দ্য রিপোর্ট প্রতিবেদক : প্রথম ম্যাচে জয়; দ্বিতীয় ম্যাচে ড্র। এরপর তৃতীয় ম্যাচ খেলতে নেমে গ্রুপের সবচেয়ে শক্তিশালী দল উজবেকিস্তানের বিপক্ষে ‘মিরাকল’ কিছু করতে চেয়েছিল বাংলাদেশ। তেমন আশাই করেছিলেন বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ ফুটবল দলের কোচ সাইফুল বারী টিটু। তবে ম্যাচ খেলতে নেমে তেমন জাদুকরী কিছু করে দেখাতে পারেনি জনি-ইব্রাহিমরা। বরং মঙ্গলবার ‘এ’ গ্রুপের শেষ ম্যাচে উজবেকিস্তানই ৪-০ গোলের জয় তুলে নিয়েছে বাংলাদেশের বিপক্ষে।

এই জয়ে এএফসি অনূর্ধ্ব-১৯ চ্যাম্পিয়নশিপ ফুটবলের বাছাইপর্বে ‘এ’ গ্রুপের অপরাজিত চ্যাম্পিয়ন হিসেবে ৯ পয়েন্ট নিয়ে চূড়ান্তপর্ব নিশ্চিত করেছে উজবেকিস্তান। আর ৩ ম্যাচে ৪ পয়েণ্ট নিয়ে গ্রুপে রানার্সআপ হয়েছে বাংলাদেশ। রানার্সআপ হলেও পয়েন্ট কম হওয়ায় সেরা ৫ রানার্সআপ হিসেবে চূড়ান্তপর্বে যাওয়াটা দুঃস্বপ্নই হয়ে থাকছে টিটুর শিষ্যদের জন্য।

খেলা শুরর পর কোনো কিছু বুঝে ওঠার আগেই বাংলাদেশ এক গোল হজম করেছে। ১৩ সেকেন্ডের মধ্যেই এগিয়ে যেতে পারত উজবেকিস্তান। কিন্তু গানিজনভের শট বারে লেগে ফেরত আসে। তবে মাত্র এক মিনিটের মধ্যেই এগিয়ে যায় উজবেকিস্তান। বক্সের সামনে জটলা থেকে বল পেয়ে যান দোস্তন ইব্রাজিমোভ। সেখান থেকে বাম পয়ের শটে বাংলাদেশের জালে বল পাঠান তিনি (১-০)।

শুরুতেই পিছিয়ে পড়লেও ভালই খেলতে থাকে বাংলাদেশ দল। ৪ মিনিটে বক্সে বল পেয়েও সমতায় ফেরার সহজ সুযোগ নষ্ট করেছেন ফরোয়ার্ড মান্নাফ রাব্বি। রক্ষণভাগে দৃঢ়তায় প্রথমার্ধ ভালই খেলেছে বাংলাদেশ। তবে গোলের ভাল সুযোগ তেমন পায়নি। প্রথমার্ধে গোলরক্ষক আনিসুর রহমান উজবেকদের দুর্দান্ত কয়েকটি আক্রমণ রুখে দিয়েছেন।

দ্বিতীয়ার্ধের শুরুটা বাংলাদেশ আক্রমণাত্মকই ছিল। তবে রক্ষণভাগ আগলে রাখতে পারেনি। সেই কারণেই দ্বিতীয়ার্ধে আরও ৩ গোল খেয়েছে বাংলাদেশ। ৬০ মিনিটে অনিকের পাসে পাওয়া বলে বক্সের বাইরে থেকে রাব্বি শট নিলেও গোলরক্ষক তা তালুবন্দী করতে সক্ষম হয়েছেন উজবেক গোলরক্ষক। ৬১ মিনিটে বাঁ-প্রান্ত দিয়ে বল নিয়ে ঢুকলেও ঠিকমতো শট নিতে পারেননি রাব্বি।

বাংলাদেশ গোল না পেলেও ৬২ মনিটেই ব্যবধান দ্বিগুণ করেছেন উজবেকিস্তানের দোস্তন ইব্রাজিমভ। বামপ্রান্ত দিয়ে আস্তে আস্তে বক্সে ঢুকে ৩ জন ডিফেন্ডারের মাঝ দিয়ে মাটি কামড়ানো শট নিয়েছেন তিনি। গোলরক্ষক আগেই পরে গেলে বল জালে প্রবেশ করে। ৭৩ মিনিটে বাঁ-প্রান্ত থেকে ইব্রাজিমভের শটে পাওয়া বল বক্সের একেবারে সামনে পেয়েও পা ছুঁয়াতে পারেননি আব্দুক্সলিকভ দভির।

তবে ৭৯ মিনিটে আব্দুক্সলিকভ দভির উজবেকিস্তানের পক্ষে তৃতীয় গোল করেছেন। বক্সের বাইরে থেকে বল টেনে নিয়ে বক্সের প্রবেশ করে ওয়ান টু ওয়ান পজিশনে পেয়ে যান গোলরক্ষককে। সেখান থেকেই দুর্দান্ত শটে গোল করেছেন তিনি। ইনজুরি টাইমে শেষ গোলটি করেন উজবেকিস্তানের বদলি খেলোয়াড় সুখরভ নুরুল্লয়েভ।

সেই সুবাদে গ্রুপপর্বে ৩ ম্যাচ জিতে বাহরাইনে আগামী বছর অনুষ্ঠেয় চূড়ান্তপর্বের গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হিসেবেই টিকিট নিশ্চিত করল উজবেকিস্তান।

(দ্য রিপোর্ট/কেআই/আরকে/অক্টোবর ০৬, ২০১৫)