজ খেলার আমন্ত্রণ জানিয়েছে বিসিবি। তবে এই বিষয়ে এখনো কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি। তিনি বলেছেন, ‘এটা ক্রিকেট পরিচালনা বিভাগ থেকে যোগাযোগ করা হচ্ছে।’

(দ্য রিপোর্ট/আরআই/আরকে/অক্টোবর ০৬, ২০১৫)