thereport24.com
ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১৪ আশ্বিন ১৪২৯,  ৩ রবিউল আউয়াল 1444

আইডিএলসিসহ আসামি ৬১

জেসন ফার্মার তালিকাভুক্তি নিয়ে পরিচালকদের দ্বন্দ্বে মামলা

২০২২ জুন ১৬ ১৯:২৪:৩৭
জেসন ফার্মার তালিকাভুক্তি নিয়ে পরিচালকদের দ্বন্দ্বে মামলা

মাহি হাসান ,দ্য রিপোর্ট : শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্তির সিদ্ধান্ত থেকে সরে আসায় ওষুধ উৎপাদনকারী কোম্পানি জেসন ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেডের দুই শেয়ারধারী পরিচালক কোম্পানির চেয়ারম্যান ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক এবং কর্পোরেট উপদেষ্টা প্রতিষ্ঠান আইডিএলসি সহ ৬১ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছে। প্লেসমেন্ট শেয়ার বিক্রি করে ৪০ কোটি টাকা সংগ্রহ করার পর তালিকাভু্ক্তির সিদ্ধান্ত থেকে কোম্পানির পরিচালনা পর্ষদ সরে আসে। জেসন ফার্মার দুই শেয়ারধারী পরিচালক জিনাত সেলিম ও আজরা সেলিম ওই সিদ্ধান্তে সংক্ষুদ্ধ হয়ে হাইকোর্টে মামলা করেন। এ নিয়ে ২০২১ সালের ১৯ জানুয়ারী ও ২০২২ সালের ৩ মার্চ শুনানি অনুষ্ঠিত হয়।

কোম্পানির চেয়ারম্যান এনাম মল্লিক , ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোহাম্মদ সলিমুল্লাহ,কোম্পানি শেয়ারহোল্ডার নাফিজা সেলিম ও জয়েন্ট স্টক কোম্পানি রেজিস্টার সহ আরো ৬১ জন কে অভিযুক্ত করা হয়েছে। কোম্পানি আইন ১৯৯৪ এর ২৩৩ ধারা অনুযায়ী দায়ের করা এই মামলায় অভিযুক্তদের মধ্যে আরও রয়েছেন আইডিএলসি ইনভেস্টমেন্টের ব্যবস্থাপনা পরিচালক, আইডিএলসির সিকিউরিটিজ লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক, ব্লুচিফ সিকিউরিটিজ লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক, রোজ সিকিউরিটিজ লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক। উল্লেখ্য কোম্পানির ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোহাম্মদ সলিমুল্লাহ বাদিদের বাবা এবং চেয়ার‌ম্যান এনাম মল্লিক তাদের ভাই।

মামলায় বলা হয়েছে, ১৯৯৪ সালের কোম্পানি আইনের ২৩৩ ধারা অনুযায়ী জেসন ফার্মার বর্তমান বোর্ডের নানান সিদ্ধান্ত কোম্পানিকে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে। পাশাপাশি কোম্পানির চেয়ারম্যান, এমডি ও ডিরেক্টর তাদের নিজের স্বেচ্ছাচারিতায় কোম্পানির নানা সম্পত্তি তাদের নিজেদের প্রয়োজনে ব্যবহার করেছে। যেটা কোম্পানি আইনুযায়ী সম্পূর্ণ বেআইনি। অভিযুক্ত ৫৭ জন কোম্পানির স্টেক হোল্ডার যারা নতুন ইস্যু করা সাধারণ শেয়ার কিনেছে প্রাইভেট প্লেসমেন্টের মাধ্যমে। ওয়ান ব্যাংক,এনসিসি ব্যাংক,পিপলস লিজিং আ্যন্ড ফাইন্যান্সিয়াল সার্ভিস ও প্রাইম ফাইন্যান্স এন্ড ইনভেস্টমেন্টকে কোম্পানির ঋণদাতা হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছে।

মুলধন বৃদ্ধির উদ্দেশ্যে কোম্পানিটি প্রাইভেট থেকে পাবলিক লিমিটেডে রুপান্তর করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় ২০১৮ সালের ১৩ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত পরিচালনা পরিষদের সভায়। সে অনুযায়ী ২ কোটি ৪০ লাখ সাধারণ শেয়ার ইস্যু করে তা বিক্রির সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। ১০ টাকা ফেসভ্যালুর প্রতিটি শেয়ারের প্রিমিয়াম ধরা হয় ১৬ টাকা । তাতে প্রতিটি শেয়ারের মূল্য দাড়ায় ২৬ টাকা।

বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ এন্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন( বিএসইসি) নিকট থেকে প্রাইভেট প্লেসমেন্টের মাধ্যমে কোম্পানির শেয়ার বিক্রির অনুমোদন নিয়ে ২০১৯ সালের ১২ জুন ১ কোটি ৩৭ লাখ ৪৪,হাজার ২৭২ টা শেয়ার ইস্যু করে।এখান থেকে ৩৫ কোটি ৭৩ লাখ ৫১ হাজার ৭২ টাকা উত্তোলন করে।পরবর্তীতে ১৪ জুলাই ১ কোটি ২ লাখ ৫৫ হাজার ৭২৮ শেয়ার ইস্যু করে ৩৫ কোটি ৭৩ লাখ ৫১ হাজার ৭২ টাকা উত্তোলন করে। ৩০ সেপ্টেম্বর ১৫ লাখ ৩০ হাজার শেয়ার ইস্যু করে ৩ কোটি ৯৭ লাখ ৮০ হাজার টাকা সংগ্রহ করে।

২০১৯ সালে ১৫ সেপ্টেম্বর অনুষ্ঠিত বিশৈষ সাধারণ সভায় বা ইজিএমে প্রাইভেট থেকে পাবলিক লিমিটেড কোম্পানিতে রুপান্তরের বিষয়টি অনুমোদন লাভ করে। ২০১৮ সালের ১৬ জুলাই্ আইডিএলসিকে করপোরেট উপদেষ্টা হিসেবে নিয়োগ দেওযা হয়। যাদের মুল দায়িত্ব ছিলো জয়সন ফার্মার শেয়ার ছেড়ে পুজিবাজার থেকে টাকা সংগ্রহ করা। আইডিএলসি উপদেষ্টা থাকাকালীন প্রাইভেট প্লেসমেন্ট শেয়ার বিক্রি করে ৪০ কোটি টাকা সংগ্রহ করেছে। এর পরে ২০২১ সালের ৬ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত কোম্পানির ২৯৯ তম পরিচালনা পরিষদের সভা থেকে আইপিওর মাধ্যমে টাকা সংগ্রহের সিদ্ধান্ত বন্ধ করা হয়। করোনা মহামারির কারণে বিনিয়োগকারীদের শেয়ার কেনায় আগ্রহ কমে যাবে যা শেয়ারের দামে প্রভাব ফেলতে পারে – এমন কারণ দেখিয়ে আইপিও প্রক্রিয়া বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। মামলার বাদী পরিচালনায় পরিষদের সভায় থেকে এই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে অবস্থান নেন। এরপর বিচারপতি মোহাম্মদ খুরশীদ আলম সরকারের হাইকোর্ট বেঞ্চে মামলা দায়ের করেন।

কোম্পানির কর্পোরেট উপদেষ্টা আইডিএলসির এমন সিদ্ধান্তের পরামর্শ দেওয়াকে অপেশাদারিত্ব ও অনৈতিক বলে উল্লেখ করা হয়েছে। মামলায় আরো উল্লেখ করা হয় যে কোম্পানির চেয়ারম্যান এনাম মল্লিক, ব্যবস্থাপনা পরিচালক সলিমুল্লাহ ও পরিচালক নাফিজা সেলিম স্বেচ্ছাচারিতার মাধ্যমে সিদ্ধান্ত নিতেন। তাদের সামনে কোম্পানির অন্য কারো মতামত দেয়ার সুযোগ নষ্ট হচ্ছিল বলে অভিযোগ করা হয়।

এ ব্যাপারে কথা হলে আইডিএলসি ইনভেস্টমেন্ট লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মনিরুজ্জামান বলেন পারিবারিক দ্বন্দ্বের কারণে এই মামলা। পরিবারের দুই বোন তার বাবা ও ভাইয়ের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন। তিনি বলেন সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানসহ সব শেয়ারহোল্ডারদের নাম সংযুক্ত করে দিয়েছে। সে হিসেবে আইডিএলসির নাম এসেছে।

এ বিষয়ে কথা বলতে যোগাযোগ করা হয় মামলার বাদি আজরা সেলিমের সঙ্গে। তিনি বলেন আমরা মামলা করেছি পরিচালনা পরিষদের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে। বিচারাধীন থাকায় মামলা নিয়ে কথা বলতে অস্বীকার করেন তিনি।

(দ্য রিপোর্ট/ টিআইএম/১৬ জুন,২০২২)

পাঠকের মতামত:

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

SMS Alert

শেয়ারবাজার এর সর্বশেষ খবর

শেয়ারবাজার - এর সব খবর