দ্য রিপোর্ট ডেস্ক : জ্ঞানতাপস, বহুভাষাবিদ, ভাষাবিজ্ঞানী ড. মুহাম্মদ শহীদুল্লাহর মৃত্যুবার্ষিকী ১৩ জুলাই। ১৯৬৯ সালের এই দিনে তিনি ঢাকায় মৃত্যুবরণ করেন।

ড. মুহাম্মদ শহীদুল্লাহ একাধারে ছিলেন ভাষাবিদ, ভাষাবিজ্ঞানী, গবেষক ও শিক্ষাবিদ। তিনি ভারতের পশ্চিমবঙ্গের অবিভক্ত চব্বিশ পরগণা জেলার পেয়ারা গ্রামে ১৮৮৫ সালের ১০ জুলাই জন্মগ্রহণ করেন।

তিনি হাওড়া জেলা স্কুল থেকে এন্ট্রান্স পাস করেন। ১৯১০ সালে কলকাতা সিটি কলেজ থেকে সংস্কৃতে অনার্স নিয়ে বিএ পাস করেন। তিনি কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে তুলানামূলক ভাষাতত্ত্বে এমএ পাস করেন। বিভিন্ন চাকরি শেষে ১৯২১ সালের ২ জুন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সংস্কৃত ও বাংলা বিভাগের প্রভাষক হিসেবে নিযুক্ত হন। তিনি ইংরেজি, আরবি, উর্দু, হিন্দি, ফরাসিসহ বেশ কয়েকটি ভাষায় পারদর্শী ছিলেন। এ কারণে তাকে বহুভাষাবিদ বলা হয়।

১৯২৮ সালে তিনি ফ্রান্স থেকে পিএইচডি ডিগ্রি অর্জন করেন। ১৯৬০ সালে পূর্ব পাকিস্তানের ভাষার আদর্শ অভিধান প্রকল্পের সম্পাদক হিসেবে যোগদান করেন বাংলা একাডেমিতে। তার উল্লেখযোগ্য গ্রন্থ— কানপার গীত ও দোহা, বাংলা সাহিত্যের কথা, বাংলা ভাষার ইতিবৃত্ত, ভাষা ও সাহিত্য, বাংলা ব্যাকরণ, মহররম শরীফ, ইসলাম প্রসঙ্গ, কুরআন প্রসঙ্গ প্রভৃতি।

তিনি বহু গবেষণামূলক প্রবন্ধ, অনুবাদ গ্রন্থ রচনা করেন। ‘আঞ্চলিক ভাষার অভিধান’ সম্পাদনা তার একটি উল্লেখযোগ্য কাজ।

ডক্টর মুহাম্মদ শহীদুল্লাহকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদুল্লাহ হলের পাশে সমাহিত করা হয়। ভাষাক্ষেত্রে তার অমর অবদানকে সম্মান ও শ্রদ্ধা জানাতে ওই বছরই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের তৎকালীন ঢাকা হলের নাম পরিবর্তন করে রাখা হয় শহীদুল্লাহ হল। এ ছাড়াও তার নামে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে একটি কলা ভবনের নামকরণ করা হয়।

(দ্য রিপোর্ট/এফএস/এপি/এইচ/জুলাই ১৩, ২০১৬)