thereport24.com
ঢাকা, রবিবার, ২৬ জানুয়ারি ২০২০, ১২ মাঘ ১৪২৬,  ২৯ জমাদিউল আউয়াল 1441

‘ভারতের মুসলমানদের দেশহীন করার চক্রান্ত এই বিল’

২০১৯ ডিসেম্বর ১০ ১০:৫৮:০২
‘ভারতের মুসলমানদের দেশহীন করার চক্রান্ত এই বিল’

দ্য রিপোর্ট ডেস্ক: ভারতের নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল বিতর্কে নাটকীয় পদক্ষেপ নিলেন এআইএমআইএ প্রধান আসাদউদ্দিন ওয়াইসি। তিনি ভারতের লোকসভায় নাগরিকত্ব সংশোধনী বিলের অনুলিপি ছিঁড়ে ফেলেন।

ওয়াইসি এই বিল নিয়ে ভারতের কেন্দ্রীয় মোদি সরকারকে আক্রমণ করে বলেন, ‘ভারতে মুসলমানদের দেশহীন করার লক্ষ্যেই নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল ও এনআরসি করার পরিকল্পনা নিয়েছে কেন্দ্র।’

তিনি বলেন, এই বিলটি ভারতের মুক্তিযোদ্ধাদের অপমান। এই আইন হিটলারের আইনের চেয়েও খারাপ।

এরপর ওয়াইসি মহাত্মা গান্ধীর কথা তুলে ধরে এই বিলের অনুলিপি ছিঁড়ে ফেলেন। তিনি আরও বলেন, দক্ষিণ আফ্রিকার বৈষম্যমূলক নাগরিকত্বের কার্ড ছিঁড়ে ফেলার পর মহাত্মা উপাধি পেয়েছিলেন গান্ধীজি। তাকে অনুসরন করেই হায়দারাবাদের সাংসদ ওয়াইসি প্রতিবাদী হয়ে বিলের অনুলিপি ছিঁড়ে ফেলেন।

ওয়াইসি বলেন, ভারতের মুসলমানদের প্রান্তিক নাগরিকে পরিণত করতেই এই বিল আনা হচ্ছে। বিলটি ভারতীয় সংবিধানের পরিপন্থী। এটি মুসলিমদের রাষ্ট্রহীন কয়রার ষড়যন্ত্র।

কেন বিলটি তিনটি দেশের (পাকিস্তান, বাংলাদেশ, আফগানিস্তান) ক্ষেত্রেই সীমাবদ্ধ তা নিয়েও প্রশ্ন তোলেন তিনি। ওয়াইসি বলেন, কেন চীন বা অন্য কোনও দেশ থেকে আসা শরণার্থীদের জন্য এই বিল নয়?

তার আগে তৃনমূল সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় একই প্রশ্ন তুলে বলেন, কেন এই সংশোধনী বিলটি তিনটি দেশের মধ্যেই সীমাবদ্ধ থাকছে? কেন শ্রীলঙ্কা বা মিয়ানমারের কথা থাকছে না এই বিলে?

অভিষেক আরও বলেন, শ্রীলঙ্কা এবং মিয়ানমার তো ব্রিটিশ ভারতের অংশ ছিলো। তাহলে কেন তাদের কথা বিবেচনা করা হবে না? তার কারণ শুধুমাত্র রাজনৈতিক কারনেই এই নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল পেশ করা হচ্ছে। তারপর এনআরসিও রাজনৈতিক কারণেই করা হবে।

প্রসঙ্গত, সোমবার ভারতের পার্লামেন্টের নিম্নকক্ষ লোকসভায় বিতর্কিত নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল পাস হয়েছে। ৯০ মিনিট উত্তপ্ত বিতর্কের পর ২৯৩-৮২ ভোটের ব্যবধানে এটি পাস হয়।

(দ্য রিপোর্ট/আরজেড/ডিসেম্বর ১০,২০১৯)

পাঠকের মতামত:

SMS Alert

বিশ্ব এর সর্বশেষ খবর

বিশ্ব - এর সব খবর