thereport24.com
ঢাকা, মঙ্গলবার, ২০ আগস্ট ২০১৯, ৫ ভাদ্র ১৪২৬,  ১৭ জিলহজ ১৪৪০

কোহলি-রোহিত দ্বন্দ্বের নাটের গুরু কে, জানালেন গাভাস্কার!

২০১৯ আগস্ট ১০ ১১:৩৮:৩৯
কোহলি-রোহিত দ্বন্দ্বের নাটের গুরু কে, জানালেন গাভাস্কার!

দ্য রিপোর্ট ডেস্ক: জোর গুঞ্জন, ভারতীয় অধিনায়ক বিরাট কোহলি ও সহঅধিনায়ক রোহিত শর্মার মধ্যে সম্পর্কে বিশাল ফাটল ধরেছে! যদিও প্রকাশ্যে তা কেউই স্বীকার করছেন না। তবে তাদের মধ্যে যে ঝামেলা চলছে তা আঁচ করেছেন দলটির কিংবদন্তি সুনিল গাভাস্কার। এমনকি দুজনের মধ্যে কে প্যাঁচ লাগিয়েছে, তাও আন্দাজ করেছেন তিনি।

গাভাস্কার মনে করেন, কোহলি-রোহিতের মধ্যে মনোমালিন্য ভারতীয় ক্রিকেটের জন্য মঙ্গলজনক কিছু নয়। তার ধারণা, দলের মূল দুই ক্রিকেটারের মধ্যে ‘প্যাঁচ’ লাগিয়ে মাঝখান থেকে ফায়দা লুটছে তৃতীয় কেউ।

খেলোয়াড়ি জীবনে কিংবদন্তি কপিল দেবের সঙ্গে গাভাস্কারের দ্বন্দ্ব ছিল। তাদের সময়ে প্রতিনিয়ত এ খবর ভেসে বেড়াতো। এ কথা ক্রিকেটপ্রেমীদের অজানা নয়। নিজের অভিজ্ঞতা থেকেই গাভাস্কার আঁচ করছেন, এখানে ঝামেলা তৈরির চেষ্টা করছে অন্য কেউ।

মূলত বিশ্বকাপের সেমিফাইনাল থেকে ভারত ছিটকে পড়ার পর কোহলি-রোহিত দ্বন্দ্ব প্রকাশ্যে আসে। সোশ্যাল মিডিয়ায় বিভিন্ন সময় দুই ক্রিকেটারের স্ত্রীদের কথাবার্তা তা আরো উস্কে দেয়।

গাভাস্কার এ দ্বন্দ্বের পেছনে হাঁড়ির খবর ফাঁস করেছেন। তিনি স্বীয় অভিজ্ঞতা থেকে বলছেন, দুই অধিনায়কের মধ্যে ঝামেলা পাকাচ্ছেন ড্রেসিংরুমের কেউ। সুনিলের মতে, দলে ঢুকতে না পেরে কিংবা কম সুযোগ পেয়ে হতাশায় মগ্ন কোনো ক্রিকেটার এমন গুজব রটাচ্ছে। যে এটা করছে, সে দলের কল্যাণ চায় না। এমনটা চলতে থাকলে দেশের ক্রিকেটের ক্ষতি হবে। নাটের গুরু হবে সে-ই।

গাভাস্কার জানান, ১৯৮৪-৮৫ মৌসুমে ভারত ও ইংল্যান্ড টেস্ট থেকে কপিলকে বাদ দেয়া হয়। ওই সময় অনেকে আমাকে দোষারোপ করেন। অথচ সিদ্ধান্তটি ছিল তখনকার নির্বাচক কমিটির সদস্য হানুমন্ত সিংয়ের একান্ত।

তিনি মনে করেন, কপিলের সঙ্গে তার দ্বন্দ্বের ওই গুঞ্জন ২০ বছর পরও থামেনি। তবে কোহলি ও রোহিত খুবই পেশাদার ক্রিকেটার। তার আশা, এ কারণে শিগগির একযোগে উদ্ভূত পরিস্থিতি সামাল দেবে তারা। ঝামেলা মিটমাট করে দেশকে একসঙ্গে আরও ম্যাচ জেতাবে।

(দ্য রিপোর্ট/আরজেড/আগস্ট ১০, ২০১৯)

পাঠকের মতামত:

SMS Alert

খেলা এর সর্বশেষ খবর

খেলা - এর সব খবর