দ্য রিপোর্ট প্রতিবেদক : দেশের প্রধান পুঁজিবাজার ঢাকা স্টক একচেঞ্জের (ডিএসই) ওয়েবসাইটে আবারো ভুল তথ্য উপস্থাপনের ঘটনা ঘটেছে। এই নিয়ে চলতি সপ্তাহে দুই কোম্পানির প্রোফাইলে শেয়ার ধারন সংক্রান্ত তথ্যে বড় ধরনের গড়মিলের ঘটনা ধরা পড়েছে। দুই কোম্পানির ক্ষেত্রেই শেয়ার ধারন সংক্রান্ত তথ্য ভুলভাবে উপস্থাপন করেছে ডিএসই কর্তৃপক্ষ।

জানা গেছে, চলতি সপ্তাহের প্রথম দিনে ইসলামী ব্যাংকের উদ্যোক্তাদের শেয়ার কম দেখানো হয় ডিএসইর ওয়েবসাইটে। এক্ষেত্রে কোম্পানি কর্তৃপক্ষের দাবি তারা সঠিক তথ্যই উভয় স্টক একচেঞ্জে পাঠিয়েছিল। কিন্তু ডিএসইর পক্ষ থেকে তা প্রকাশ করা হয়নি। যদিও পরে সেটি ডিএসই হালনাগাদ করে দেয়। এর রেশ কাটতে না কাটতেই এক সপ্তাহের মাথায় আবারও একই ঘটনা ঘটেছে বস্ত্র খাতের সিমটেক্স ইন্ডাষ্ট্রিজের ক্ষেত্রে।

সিমটেক্স ইন্ডাষ্ট্রিজের শেয়ার ধারন নিয়ে জুন মাসের হালনাগাদ তথ্য প্রকাশ করে ডিএসই। মঙ্গলবারে হালনাগাদ করা তথ্যে শেয়ার ধারন সংক্রান্ত তথ্যে বলা হয়, কোম্পানিটির উদ্যোক্তা পরিচালকের হাতে ৩৪.২৮ শতাংশ শেয়ার, প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের কাছে ১৮.৪৪ শতাংশ ও সাধারণ বিনিয়োগকারীদের কাছে ৪২.২৮ শতাংশ শেয়ার রয়েছে। এ হিসাবে সব শেয়ার যোগ করলে দেখা যায়, মোট শেয়ার সংখ্যা ৯৫ শতাংশ। অর্থাৎ ৫ শতাংশ শেয়ার কোথাও নেই। তবে অপর বাজার চট্টগ্রাম স্টক একচেঞ্জের (সিএসই) ওয়েবসাইটে শেয়ার ঠিকই ১০০ শতাংশ রয়েছে।

এই বিষয়ে সিমটেক্স ইন্ডাষ্ট্রিজের প্রধান অর্থ কর্মকর্তা আশীষ কুমার সাহা জানান, উভয় স্টক একচেঞ্জে কোম্পানি থেকে সঠিক এবং একই তথ্য পাঠানো হয়েছে। কোম্পানি কর্তৃপক্ষের কোন ভুল নেই। ডিএসইতে যোগ বিয়োগে ভুল থাকতে পারে। তা না হলে সিএসই কিভাবে সঠিক তথ্য প্রকাশ করে।

বৃহস্পতিবার সকাল এগারোটা পর্যন্ত ডিএসইতে আগের হালনাগাদ করা তথ্যই প্রকাশ করা ছিল। তবে কোম্পানি থেকে ডিএসইতে যোগাযোগ করলে পরবর্তীতে সঠিক তথ্য প্রকাশ করা হয়েছে। অর্থাৎ কোম্পানিটির সাধারণ বিনিয়োগকারীদের হাতে এখন ৪৭.২৮ শতাংশ শেয়ার রয়েছে, সেই তথ্যই এখন প্রকাশ পাচ্ছে। আগে সিএসই একই তথ্য প্রকাশ করেছিল।

(দ্য রিপোর্ট/আরএ/জুলাই ২১, ২০১৬)